বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৭:১৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ব‍্যস্ত সময় পার করেছে তাড়াশ উপজেলার কামাররা। কালের খবর রাজনগরে চাঁদা না দেওয়ায় প্রবাসীর পিতা গৃহবন্দি। কালের খবর ছাই হওয়া স্বপ্ন গড়লেন লাগালেন এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন’। কালের খবর বাঘারপাড়ায়-পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আনন্দে এলাকাবাসী কে মিষ্টি খাওয়ালো (চায়ের দোকানদার) মারজোন মোল্লা। কালের খবর কানাইঘাটে বিএমএসএফ ও রেড ক্রিসেন্টের যৌথ উদ্যোগে বন্যার্তদের ফ্রি চিকিৎসাসহ ঔষধ বিতরণ। কালের খবর সরকার সারা দেশে যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়ন করছে : প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর শাহজাদপুরে বাধা দেয়ার পরও সহবাস করায় ব্লেড দিয়ে স্বামীর লিঙ্গ কর্তন করলো স্ত্রী!। কালের খবর পদ্মাসহ সকল সেতুতে সাংবাদিকদের টোল ফ্রি করা উচিৎ: বিএমএসএফ। কালের খবর বৃহত্তর ডেমরার যাত্রাবাড়ি বর্ণমালা স্কুলের অধ্যক্ষ ও সভাপতির দুর্নীতি তদন্তে কমিটি গঠন। কালের খবর স্বপ্নের পদ্মা সেতু দেখা হলো না শিশু নাসিমের। কালের খবর
সাধারন মানুষ কে অশান্তি ও অত্যাচার করে যাচ্ছে ওয়ার্ড মেম্বার !

সাধারন মানুষ কে অশান্তি ও অত্যাচার করে যাচ্ছে ওয়ার্ড মেম্বার !

কালের খবর : ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের নব নির্বাচিত মেম্বার মোঃ কবির মিয়ার চামচামি ও দালালির মধ্য দিয়ে জণগনের অশান্তি পোহাতে হচ্ছে।
কবির কুলাসিন গ্রামের মৃত মোঃ মোছেন মিয়ার দ্বিতিয় স্ত্রীর ৪র্থ নাম্বার ছেলে এলাকাবাসির মত প্রকাশে জানা যায় গত ইউ পি নির্বাচনে থোল্লাকান্দি গ্রামের হারুত চেয়ারম্যানের সাহায্য নিয়ে কবির মোটা অংকের টাকা ঘুশ দিয়ে ভোট জালিয়াতি করে কুলাসিন গ্রামের মেম্বার নির্বাচিত হয়।
মেম্বার হওয়ার পরপরই শুরু করে চেয়ারম্যানের সাথে হাত মিলিয়ে সাধারন মানুষ কে অত্যাচার এবং ঘষে খাওয়া।
কুলাসিন পশ্চিম পাড়া একটি দূর্ঘটনা বশত খুনের বিষয় নিয়ে দুই পক্ষের থেকে অনেক টাকা পয়সা খেয়েছে কিন্তু আসামি ও বাদি পক্ষ তার কুনো সুষ্ঠ বিচার পাননি। চেয়ারম্যান হারুত মিয়ার কথামত বাৎসরিক মাহফিলে বাধা দেয় ।
কিছু দিন আগে কবির এবং তার ভাই সাবেক মেম্বার রমজান আলি একটি নিরিহ প্রতিবন্ধী ছেলে কে বেধম মারধর করে ছেলেটির নাম মোঃ মাছু সে কুলাসিন মধ্য পাড়া অবিদ মিয়ার ছেলে।
তথ্য অনুসারে জানা যায় কবির এবং তার ভাই রমজান এক জন মাদক বিক্রেতা।
কবিরের ভাই রমজান যখন মেম্বার ছিল তখন কুখ্যাৎ মাদক ব্যাবসায়ি শাহজালাল নামে এক ছেলের সাথে মাদক ব্যাবসা করতো ও সে নিজেও ইয়াবা, গাজা, মদ, প্রান করতো এবং এখনও নেষা করে মাদক ব্যাবসা করে। আর সেটা আওয়ামিলীগের বড় এক নেতা মতিজিলের ওয়ার্ড কমিশনার মোঃসাঈদ মিয়ার ও থোল্লাকান্দির গ্রাম বড়িকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব মোঃহারুত মিয়ার ক্ষমতায় এসব করছে।
জানা যায়, কবিরের ভাই অবিদ একজন দক্ষ্য মদ ও জোয়া খুর এবং নেষা করে আওয়ামিলীগের ক্ষমতা ও থোল্লাকান্দি গ্রামের সাঈদ মিয়া মতিজিলের ওয়ার্ড কমিশনের ও চেয়ারম্যান হারুত মিয়ার ক্ষমতা কে ব্যবহার করে সাধারন মানুষ কে বিভিন্ন ভাবে অন্যায় অত্যাচার করে যাচ্ছে দিন রাত।
এলাকাবাসিরা বলেন, কবির মেম্বার নির্বাচনে জয় লাভ করার জন্য তার দ্বিতিয় মেয়ে কে বিয়ে দেয়, একই গ্রামের মোঃখালেক মিয়ার ছেলে প্রবাসী রবিউল্লা মিয়ার কাছে।
এলাকার সাধারন মানুষ বলেন, কবির মেম্বার এক সময় তার জামাইয়ের চাচাতো ভাই মোঃ হুমায়ন মিয়ার ছেলে মোঃ হালিম মিয়াকে মামলায় ঢুকিয়ে দিয়ে ছিলো। সেই মামলাটি ছিলো শ্রীঘড় গ্রামের সাথে কুলাসিন গ্রামের ঝগড়ার মামলা, দৃর্ঘ কয়েক বছর আগে কুলাসিন গ্রামের সাথে ঝগরা হয়ে ছিল শ্রীঘড় গ্রামের, সেখানে যারা ঝগড়া করে ছিলো তাদের বাদ দিয়ে অযথা আসামি হতে হয়ে ছিল ভাল মানুষদের সেটা এই কবির চামচার কারনে।ঐ মামলার লিষ্ট তৈরি করে দিয়ে ছিলো এ কবির মেম্বার এবং রমজান মেম্বার। তার ভাই রমজান মেম্বার এখনো গ্রামে চুরি ডাকি করিয়ে থাকে বাড়া করা চুর ডাকাত দিয়ে।

বাংলাদেশ সরকারের কাছে নবীনগর বাসির আবেদন কবির কে যারা লালন পালন করে তাদের কে নবীনগর উপজেলা থেকে নমিনেশন দেয়া না হুক।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনের কাছে জণগনের আবেদন এই ঘুশ খুর মেম্বার কে অবিলম্বে বহিস্কার করা হুক।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com