শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০:০৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যশোরের কেশবপুরে শান্তি স্থাপন ও সহিংসতা নিরসনে (পিএফজি, র) সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর রায়পুরার ছাত্রলীগ নেতা মামুনকে জড়িয়ে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক ধর্ষণ মামলাসহ একাধিক মামলা করায় সর্বমহলে নিন্দা। কালের খবর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এর ৫৬ ধারার প্রয়োগ’ শীর্ষক সেমিনারে.প্রধান অতিথি সিএমপি কমিশনার। কালের খবর সহিংসতা নয়-শান্তির জন্য আমরা-এই শ্লোগান কে সামনে রেখে বাঘারপাড়ায় অনুষ্ঠিত হলো (পিএফজির) সম্মিলিত কার্যক্রম ও পরিকল্পনা প্রণয়ন সভা। কালের খবর ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল ইসলাম সাময়িক বরখাস্ত। কালের খবর বাঘারপাড়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাংবাদিক লক্ষণ চন্দ্র মন্ডলের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক। কালের খবর যুবদের নেতৃত্বে সঠিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহনের ফলে , সমাজে সহিংসতা নিরসন ও শান্তি স্থাপন হতে পারে। কালের খবর কোরবানির পশু প্রস্তুত করতে ব্যস্ত সাতক্ষীরার খামারিরা। কালের খবর চট্টগ্রামের ইপিজেডে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন, ঘটনায় জড়িত মূল হোতাসহ ২জন গ্রেপ্তার। কালের খবর রাজধানী ঢাকা শহরে কোনো ব্যাটারিচালিত রিকশা চলবে না : সড়ক পরিবহনমন্ত্রী। কালের খবর
কুষ্টিয়ায় স্ত্রীর মর্যাদা পেতে স্বামীর বাড়িতে রুমার অনশন

কুষ্টিয়ায় স্ত্রীর মর্যাদা পেতে স্বামীর বাড়িতে রুমার অনশন

কালের খবর প্রতিবেদক : স্ত্রীর মর্যাদা ফিরে পেতে স্বামীর বাড়িতে অনশন করেছেন রুমা নামের এক নারী কুষ্টিয়ার′ মিরপুর উপজেলার সাতগাছি গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, মিরপুর উপজেলার সাতগাছি গ্রামের আশরাফুল হক নিজেকে অবিবাহিত দাবী করে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে কুষ্টিয়া কালিশংকরপুর এলাকার রুমা আক্তারের সাথে।

রুমা জানান, মিরপুর উপজেলার সাতগাছি গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে আশরাফুল হকের সাথে গত বছরের ২৪শে নভেম্বর মুসলিম পারিবারিক আইনে বিবাহ করি। এর কিছুদিন পর আমি জানতে পারি আশরাফুল বিবাহিত এবং এক সন্তানের বাবা। আমি সবকিছু মেনে নিয়ে তার সাথে সংসার করতে চাই। এসময় “আমি মরলে স্বামীর বাড়িতেই মরবো” বলে সাংবাদিকদের বলেন অনশনরত রুমা।

রুমা কান্না জড়িত কন্ঠে বলে, আমি স্বামীর অধিকার চাই। আমি এসেছি, এখান থেকে বের হলে আমার লাশ বের হবে। এখানে আশার পর আমাকে জানানো হয় আমাকে নাকি আশরাফুল কোর্ট থেকে তালাক দিয়েছে। আশরাফুল আমার কাছ থেকে আমার জমানো ৩ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা নিয়েছে। সেটাও আশরাফুল এখন অশ্বীকার করছে। আজ আমাকে থানায় নিয়ে গিয়েছিল, কিন্তু সেখানেও কোন মিমাংসা হয়নি। আমি টাকা চায় না, আমি স্ত্রীর অধিকার চাই।

নিকাহনামা সূত্রে জানা যায়, বিয়েতে সাক্ষী হয় সদর উপজেলার কবুরহাট এলাকার ইদ্রিস আলীর ছেলে জহুরুল ইসলাম ও মিরপুর উপজেলার মোশারফপুর গ্রামের মৃত পলান মন্ডলের ছেলে শুকচাঁদ মন্ডল। বিয়েতে কৌশলে দেন মোহর করে ১০ হাজার টাকা। নিকাহনামা’র ২১ নাম্বারে উল্লেখ রয়েছে বরের কোন স্ত্রী নাই।

আশরাফুল জানান, আমি জানতাম না রুমা স্বামী পরিত্যক্ত। জানার পর আমি কোর্টে গিয়ে তালাক দিয়ে এসেছি। দুপুর ১টার দিকে আমার বাড়িতে আসে রুমা। আশরাফুলের চাচা জানান, বুধবার থানায় বসে আমরা ৫০ হাজার টাকা দিয়ে মিমাংসা করতে চেয়েছিলাম কিন্তু ওই মেয়ে এতে রাজি হয়নি।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি তদন্ত সঞ্জয় জানান, মেয়েটি থানাতে এসে অভিযোগ করে যে তার স্বামী সংসারের কোন খরচ বহন করছে না। এই অভিযোগের ভিত্তিতে আমি দুই পক্ষকে ডাকি। কিন্তু পরে দুই পক্ষ কোর্টের হস্তক্ষেপ চেয়ে চলে যায়।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com