সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
প্রথম ধাপের ১৬১ ইউপি নির্বাচনের প্রচারণা শেষ। কালের খবর যশোরে গ্রাম ডাক্তার কল্যান সমিতির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর শিক্ষামন্ত্রীর অনুষ্ঠানে হট্টগোল : মন্ত্রী চলে যাওয়ার পর রাগ উগড়ে দিলেন এমপি মনু। কালের খবর বীর মুক্তিযোদ্ধা ছাত্রনেতা শাহাজুল আলমের ৪৬তম মৃত্যার্ষিকী। কালের খবর মানিকগঞ্জে ব্যবসায়ীকে মারধর, দোকানপাট বন্ধ রেখে ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদ। কালের খবর পুলিশ চাইলে সব পারে- দুই ঘন্টায় হারানো মোবাইলসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র উদ্ধার। কালের খবর সখীপুরে টিনের বেড়া কেটে দোকানের মালামাল লুট। কালের খবর অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদে অনুষ্ঠান বর্জন সাংবাদিকদের। কালের খবর সিরাজগঞ্জে চলনবিলে শামুক-ঝিনুক নিধন করছে অসৎ ব‍্যবসায়ীরা। কালের খবর। মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ইউপি চেয়ারম্যনের বিরুদ্ধে নারীকে ধর্ষন ও গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ। কালের খবর
খননকৃত কপোতাক্ষ ফের পলি জমে ভরাট। কালের খবর

খননকৃত কপোতাক্ষ ফের পলি জমে ভরাট। কালের খবর

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি, কালের খবর :

খননকৃত কপোতাক্ষ ফের পলি ভরাট হয়ে পড়ছে। এর ফলে আবারও মরণদশার মুখে পড়ছে ৯০ কিলোমিাটর দীর্ঘ এ নদ। সঠিক সময়ে কপোতাক্ষর তালা উপজেলার পাখিমারা বিলের টিআরএম প্রকল্পে ক্রসড্যাম না দেওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। কপোতাক্ষ অববাহিকার প্রায় ২৫ লাখ জনগোষ্ঠী আবারও ভয়াবহ জলাবদ্ধতার শিকার হতে পারেন বলে তারা আশংকা করছেন।

সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানান কেন্দ্রীয় পানি কমিটির কর্মকর্তারা। তারা বলেন, ২৬২ কোটি টাকা ব্যয়ে কপোতাক্ষ খননের পর ২০১৭ সালে তালার পাখিমারা বিলে চালু করা হয় টিআরএম ( টাইডাল রিভার ম্যানেজমেন্ট, জোয়ারাধার) প্রকল্প। নিয়ম অনুযায়ী কপোতাক্ষে ভেসে আসা পলি পাখিমারা বিলে অবক্ষেপিত হয়।

এতে নদী যেমন সচল থাকে তেমনি বিলসমূহ পলিমাটি ভরাট হয়ে চাষযোগ্য হয়ে ওঠে।
সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, গত বছর ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ক্রসড্যাম নির্মাণ করা হলেও এ বছর ৬৪ লাখ টাকা বরাদ্দ পেলেও কোনো কাজ হয়নি। ফলে কপোতাক্ষে পলি জমতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে নদের এক তৃতীয়াংশ পলিতে ভরাট হয়ে গেছে। বর্ষা মওসুমে তা আরও জটিল আকার ধারন করবে বলে জানান তারা। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কপোতাক্ষর পাখিমারা টিআরএম প্রকল্পে ক্রসড্যাম নির্মানের দাবি জানিয়েছেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান কেন্দ্রীয় পানি কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম। এ সময় তালা উপজেলা পানি কমিটির সভাপতি ময়নুল হোসেন, সেক্রেটারি মীর জিল্লুর রহমান, ডেপুটি কমান্ডার আলাউদ্দিন জোয়ারদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে তারা পানিসম্পদ মন্ত্রী বরাবর তিন দফা দাবি সংবলিত এক স্মারকলিপি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রদান করেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com