শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:২১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ডেমরায় ছাদ বাগানে গাঁজা চাষ, বাবা-ছেলে গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডি জি এম এর অপসারণের দাবিতে সাংবাদিক সমাজের মানববন্ধন। কালের খবর চট্রগ্রামের পতেঙ্গায় ৯ লক্ষ টাকার বিয়ারসহ দুই মাদক কারবারি আটক। কালের খবর কুষ্টিয়ায় ব্রিজের উপর বাঁশের সাঁকো….! কালের খবর বোয়ালমারীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৩ ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে জরিমানা। কালের খবর সখীপুরে আ.লীগের দুই পক্ষের পাল্টা-পাল্টি সমাবেশ, সতর্ক অবস্থানে পুলিশ। কালের খবর মুরাদনগরে জমকালো আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ফাউন্ডেশনের কার্যালয় উদ্বোধন। কালের খবর নবীনগরে নূরজাহানপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৬টি ঘর বিক্রির অভিযোগ। কালের খবর সখীপুরে স্বামী-স্ত্রীর দীর্ঘদিনের কলহের অবসান। কালের খবর এয়ারপোর্টে শুল্ক না দিয়ে বিদেশ থেকে আনা যাবে যে জিনিসগুলো। কালের খবর
পীরগঞ্জে প্রতিবন্ধি ভাতা আত্মসাৎ নয়, এটি ছিল দাপ্তরিক তথ্যগত ভুল। কালের খবর

পীরগঞ্জে প্রতিবন্ধি ভাতা আত্মসাৎ নয়, এটি ছিল দাপ্তরিক তথ্যগত ভুল। কালের খবর

এন এন রানা, পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি, কালের খবর : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে এক প্রতিবন্ধি মহিলার ভাতা আত্মসাতের অভিযোগে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদটির সত্যতা মেলেনি। মূলত এটি ছিল দাপ্তরিক ভুলের ফসল। এই ভুলের বিষয়কে কেন্দ্র করে একটি মহল ঘোলাজলে মাছ শিকারের চেষ্টা করেছেন।
জানা যায় পৌরশহরের রঘুনাথপুর মৌজার শারিরিক প্রতিবন্ধি ফাতেমা বেগম স্বামী মৃত মজিবর রহমান এর প্রতিবন্ধি ভাতা জুলাই/২০ থেকে চালু হয়। এই ভাতা পৌরসভার পক্ষে তালিকাভুক্ত করান মহিলা কাউন্সিলর মোছা. সাহেবা বেগম। ভাতা চালুর প্রাক্কালে সাহেবা বেগম বা সংশ্লিষ্ট যে কেউ ভাতাভোগীর মোবাইল নম্বরের স্থলে কাউন্সিলরের মোবাইল নম্বর দিয়ে দেন ফলে ভাতা’র ১ম কিস্তির ৪৫০০ টাকা কাউন্সিলরের নাম্বারে সেন্ট হয়ে যায়। ১ম কিস্তির টাকা না পাওয়ার পরে সংশ্লিষ্টরা আগের মোবাইল নাম্বার পরিবর্তন করে ভাতাভোগীর প্রকৃত মোবাইল নাম্বার অন্তভুক্ত করেন ফলে এপ্রিল টু জুন এবং অক্টোবর টু ডিসেম্বর/২০ ভাতা’র ৪৫শ’৩০ টাকা ভাতাভোগীর মোবাইল নাম্বারে ঢোকে। এ ব্যাপারে প্রতিবন্ধি ফাতেমা তার ১ম কিিিস্তর টাকা উদ্ধারের জন্য পৌর মেয়র মো: ইকরামুল হক বরাবরে ১২ আগষ্ট লিখিত আবেদন করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা সমাজসেবা অফিসে রক্ষিত প্রাথমিক তথ্যে জানা যায়, টাকাটা ০১৭৯৭৯৩৭০০৪ নম্বরে গত ৩১.০৫.২১ ইং তারিখে সেন্ড হয়। এ বিষয়ে প্রতিপক্ষদের সহায়তায় ভাতা আত্মসাৎ হয়েছে মর্মে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদ প্রকাশের পরে নড়েচড়ে বসেন দায়িত্বশীলরা। পরে বিষয়টি সমাজসেবা কতৃপক্ষ বিকাস সহ উর্দ্ধতন দপ্তরে খোজ খবর নিয়ে জানতে পারেন যে, টাকা সেন্ড হওয়া নাম্বারটির বিকাশ খোলা না থাকায় ১ম কিস্তির টাকা ফেরত হয়েছে। সমাজসেবা বিভাগের ১৯ আগষ্ট দেয়, পে রোল রিকন্সিলিয়েশন প্রতিবেদনে দেখা যায় ভাতাভোগী ফাতেমা বেগমের দেয় মোবাইল নাম্বার ইনভেলিড হওয়ায় কেন্দ্রীয় আইবাস এটিকে রিটার্নাড বা ফেরত রিপোর্ট দেখিয়েছে। অর্থাৎ এই টাকা আত্নসাৎ হয়নি বা কারো নাম্বারে ঢোকেনি বরং তা এখনো ঝুলন্ত রয়েছে।
উপজেলা সমাজসেবা অফিসার এসএম রফিকুল ইসলাম বলেছেন, এটা নিয়ে বিতর্কের কিছু নেই, ভুল হতেই পারে তবে আমি আশা করছি, খুব শিগগীরই ভাতাভোগীর একাউন্টে এই টাকা পেমেন্ট হয়ে যাবে। তাই বিষয়টি দাপ্তরিক ভুল বা তথ্যগত ভুল হিসেবে চিহিৃত হয়েছে।
এ ব্যাপরে পৌরমেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা ইকরামুল হক বলেন, টাকাটা প্রকৃত ভাতাভোগী এখনো পায়নি, তবে যে বা যারাই এ ঘটনার জন্য দায়ি আমি তাদের বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কতৃপক্ষের কাছে জোর দাবী জানাই।

 

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com