শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৩:১২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
আগুন নেভানোর পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই যশোরের অধিকাংশ হাসপাতাল ও ক্লিনিকে। কালের খবর তাড়াশ উপজেলায় আবারও ধুম পরেছে পাট ধোয়ার। কালের খবর তাড়াশ উপজেলায় মহেশরৌহালী সরকারী প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ে দূরর্নীতির আভিযোগ উঠেছে। কালের খবর গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে পালালেন যৌণ হয়রানির অভিযোগে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক সবুর মাষ্টার। কালের খবর পদ্মা সেতুর প্রভাবে যশোরে বিমান যাত্রী কমেছে ৫০ শতাংশ। কালেন খবর জরাজীর্ণ ভবনে ঝুঁকিপূর্ণ পাঠদান, আট শত শিক্ষার্থীর জন্য ৫ শিক্ষক। কালের খবর বাঙালির হৃদয় থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম কোন অপশক্তি মুছে ফেলতে পারবেনা : এম এ সালাম। কালের খবর সাভারে সাংবাদিককে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন সাংবাদিকরা। কালের খবর নেপালের কাঠমান্ডুতে আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলনে যোগ দিলেন সাংবাদিক এম আই ফারুক আহমেদ। কালের খবর দিঘলিয়ার সেনহাটী মহা শ্মশান ঘাট রক্ষায় স্থানীয় এমপি’র পদক্ষেপ। কালের খবর
মামলা থেকে নাম কাটানোর কথা বলে ঘুষ দাবি মোহাম্মদপুর থানার দুই পুলিশ প্রত্যাহার। কালের খবর

মামলা থেকে নাম কাটানোর কথা বলে ঘুষ দাবি মোহাম্মদপুর থানার দুই পুলিশ প্রত্যাহার। কালের খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের খবর :

নামের মিলে অন্য ব্যক্তিকে থানায় ধরে আনা ও পরে মামলা থেকে নাম কাটানোর কথা বলে ঘুষ দাবি করায় মোহাম্মদপুর থানার এক এসআই ও এক এএসআইকে গতকাল সোমবার প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা হয়েছে। তারা হলেন এসআই আলমগীর হোসেন ও এএসআই জাকারিয়া। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ওয়াহিদুল ইসলাম।

তিনি কালের খবরকে  বলেন, মোহাম্মদপুরে কামাল নামে পরোয়ানাভুক্ত এক আসামি ছিলেন।

এসআই আলমগীর নাম ও বাবার নামের মিলের কারণে মোটর মেকানিক মো. কামাল হোসেনকে থানায় নিয়ে আসেন। পরে থানায় ওই ব্যক্তি পরোয়ানাভুক্ত কামাল নন প্রমাণ দেওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে এএসআই জাকারিয়া ও এসআই আলমগীর আটক করা কামালকে মামলা থেকে নাম কাটানোর কথা বলে ঘুষ দাবি করেন। এমন অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি তদন্ত করে ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগ। তদন্তে ঘুষ লেনদেন না হলেও ঘুষ দাবির প্রমাণ পাওয়া যায়। যার পরিপ্রেক্ষিতে এসআই আলমগীর ও এএসআই জাকারিয়াকে সোমবার সকাল থেকে থানার কার্যক্রম থেকে প্রত্যাহার করে ডিএমপিতে সংযুক্ত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়াসহ বিধি অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
কামাল কালের খবরকে  বলেন, তিনি মোটরসাইকেল গ্যারেজে কাজ করেন। কয়েক দিন আগে মোহাম্মদপুর থানার এএসআই জাকারিয়া তাকে আটক করে থানায় নেয়।

সেখানে ২০০৯ সালের একটি মামলায় তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকার কথা জানায়। থানায় গিয়ে দেখা যায় নাম ও বাবার নাম মিললেও বয়স মিলছে না। পরে ওসি মুচলেকা রেখে তাকে ছেড়ে দেয়। গত রবিবার মোহাম্মদপুর থানার এসআই আলমগীর তাকে ডেকে মামলা থেকে নাম কাটানোর কথা বলে কিছু টাকা দাবি করে। বিষয়টি একজন সাংবাদিকের মাধ্যমে জানার পর ডিএমপির তেজগাঁও ডিসি অফিসে ডেকে তার জবানবন্দি নিয়েছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com