মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:০১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় অবৈধ ভেজাল গুড় তৈরি কারখানায় অভিযানে জেল-জরিমানা। কালের খবর যশোরের মাটিতেই প্রথম উড়েছিল স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা। কালের খবর শাহজাদপুরে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমুলক সভা। কালের খবর আগামীকাল ছাত্রলীগের সম্মেলন: অনূর্ধ্ব ২৯ বছরেই বন্ধি ছাত্রলীগ বিতর্কমুক্ত ছাত্রলীগের কমিটি উপহার চলন বিলে পানি যাওয়ার সাথে সাথে আমন কেটেই জমিতে সরিষা বুনছেন কৃষক। কালের খবর নজু মুন্সির বাড়ীতে বেআইনিভাবে হাতে আগ্নেয়াস্ত্রসহ বসতঘরে অনধিকার প্রবেশ করে অতর্কিত হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। কালের খবর স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির অপতৎপরতা প্রতিরোধে এবার মাঠে নামছে আওয়ামী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম লীগ। কালের খবর সখীপুরে হায়দার মাস্টার স্মৃতি ফুটবল টুর্নান্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত। কালের খবর যশোরে সন্তানের বায়না পূরণই কাল হলো তহমিনার, স্বামী-সন্তান হারিয়ে নির্বাক। কালের খবর নবীনগরে ২০০ শত বছরের কবরস্থান রক্ষায় গ্রামবাসীর মানববন্ধন। কালের খবর
গোদাগাড়ীর আরেক মাদক সম্রাট কোটিপতি মিজান প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বহাল তবিয়তে ! মাদকসহ ঘুরে বেড়াচ্ছে প্রকাশ্যে। কালের খবর

গোদাগাড়ীর আরেক মাদক সম্রাট কোটিপতি মিজান প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বহাল তবিয়তে ! মাদকসহ ঘুরে বেড়াচ্ছে প্রকাশ্যে। কালের খবর

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি, কালের খবর  : মাদক নির্মূল করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যখন তৎপর তখনই দেদারসে ঘুরে বেড়াচ্ছে গোদাগাড়ীর মাদক মনিবরা। আবার অনেকেই পদ্মার ওপারে সিমান্ত এলাকায় মুক্ত বাতাসে বসে হিসেব করছে টাকার। হিসেব করছে তার কোথায় কত সম্পদ।এদেরই শীর্ষে রয়েছে মিজান নামক এক মাদক লর্ড।মিজানের আরেক নাম বাঁঠা মিজান। চাপাই নবাবগঞ্জ আলাতুলীর সিমান্ত এলাকায় বাড়ি হওয়ায় যোগাযোগ থাকে ইন্ডিয়ার লালগোলায়। অভাব অনটনের সূত্র ধরে যার কর্ম ছিল দিন মজুরী । পাশাপাশি ইন্ডিয়া থেকে লবনের চোরায় ব্যবসা। লবন ব্যবসার সূত্র ধরে পরিচয় হয় লালগোলার মাদক উৎপাদনকারীদের সাথে। সেখান থেকে মাদক এনে বিক্রয়ের সুযোগ হয় গোদাগাড়ী সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। এরই ধারাবাহিকতায় নাম ওঠে কোটিপতির তালিকায়।

মাদক সম্রাটদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করতে অট্টলিকা স্থাপন করে গোদাগাড়ীর সরমংলা নামক গ্রামে। যার আনুমানিক মূল্য এক কোটি টাকা। সরমংলার সাধারন মানুষ মাদক বিরোধী হওয়ায় কোনঠাসা হয়ে পড়ে বাঠা মিজান। চরম মুহুর্তে পাশে এসে দাড়ায় বৃটিশ নামের এক ব্যক্তি। বৃটিশের আরেক নাম চামচা বৃটিশ।
তাতে খুশি হয়ে বাঠা মিজান বৃটিসকে ব্যবসায়ীক পার্টনার হিসেবে গ্রহন করে। বৃটিসের সহযোগিতায় গ্রামের অসহায়, হতদরিদ্র ছেলে মেয়েকে কাজে লাগায় মাদক বহনের বাহন হিসেবে। এদেরই একজন সাদ্দাম যাকে মাদক চুরির অভিযোগে গাছে বেধে মারধর করে বৃটিস এবং তারই চাচাতো ভাই খাবির। সে মাদক ফেরত না দেওয়ায় পুলিশের সহযোগিতায় মাদক দিয়ে তাকে চালান করা হয় ক্ষমতার দাপটে। এরই মাঝে বৃটিশ গ্রামে প্রচার করে মিজানের দিকে কেউ চোখ তুলে তাকালে চোখ উপড়ে ফেলবে। এলাকাবাসী ভয়ে ভীত হয়ে বন্ধ করে দেয় মিজানের সমালোচনা।বর্তমানে মিজানের সম্পদের হিসেব করলে দেখা যায় গোদাগাড়ীর বিভিন্ন জায়গায় শত্তুর বিঘা জমি সহ আলিশান অট্টলিকা। মুজুর থেকে কোটিপতি মিজান এখন চরম অভিযানের মধ্যেও ঘুরে বেড়ায় সিনা উচু করে বীরদর্পে।
বলে বেড়ায় লোক সমাজে তার নাকি মাসিক চাঁদা চালু আছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীদের কাছে।তার ঘোরাফেরা রয়েছে পুলিশের গোচরেই।
এদিকে গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম বলেন মাদক কারাবারীরা কেউ পুলিশের হাত থেকে রেহায় পাবে না। এলাকাবাসীও চাই মাদক মুক্ত সমাজ। শান্তিপূর্ণ একটা সমাজ।আমরা মাদক নির্মূল করব সাধারন মানুষকে শান্তিতে রাখতে। মাদক মুক্ত হলে যেমন বেঁচে যায় যুব সমাজ তেমনই শান্তিপূর্ণ হয়ে ওঠে পরিবার গুলো। তাই দেশকে শান্তিতে রাখতে মাদক নির্মূল করা সকলেরই দায়িত্ব।

      দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন। 

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com