শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
দৈনিক কালবেলার সম্পাদক হলেন আবেদ খান তাড়াশ উপজেলায় ঐতিহ্যবাহি প্রাচীনতম নওগাঁর পশুর হাট জম জমাট ভাবে জমে উঠেছে। কালের খবর খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতির মৃত্যুতে বিএমএসএফ’র শোক। কালের খবর কদমতলীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে স্থাপনা নির্মাণ ও হামলা পুলিশ নীরব পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ব‍্যস্ত সময় পার করেছে তাড়াশ উপজেলার কামাররা। কালের খবর রাজনগরে চাঁদা না দেওয়ায় প্রবাসীর পিতা গৃহবন্দি। কালের খবর ছাই হওয়া স্বপ্ন গড়লেন লাগালেন এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন’। কালের খবর বাঘারপাড়ায়-পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আনন্দে এলাকাবাসী কে মিষ্টি খাওয়ালো (চায়ের দোকানদার) মারজোন মোল্লা। কালের খবর কানাইঘাটে বিএমএসএফ ও রেড ক্রিসেন্টের যৌথ উদ্যোগে বন্যার্তদের ফ্রি চিকিৎসাসহ ঔষধ বিতরণ। কালের খবর সরকার সারা দেশে যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়ন করছে : প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর
গোপালগঞ্জে এলপি গ্যাসের বাজারে নৈরাজ্য

গোপালগঞ্জে এলপি গ্যাসের বাজারে নৈরাজ্য

গোপালগঞ্জে এলপি গ্যাসের বাজারে নৈরাজ্য

গোপালগঞ্জে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রি হচ্ছে না তরল পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি) সিলিন্ডার। এখানে অতিরিক্তি দামে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি হচ্ছে। এলপি গ্যাসের বাজারে চলছে নৈরাজ্য। এর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে ব্যবহারকারী সাধারণ মানুষের ওপর। ডিলাররা বলছেন বাড়তি দামে ক্রয় করে বেশি দামে বিক্রি করেত হচ্ছে। বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেশন কমিশন (বিইআরসি) এলপি গ্যাসের মূল্য নির্ধারণ করে দিলেও বিক্রি হচ্ছে না সেই দামে। বিইআরসি জুলাই মাসের শুরু থেকে ১২ কেজি তরল পেট্রোলিয়াম (এলপিজি) গ্যাসের দাম সিলিন্ডার প্রতি ৪৯ টাকা বাড়িয়ে ৮৯১ টাকা নির্ধারণ করেছে। গোপালগঞ্জের কোথাও এই দামে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার মিলছে না।
গোপালগঞ্জের খুচরা বাজারে ১২ কেজির এলপি গ্যাসের সিলিন্ডার বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৫০ টাকা থেকে ১ হাজার ১শ টাকা দামে।
গোপালগঞ্জ শহরের পুরাতন বাজার রোডের বাসিন্দা পলাশ রায় বলেন, ১০ দিন আগে ১২ কেজির ১ সিলিন্ডার এলপি গ্যাস ৯২০ টাকা দিয়ে কিনেছিলাম। সেই গ্যাস এখন ১ হাজার ১শ টাকা দিয়ে কিনলাম। বিইআরসি নির্ধারিত মূল্যে কোথাও গ্যাস বিক্রি হচ্ছে। তিনি গ্যাসের বাজারের নৈরাজ্য বন্ধের দাবি জানান।
শহরের মিয়াপাড়ার বাসিন্দা মিজানুর রহমান সুমন বলেন, সরকার গ্যাসের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে। সে দামে গ্যাস মিলছেনা। আমাদের এখানে ১ হাজার ৫০ থেকে ১ হাজার ১শ টাকা দিয়ে গ্যাস কিনতে হচ্ছে। দোকানদাররা যে দামে বিক্রি করছে, সেই দামেই আমাদের গ্যাস কিনতে হচ্ছে। গ্যাসের বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের একটু নজর দেয়া দরকার ।
শহরের খুচরা গ্যাস বিক্রেতা শারমিন ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের মালিক মো. রাসেল বলেন, আমরা ডিলারের কাছ থেকে ১ হাজার ১০ টাকা দরে প্রতি সিলিন্ডার গ্যাস ক্রয় করছি। ১ টি সিলিন্ডার ৩০ থেকে ৪০ টাকা লাভে ১ হাজার ৫০ টাকা দরে বিক্রি করছি। আবার অনেক খুচরা দোকানদার ৮০ থেকে ৯০ টাকা লাভ করে ১ হাজার ১শ টাকায় প্রতি সিলিন্ডার বিক্রি করছেন।
গোপালগঞ্জে এলপি গ্যাসের ডিলার নিপুন প্রযুক্তির ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম বলেন, সরকার প্রতি সিলিন্ডার গ্যাসের দাম ৮৯১ টাকা নির্ধারণ করেছে। এটি আমরা গণমাধ্যমের খবরে শুনেছি। আমাদের বাড়তি দামে গ্যাস কিনে আনতে হচ্ছে। তাই আমরা বেশি দামে গ্যাস বিক্রি করছি। আমরা সরকার নির্ধারিত মূল্যে গ্যাস কিনতে পারলে, আমরাও সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করতে পারবো। গত জুন মাসে ১২ কেজির সিলিন্ডার বিক্রি করেছি ৯২০ টাকায়। জুলাই মাসের শুরুতে সেই গ্যাস বাড়তি দামে কিনে ১ হাজার ১০ টাকায় পাইকারি বিক্রি করছি।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com