শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৩:৪৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
জগন্নাথপুর বন্যার প্রভাবে হাটভর্তি গরু, ক্রেতা কম !! কালের খবর রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানিতে মরে গেলো ৩ লাখ টাকার মাছ : অসুস্থ অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা। কালের খবর মুরাদনগরে  দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক  বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত। কালের খবর বাঘারপাড়ায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অর্থায়নে এক,শত শিক্ষার্থী কে বাইসাইকেল প্রদান। কালের খবর পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমিদস্যু হাতে থেকে রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন জগন্নাথপুরে রেমিটেন্স যোদ্ধার মৃত্যু এলাকায় শোকের ছায়া, জানাযা সম্পন্ন। কালের খবর সাইবার অপরাধ দমন ও অপপ্রচার ঠেকাতে একটি আলাদা ‘সাইবার পুলিশ ইউনিট’ হবে : সংসদে প্রধানমন্ত্রী রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন। কালের খবর ইউপি চেয়ারম্যান পিতার এক ছেলে এমপি আরেক ছেলে উপজেলা চেয়ারম্যান। কালের খবর ঢাকা প্রেস ক্লাবের স্থায়ী সদস্য এম নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক। কালের খবর
নবীনগরে মুজিববর্ষে গৃহহীনদের গৃহ নির্মান প্রকল্প শেষ পর্যায়ে, গৃহহীন সুবিধাভোগীরা মহাখুশি। কালের খবর

নবীনগরে মুজিববর্ষে গৃহহীনদের গৃহ নির্মান প্রকল্প শেষ পর্যায়ে, গৃহহীন সুবিধাভোগীরা মহাখুশি। কালের খবর

নবীনগর (ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি, কালের খবর :  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়নের শাহবাজপুর গ্রামে মুজিববর্ষে গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ‘গৃহনির্মাণ’ প্রকল্পের ২০টি ঘরের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে হওয়ায় গৃহহীন সুবিধাভোগীরা মহাখুশি। ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় গৃহহীনদের জন্য নবীনগর উপজেলার সাতটি এলাকায় মোট ৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে মোট ৪৮৫টি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রতিটি ঘরের ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। দুইটি বেড রুম, একটি কিচেন, একটি টয়েলেট ও একটি বারান্দাসহ একটি গৃহ ভূমিহীনদের জন্য তৈরি করছেন সরকার প্রধান। এ প্রকল্পের ঘর দেখাশুনা করছেন স্বয়ং স্থানীয় সাংসদ এবাদুল করিম বুলবুল ও উপজেলা প্রশাসন। তবে সরকারের এই মহৎ উদ্যোগ নিয়েও একটি মহল বিতর্কিত ও বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্ঠা করছে।
গতকাল শনিবার(১০/০৪) উক্ত প্রকল্পগুলো একটি প্রজেক্ট উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়নের শাহবাজপুর গ্রামে ২০ গৃহহীন পরিবারের জন্য তৈরী হওয়ার প্রকল্প স্থান ঘুরে দেখা যায়, প্রকল্পের কাজও শেষ পর্যায়ে এখন ফিনিসিং ও টুকিটাকি ক্রুটি সংশোধনের কাজ চলছে,এরপর রং করে গৃহহীনদের ঘরে উঠার উপযুক্ত করে তুলা হবে। কথা হয় উক্ত প্রকল্পের সুবিধাভোগী গৃহহীন ইউসুফ মিয়া,চান মিয়ার স্ত্রী হাফেজা বেগম,মুন্তাজ মিয়ার স্ত্রী রেজিয়া খাতুন, এশু মিয়া, আলমগীর মিযার স্ত্রী সুরাইয়া বেগম, মনু বেগম টাকা পয়সা ছাড়া জমিসহ এই ঘর পেয়ে অত্যন্ত খুশি। তারা বলেন, শেখের বেটিকে ধন্যবাদ গরীবদের কথা স্বরণ করে মাথাগোজার ঠাই দিয়েছেন,এতদিন পরের বাড়িতে ছিলাম এবার নিজের বাড়ি হলো।
কথা হয়, প্রকল্পের নির্মান কাজের রাজমেন্ত্রী শ্রমিক শরিফ উদ্দিন ও নূরু মিয়ার সাথে তারা বলেন, সরকারি ইঞ্জিনিয়ার স্যারদের নির্দেশনায় আমরা কাজ করছি,এখানে আমাদের উপর কোন চাপ নেই,কোন অনিয়ম হচ্ছে না। শাহবাজপুর এলাকার মুরুব্বি মোহাম্মদ নসু মিয়া বলেন, এখানে খুব সুন্দর কাজ হচ্ছে,আমি এই পাশের মসজিদ দেখবাল করি, সেই সুত্রে প্রতিদিনই এখানে আসি এবং তাদের কাজ দেখি।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, প্রকল্পের কাজ চলমান,এখনো শেষ হয়নি আমারা আমাদের ডিজাইনের নিদের্শনা অনুযায়ী কাজ করছি, নির্মান শ্রমিকরা বিল্ডিং-এ ফিনিসিং কাজ করছে, আশা করছি কিছুদিনের মধ্যে তাদের ঘরে উঠাতে পারবো।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একরামূল ছিদ্দিক বলেন, গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহারের‘গৃহনির্মাণ’ প্রকল্পে কাজগুলো সার্বক্ষনিক তদারকিতে রাখছি।
শাহবাজপুর ‘গৃহনির্মাণ’ প্রকল্প বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে সাংসদ বলেন, একশ্রেনীর স্বার্থবাদী কুচক্রীমহল সরকারের এই মহৎকাজটিকে ব্যক্তি আক্রোশে বিতর্কিত করতে উঠে পড়ে লেগেছে। ইতিপূর্বেও বিটঘরে সরকারি খাস জায়গায় গৃহনির্মাণে বাধাঁ দেওয়া হয়েছিল। এই প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com