শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ১১:২২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
জগন্নাথপুর বন্যার প্রভাবে হাটভর্তি গরু, ক্রেতা কম !! কালের খবর রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানিতে মরে গেলো ৩ লাখ টাকার মাছ : অসুস্থ অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা। কালের খবর মুরাদনগরে  দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক  বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত। কালের খবর বাঘারপাড়ায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অর্থায়নে এক,শত শিক্ষার্থী কে বাইসাইকেল প্রদান। কালের খবর পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমিদস্যু হাতে থেকে রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন জগন্নাথপুরে রেমিটেন্স যোদ্ধার মৃত্যু এলাকায় শোকের ছায়া, জানাযা সম্পন্ন। কালের খবর সাইবার অপরাধ দমন ও অপপ্রচার ঠেকাতে একটি আলাদা ‘সাইবার পুলিশ ইউনিট’ হবে : সংসদে প্রধানমন্ত্রী রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন। কালের খবর ইউপি চেয়ারম্যান পিতার এক ছেলে এমপি আরেক ছেলে উপজেলা চেয়ারম্যান। কালের খবর ঢাকা প্রেস ক্লাবের স্থায়ী সদস্য এম নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক। কালের খবর
বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ! কালের খবর

বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ! কালের খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের খবর :

বিএসটিআইয়ের অনুমোদন নেই, নেই ব্যবসা পরিচালনা করার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র। পরিবেশও অস্বাস্থ্যকর। তারপরও অবাধে গড়ে ওঠা কারখানাগুলো সরবরাহ করছে বিশুদ্ধ পানি! চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে প্রায় অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠান বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করে আসছে।

মঙ্গলবার দুর্নীতি দমন কমিশন চট্টগ্রাম কার্যালয়ের এক অভিযানে এসব তথ্যের সত্যতা মিলেছে। তাৎক্ষণিক অভিযানে এমন অবৈধ চারটি প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ সময় আরো কিছু নামসর্বস্ব বিশুদ্ধ পানি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হয়। তবে সেসব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা আগে থেকে খবর পেয়ে পালিয়ে যান।

সিলগালা করা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- কে. এফ এন্টারপ্রাইজ, এ. জেড এন্টারপ্রাইজ (পানির নাম : ডিউ ড্রপ), অহি ইন্টারন্যাশনাল ও স্মার্ট ড্রিংকিং ওয়াটার, অজিফা ফুড এন্ড বেভারেজ।

দুদক জানায়, চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধ ড্রিংকিং ওয়াটার উৎপাদন ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুদকের চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয় অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানকালে টিম দেখতে পায়, প্রতিষ্ঠানসমূহের কোনটিরই বিএসটিআই অনুমোদন এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই। এছাড়া কারখানাগুলোর পরিবেশ খুবই অস্বাস্থ্যকর। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান অবৈধভাবে বিএসটিআইয়ের ভুয়া অনুমোদন সম্বলিত লোগো ব্যবহার করে আসছে। দুদক টিমের অভিযানে এমনটিও উদঘাটিত হয়।

পরবর্তীতে টিম বিএসটিআই কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে জানতে পারে, চট্টগ্রাম মহানগরীতে এমন প্রায় অর্ধ শতাধিক অনুমোদনবিহীন ড্রিংকিং ওয়াটার উৎপাদন ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তবে দুদকের অভিযান পরিচালনার খবর শুনে অন্যান্য অবৈধ প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক/ম্যানেজার প্রতিষ্ঠানসমূহ বন্ধ করে দিয়ে পালিয়ে যায়।

অভিযান শেষে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম বিএসটিআইকে অতি দ্রুত অবশিষ্ট অবৈধ ও অনুমোদনবিহীন প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানায়।

এদিকে হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের নিকট হতে অতিরিক্ত বৈদ্যুতিক বিল আদায়ের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। হবিগঞ্জের সহকারী পরিচালক মো. এরশাদ মিয়ার নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানকালে দুদক টিম অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পায়। অফিসে অবস্থানকালে প্রায় ৫০জন সেবাগ্রহীতার মিটার না দেখেই অতিরিক্ত বৈদ্যুতিক বিল নেয়া হয়েছে এমন অনিয়ম দেখতে পায় টিম।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com