বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০২:০৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নড়বড়ে সাঁকোতে হাজারও মানুষের পারাপার তাড়াশ উপজেলার গ্রামগুলোতে বিদ্যুতের লোডশেডিং ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বাংলাদেশী তৈরি টুটু পিস্তল, চাইনিজ কুড়াল ৫০০ গ্রাম গাঁজা সহ কিশোর গ্যাং এর ৪ সদস্য গ্রেফতার। কালের খবর যুবদলের দোষ আওয়ামী লীগের উপর চাপিয়ে বিবৃতির প্রতিবাদ। কালেন খবর সালিশে চুলের মুঠি ধরে মহিলাকে প্রকাশ্যে মারধর ভিডিও ভাইরাল ডিইউজে(একাংশ) সভায় নারী সাংবাদিককে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ। কালের খবর নবীনগরের সলিমগঞ্জে অবৈধ স্বর্ণ বেচাকেনার বৈধ হাট । কালের খবর প্রায় ৩ বছর পর মোরেলগঞ্জে উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন। কালের খবর আখাউড়ায় আইনমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ঝাড়ু মিছিল। কালের খবর বোয়ালমারীতে যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত আনিসুজ্জামানের মতবিনিময়। কালের খবর
ভবন মালিক আনোয়ার মৃধার নির্দেশে রাকিবকে হত্যা করা হয়, অভিযোগ স্ত্রীর

ভবন মালিক আনোয়ার মৃধার নির্দেশে রাকিবকে হত্যা করা হয়, অভিযোগ স্ত্রীর

রাজধানীর ডেমরায় চোর সন্দেহে রাকিব রহমান (৩৫) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ৮ জনসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন তার স্ত্রী মোছা. মুন্নি।
চাঞ্চল্যকর রাকিব হত্যার ঘটনায় আটক শাহিন মিয়া (২৫) ও নাজমুল (২১) নামের দুজনকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রোববার দুপুরে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।
গত ১৭ জুন দিবাগত রাত ১২টার দিকে মামলাটি দায়ের করা হয়। ওইদিন সকালে বাদশা মিয়া রোডের ৬নং গলির স্যাটেলাইট গার্ডেন-২ এর সামনে রাস্তার রাকিবকে পিটিয়ে ও মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে হত্যা করা হয়েছে বলে ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে গ্রেফতাররা।

গ্রেফতার শাহীন কুড়িগ্রামের গছাকাটা থানার নয়ানা গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে ও নাজমুল একই এলাকার সাহেবের ঘাস গ্রামের মফিজুল ইসলামের ছেলে। তারা ডেমরায় বাদশা মিয়া রোড এলাকায় বসবাস করতেন। অন্যান্য আসামিরা হলেন- বাদশা মিয়া রোডের ৬নং গলির স্যাটেলাইট গার্ডেনের বিল্লাল হোসেনের ছেলে মো. সাদ্দাম (৩০), ওই ভবনের কেয়ারটেকার আশিক (৩০), সহযোগী মো. শফিকুল (২৬), আজিজার (২৬) ও লেবার ঠিকাদার সোহাগ (৩০)।

ডেমরা থানার পরিদর্শক (অপারেশন) সুব্রত কুমার পোদ্দার বলেন, ‘তদন্ত সাপেক্ষে আমরা জানতে পারি যে নিহত রাকিব কোথাও চুরি করতে গিয়ে মানুষের সামনে পড়লে ইউসুফ নামের এক ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে বলেন তাকে চিনতে পারেন কি না। এদিকে রাকিব গত ৩ জুন রাতে ওই ভবন থেকে একটি মোবাইল চুরি করে আনেন যার ভিডিও সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা রয়েছে। ওই ভিডিও দেখেই ভবন সংশ্লিষ্ট আসামিরা রাকিবকে শনাক্ত করে। কাকতালীয়ভাবে গত ১৭ জুন ভোরে বাদশা মিয়া রোড এলাকায় একই শার্ট পরে গেলে আসামিরা রাকিবকে চিনে ফেলে। এ সময় ওই জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে ইট ছুড়ে মেরে কৌশলে রাকিব পালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। ওই সময় তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।’

শিগগিরই অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতার করা হবে বলে জানান সুব্রত কুমার।

এদিকে রাকিবের স্ত্রী মোছা. মুন্নি বলেন, ‘বাদশা মিয়া রোডের ৬নং গলির স্যাটেলাইট গার্ডেন-২ ভবনের মালিক আনোয়ার মৃধার নির্দেশেই রাকিবকে হত্যা করা হয়েছে। তাকে আমরা মামলার প্রধান আসামি করতে চেয়েছি, কিন্তু পুলিশ তাকে আসামি করেনি। আনোয়ার মৃধার পক্ষ থেকে আমাকে অনেক টাকার লোভ দেখানো হয়েছে মামলা না করার জন্য। কিন্তু আমি আমার স্বামী হত্যার সঠিক বিচার চাই।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com