বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৪১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বাহারের নিয়ন্ত্রণে কুমিল্লার রাজনীতি। কালের খবর ব্রয়লারের চেয়ে চাহিদা বেশি বাউ মুরগির, খুশি খামারিরা। কালের খবর বাঘারপাড়ায় শান্তি স্থাপন ও সহিংসতা নিরসনে (PFG) কমিটি গঠন”। কালের খবর গাছে গাছে আমের মুকুল, মৌ মৌ ঘ্রাণে ব্যকুল মানুষ। কালের খবর নির্মাণ শ্রমিকদের কর্মস্থলে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানাল ইনসাব। কালের খবর ভাষা দিবস পদক প্রদান গুণীজন সম্মাননা ও লেখক সম্মেলন ২০২৪। কালের খবর মুরাদনগরে কৃষি কার্যক্রম পরিদর্শনে মার্কিন দূতাবাস প্রতিনিধি। কালের খবর কুষ্টিয়ায় বাজার থেকে ক্রয় করা মাংসে মিলল পুরুষাঙ্গ ! কালের খবর চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে অতিথি ডটকমের জমকালো ডায়মন্ড সেলিব্রেশন প্রোগ্রাম। কালের খবর শাহজাদপুরে সরিষা আনতে মাঠে যাচ্ছিলেন হাবিব, হঠাৎ বজ্রপাত। কালের খবর
মাধবদীর পাইকারচরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ইউপি সচিব সহ আহত ৪। কালের খবর

মাধবদীর পাইকারচরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ইউপি সচিব সহ আহত ৪। কালের খবর

এম আর মাইনউদ্দীন, মাধবদী, নরসিংদী, কালের খবর : মাধবদীর পাইকারচর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের অভিযোগ পাওয়া গেভছে। পাইকারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাশেম এবং পাইকারচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াৎ হোসেন শওকত মিয়ার সমর্থকদের মধ্যে গতকাল ২৮ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১২ঃ৩০ ঘটিকায় বালাপুর নবিন চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রিড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠান চলাকালীন সময় স্কুলের বাহিরে এ সংঘর্ষ ঘটে।

পাইকারচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল হাশেম সাংবাদিকদের জানান,ফেসবুকের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বালাপুরের আলীর ছেলে সোহাগ (২০) আমার এক সমর্থক কে মারধর করে। পরে আমি বিষয়টি মিমাংসার জন্য স্কুলের পরিচালনা পরিষদের সদস্য করিম মেম্বার কে দায়িত্ব দেই। সাখাওয়াৎ হোসেন শওকত ও আলীর লোকজন স্কুলের অনুষ্ঠানে আমার সমর্থকদের উপর দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
তাদের লোকজন স্কুলের গেটে আঘাত করে এবং ইউনিয়ন পরিষদ ভাংচুর করে আমার লোকজনদের আহত করে। আহতরা হলো দেলোয়ার (৩০),আরিফ (২৭) গ্রাম পুলিশ আরমান (৩২) ইউনিয়ন পরিষদের সচিব শাহাদাত (৪৮)। পরে মাধবদী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয় । আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। এলাকাবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে আমি ইটা খোলা বন্ধে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে অবহিত করার কারণেই তারা আমার উপর ক্ষিপ্ত।
অন্যদিকে অভিযুক্ত শওকত বলেন, চেয়ারম্যানের অভিযোগ সত্য নয় এবং আমরা এ ঘটনার সাথে জড়িত নই বরং তিনি ও তার লোকজন আমাদের কে ফাসাতেই এমনটা করতে পারেন বলেই আমাদের ধারণা। চেয়ারম্যানের লোকজনই আমার কারখানায় হামলা চালিয়েছে।
আলী আহম্মেদ বলেন, চেয়ারম্যানের লোকজন আমাদের বাড়ি-ঘরে হামলার প্রস্তুতি নিলে আতঙ্কে আমি ও আমার ছেলে ঘরে অবস্থান করি।
পুলিশ জানায়, দু’পক্ষই শান্ত আছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঘটনা স্থলে পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।
এ ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com