শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০১:৫৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
আগুন নেভানোর পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই যশোরের অধিকাংশ হাসপাতাল ও ক্লিনিকে। কালের খবর তাড়াশ উপজেলায় আবারও ধুম পরেছে পাট ধোয়ার। কালের খবর তাড়াশ উপজেলায় মহেশরৌহালী সরকারী প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে দূরর্নীতির আভিযোগ উঠেছে। কালের খবর গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে পালালেন যৌণ হয়রানির অভিযোগে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক সবুর মাষ্টার। কালের খবর পদ্মা সেতুর প্রভাবে যশোরে বিমান যাত্রী কমেছে ৫০ শতাংশ। কালেন খবর জরাজীর্ণ ভবনে ঝুঁকিপূর্ণ পাঠদান, আট শত শিক্ষার্থীর জন্য ৫ শিক্ষক। কালের খবর বাঙালির হৃদয় থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম কোন অপশক্তি মুছে ফেলতে পারবেনা : এম এ সালাম। কালের খবর সাভারে সাংবাদিককে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন সাংবাদিকরা। কালের খবর নেপালের কাঠমান্ডুতে আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিলেন সাংবাদিক এম আই ফারুক আহমেদ। কালের খবর দিঘলিয়ার সেনহাটী মহা শ্মশান ঘাট রক্ষায় স্থানীয় এমপি’র পদক্ষেপ। কালের খবর
বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ! কালের খবর

বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ! কালের খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের খবর :

বিএসটিআইয়ের অনুমোদন নেই, নেই ব্যবসা পরিচালনা করার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র। পরিবেশও অস্বাস্থ্যকর। তারপরও অবাধে গড়ে ওঠা কারখানাগুলো সরবরাহ করছে বিশুদ্ধ পানি! চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে প্রায় অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠান বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করে আসছে।

মঙ্গলবার দুর্নীতি দমন কমিশন চট্টগ্রাম কার্যালয়ের এক অভিযানে এসব তথ্যের সত্যতা মিলেছে। তাৎক্ষণিক অভিযানে এমন অবৈধ চারটি প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ সময় আরো কিছু নামসর্বস্ব বিশুদ্ধ পানি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হয়। তবে সেসব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা আগে থেকে খবর পেয়ে পালিয়ে যান।

সিলগালা করা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- কে. এফ এন্টারপ্রাইজ, এ. জেড এন্টারপ্রাইজ (পানির নাম : ডিউ ড্রপ), অহি ইন্টারন্যাশনাল ও স্মার্ট ড্রিংকিং ওয়াটার, অজিফা ফুড এন্ড বেভারেজ।

দুদক জানায়, চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধ ড্রিংকিং ওয়াটার উৎপাদন ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুদকের চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয় অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানকালে টিম দেখতে পায়, প্রতিষ্ঠানসমূহের কোনটিরই বিএসটিআই অনুমোদন এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই। এছাড়া কারখানাগুলোর পরিবেশ খুবই অস্বাস্থ্যকর। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান অবৈধভাবে বিএসটিআইয়ের ভুয়া অনুমোদন সম্বলিত লোগো ব্যবহার করে আসছে। দুদক টিমের অভিযানে এমনটিও উদঘাটিত হয়।

পরবর্তীতে টিম বিএসটিআই কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে জানতে পারে, চট্টগ্রাম মহানগরীতে এমন প্রায় অর্ধ শতাধিক অনুমোদনবিহীন ড্রিংকিং ওয়াটার উৎপাদন ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তবে দুদকের অভিযান পরিচালনার খবর শুনে অন্যান্য অবৈধ প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিক/ম্যানেজার প্রতিষ্ঠানসমূহ বন্ধ করে দিয়ে পালিয়ে যায়।

অভিযান শেষে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম বিএসটিআইকে অতি দ্রুত অবশিষ্ট অবৈধ ও অনুমোদনবিহীন প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানায়।

এদিকে হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের নিকট হতে অতিরিক্ত বৈদ্যুতিক বিল আদায়ের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। হবিগঞ্জের সহকারী পরিচালক মো. এরশাদ মিয়ার নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানকালে দুদক টিম অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পায়। অফিসে অবস্থানকালে প্রায় ৫০জন সেবাগ্রহীতার মিটার না দেখেই অতিরিক্ত বৈদ্যুতিক বিল নেয়া হয়েছে এমন অনিয়ম দেখতে পায় টিম।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com