বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০১:৩২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নড়বড়ে সাঁকোতে হাজারও মানুষের পারাপার তাড়াশ উপজেলার গ্রামগুলোতে বিদ্যুতের লোডশেডিং ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বাংলাদেশী তৈরি টুটু পিস্তল, চাইনিজ কুড়াল ৫০০ গ্রাম গাঁজা সহ কিশোর গ্যাং এর ৪ সদস্য গ্রেফতার। কালের খবর যুবদলের দোষ আওয়ামী লীগের উপর চাপিয়ে বিবৃতির প্রতিবাদ। কালেন খবর সালিশে চুলের মুঠি ধরে মহিলাকে প্রকাশ্যে মারধর ভিডিও ভাইরাল ডিইউজে(একাংশ) সভায় নারী সাংবাদিককে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ। কালের খবর নবীনগরের সলিমগঞ্জে অবৈধ স্বর্ণ বেচাকেনার বৈধ হাট । কালের খবর প্রায় ৩ বছর পর মোরেলগঞ্জে উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন। কালের খবর আখাউড়ায় আইনমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ঝাড়ু মিছিল। কালের খবর বোয়ালমারীতে যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত আনিসুজ্জামানের মতবিনিময়। কালের খবর
চট্টগ্রামে প্রতিপক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি হামলায় আহত ১

চট্টগ্রামে প্রতিপক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি হামলায় আহত ১

মোঃ শহিদুল ইসলামসি, নিয়র স্টাফ রিপোর্টারঃ

চট্টগ্রামের চান্দগাঁও খাজারোড পাক্কা দোকানে জমি-জমা
সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ১ জন আহত হয়েছেন।
ঘটনাটি ঘটেছে, গত শনিবার সকালে চট্টগ্রামের চান্দগাঁও খাজারোড ৬ নং
ওয়ার্ডের পাক্কা দোকানের নিলার বাড়ীতে। জানা গেছে, ওই ৬ নং ওয়ার্ডের
পাক্কা দোকানে মো. ওসমান (৫২) মৌরশী সূত্রে মালিক হয়ে ভোগ দখলে রত আছে।
তার নামে বিএস নামজারী খতিয়ান রয়েছে এবং নিয়মিত খাজনা পরিশোধ করে আসছে।
গত ২০২২ সালের ৫ এপ্রিল সকালের দিকে চান্দগাঁও খাজারোড ৬ নং ওয়ার্ডের
সাবানঘাটা ভোজার বাড়ীর মৃত আবদুর রশিদের পুত্র পিয়ার মুহাম্মদ (৫৫),
পিয়ার মুহাম্মদ’র পুত্র মো. আজাদ (৩০), আরেক পুত্র মো. আরাফাত (২৬),
বিরোধীয় জমিটির জাল কাগজ পত্র করে নিজের দাবি করে ৬/ ৭ জন শ্রমিক নিয়ে
দখল করতে যায়। এ সময় মো: ওসমান জানান এ ভূমিতে আদালতের ১৪৫ ধারা জারী
আছে, প্রতিপক্ষ ১৪৫ ধারা আমরা মানি না বলে পিয়ার মুহাম্মদ ও তার লোকজন
লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা করে। এতে মো: ওসমান (৫২) গুরুতর আহত হন। গুরুতর আহত
মো. ওসমানকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি
হাসপাতালে ২০২২ সালের ৫ এপ্রিল থেকে ৭ এপ্রিল পর্যন্ত ২৬ নং ওয়ার্ডে
চিকিৎসাধীন ছিলেন। এ ব্যাপারে চান্দগাঁও থানায় ২০২২ সালের ২১ এপ্রিল একটি
অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ পিয়ার মুহাম্মদের নিকট
জানতে চাইলে তিনি জানান, জায়গাটি আমার, মো. ওসমান জায়গা পাবে প্রমাণ করতে
পারলে তার জায়গাটি তাকে দিয়ে দেবো। শুধুমাত্র ক্ষমতা দিয়ে আমাকে হয়রাণী
করছে। উল্লেখ্য, চান্দগাঁও সার্কেলের কানুনগো মো. নাজমুল হাসানের
স্বাক্ষরিত প্রতিবেদনের ছকে প্রতিপক্ষ আরসিসি পিলার তৈরী পূর্বক পাকা
বিল্ডিং নির্মাণের ৭ টি বেইচ করেছেন মর্মে ভূমি দখলে উল্লেখ করেছেন।
সরেজমিনে তদন্ত করে কোন পিলার ও বেইচের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি এবং বিরোধীয়
জমিটি প্রতিপক্ষের দখলেও নাই।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com