মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
জাতিসংঘে এবারও বাংলায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর প্রথম ধাপের ১৬১ ইউপি নির্বাচনের প্রচারণা শেষ। কালের খবর যশোরে গ্রাম ডাক্তার কল্যান সমিতির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর শিক্ষামন্ত্রীর অনুষ্ঠানে হট্টগোল : মন্ত্রী চলে যাওয়ার পর রাগ উগড়ে দিলেন এমপি মনু। কালের খবর বীর মুক্তিযোদ্ধা ছাত্রনেতা শাহাজুল আলমের ৪৬তম মৃত্যার্ষিকী। কালের খবর মানিকগঞ্জে ব্যবসায়ীকে মারধর, দোকানপাট বন্ধ রেখে ব্যবসায়ীদের প্রতিবাদ। কালের খবর পুলিশ চাইলে সব পারে- দুই ঘন্টায় হারানো মোবাইলসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র উদ্ধার। কালের খবর সখীপুরে টিনের বেড়া কেটে দোকানের মালামাল লুট। কালের খবর অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদে অনুষ্ঠান বর্জন সাংবাদিকদের। কালের খবর সিরাজগঞ্জে চলনবিলে শামুক-ঝিনুক নিধন করছে অসৎ ব‍্যবসায়ীরা। কালের খবর।
নগ্ন করে মা-মেয়েকে রাস্তায় হাঁটাল গ্রামবাসী

নগ্ন করে মা-মেয়েকে রাস্তায় হাঁটাল গ্রামবাসী

কালের খবর ডেস্ক :

ভারতের উত্তর ঝাড়খণ্ড রাজ্যে ডাকিনী বিদ্যাচর্চার অভিযোগে দুই নারীকে হেনস্তা করার দায়ে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
৬৫ বছর বয়সী ওই নারী ও তার কন্যাকে নগ্ন করে রাস্তায় হাঁটানো হয়। তাদের মানুষের বিষ্ঠা খেতে বাধ্য করা হয়েছে।
হেনস্তার শিকার কন্যা বলেন, গ্রামবাসী তাদের বিরুদ্ধে রোগ ছড়ানোর অভিযোগ এনেছেন।
ডাকিনী বিদ্যাচর্চার অভিযোগে ভারতে প্রায় নারীদের হেনস্তা কিংবা হত্যার শিকার হতে হচ্ছে।
বিশেষজ্ঞরা বলেন, এই হামলার পেছনে কুসংস্কারাচ্ছন্ন বিশ্বাস কাজ করছে। কিন্তু কখনও কখনও বিধবা নারীদের তাদের বসতবাড়ি থেকে বিতাড়িত করতে এ হামলা চালানো হয়।
ওই নারী বলেন, বৃহস্পতিবার তার প্রতিবেশীরা হঠাৎ করে তাদের দরজায় জোরে ধাক্কা দিতে শুরু করে। তারা বলছেন- আমরা নাকি ডাকিনী বিদ্যাচর্চা করছি।
পরিবারের এক সদস্যের মৃত্যুর পর ওই নারী স্থানীয় হাতুড়ে ডাক্টারের কাছে চিকিৎসা নিতে গিয়েছিলেন। পরিবারের সদস্যদের মৃত্যুর জন্য ওই ডাক্টার তাদের দায়ী করেন।
মেয়েটি বলেন, পরের দিন গ্রামবাসী আমাদের শাস্তি দিয়েছে। ডাকিনী বিদ্যাচর্চার কথা আমরা অস্বীকার করার পরও আমাদের জোর করে দাহ করার জায়গা নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে লোকজন আমাদের মুখের ওপর মলমূত্র ত্যাগ করে এবং সেগুলো খেতে আমাদের বাধ্য করে।
এর পর তাদের চুল কেটে নগ্ন করে গ্রামজুড়ে হাঁটানো হয়েছে। তখন তাদের পিছু পিছু গ্রামবাসীরাও হাঁটছিলেন।
তারা বলেন, আমরা ব্যাপক ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু কেউ আমাদের সাহায্যে এগিয়ে আসেননি।

কালের খবর/২০/২/১৮

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com