শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বৃহত্তর ডেমরার কদমতলীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে স্থাপনা নির্মাণ ও হামলা পুলিশ নীরব পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ব‍্যস্ত সময় পার করেছে তাড়াশ উপজেলার কামাররা। কালের খবর রাজনগরে চাঁদা না দেওয়ায় প্রবাসীর পিতা গৃহবন্দি। কালের খবর ছাই হওয়া স্বপ্ন গড়লেন লাগালেন এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন’। কালের খবর বাঘারপাড়ায়-পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আনন্দে এলাকাবাসী কে মিষ্টি খাওয়ালো (চায়ের দোকানদার) মারজোন মোল্লা। কালের খবর কানাইঘাটে বিএমএসএফ ও রেড ক্রিসেন্টের যৌথ উদ্যোগে বন্যার্তদের ফ্রি চিকিৎসাসহ ঔষধ বিতরণ। কালের খবর সরকার সারা দেশে যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়ন করছে : প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর শাহজাদপুরে বাধা দেয়ার পরও সহবাস করায় ব্লেড দিয়ে স্বামীর লিঙ্গ কর্তন করলো স্ত্রী!। কালের খবর পদ্মাসহ সকল সেতুতে সাংবাদিকদের টোল ফ্রি করা উচিৎ: বিএমএসএফ। কালের খবর বৃহত্তর ডেমরার যাত্রাবাড়ি বর্ণমালা স্কুলের অধ্যক্ষ ও সভাপতির দুর্নীতি তদন্তে কমিটি গঠন। কালের খবর
মানিকগঞ্জে ব্যবসায়ীকে মারধর, দোকানপাট বন্ধ রেখে ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদ। কালের খবর

মানিকগঞ্জে ব্যবসায়ীকে মারধর, দোকানপাট বন্ধ রেখে ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদ। কালের খবর

মোঃ হাবিবুর রহমান, মানিকগঞ্জ থেকে, কালের খবর  : মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় একটি বিপণী বিতানে (মার্কেট) ঢুকে এক ব্যবসায়ীকে মারধর ও হত্যার হুমকির প্রতিবাদে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এ ছাড়া তাঁরা পুলিশ সুপার এবং থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। আজ বুধবার দুপুর থেকে এই কর্মসূচি পালন করেন তাঁরা।

লিখিত অভিযোগ  ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় নবীন সুপার মার্কেটে ইলেকট্রনিক্স ও মুঠোফোন সেটসহ বিভিন্ন পণ্যের দোকান রয়েছে। দীর্ঘ দিন ধরে মার্কেটের ভেতর বিভিন্ন সময় স্থানীয় জয়রা এলাকার বেশ কয়েকজন বখাটে ছেলে বিভিন্ন সময় মাদক সেবন করে আসছে। তাদের এই কাজে ব্যবসায়ীরা বাঁধা দিলেই বখাটেরা তাঁদের মারধর ও ভয়-ভীতি দেখায়। বিভিন্ন সময় দোকান থেকে জোরপূর্বক বিভিন্ন পণ্য নিয়ে যায়।
আজ বেলা পৌনে দুইটার দিকে নবীন মার্কেটের এক ব্যবসায়ীর কাছে স্থানীয় জয়রা এলাকার মাদকাসক্ত অবস্থায় শচিন মিয়া (১৯) মোবাইলে চার্জার ও এয়ারফোন জোর করে নেওয়ার সময় রবিন নামের একব্যবসায়ী বাঁধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শচিন এবং তার সহযোগী রকি (২০), রাজা মিয়া (১৯) এবং মিরাজ মিয়া (২০) সহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজন মিলে রবিনকে মারধর করেন। একপর্যায়ে লোহার শাবল দিয়ে ব্যবসায়ীকে আঘাত এবং দোকান ভাঙচুর করার চেষ্টার সময় মার্কেটের অন্যান্য ব্যবসায়ীরা প্রতিহত করেন। এ সময় শচিনসহ তাঁর সহযোগীরা ওই ব্যবসায়ীকে খুন জখম করার হুমকি দেন। পরে এসব বিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে মার্কেটে আগুন দিয়ে দোকানপাট জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে চলে যান বখাটেরা।
এ ঘটনার পরপরই ব্যবসায়ীরা সব দোকানপাট বন্ধ রেখে প্রতিবাদ জানান। বেলা তিনটার দিকে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও অপরাধীদের শাস্তির দাবিতে ৭০ থেকে ৮০ জন ব্যবসায়ী একত্রিত হয়ে সদর থানার মূল ফটকে অবস্থান নেন। পরে থানায় উপস্থিত পরিদর্শক (অপারেশন) কোহিনুর ইসলাম ব্যবসায়ীদের এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরামর্শ ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলে ব্যবসায়ীরা পরে মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবে আসেন। পরে তাঁরা পুলিশ সুপারের কাছে এসব বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেন।
মার্কেটের ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘মার্কেটের ভেতর বিভিন্ন সময় এসব বখাটেরা বিভিন্ন মাদক সেবন করে আসছে। নেশার টাকা যোগাড়ের জন্য মাঝে মধ্যে চাঁদা দাবি করে আসছেন এসব বখাটেরা। টাকা-পয়সা না দিলে ব্যবসায়ী বা কর্মচারীদের মারধরও করা হয়। এসব বখাটে ও চাঁদাবাজদের দাপটে ব্যবসায়ীরা নিরাপত্তাহীনতা ও শঙ্কার মধ্যে রয়েছেন।’
এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আকবর আলী খান বলেন, ‘ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তায় পুলিশ কাজ করছে। রাতে টহল পুলিশ নিয়মিত কাজ করছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com