বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০২:০৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সম্পত্তি ও জানমালের নিরাপত্তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা। কালের খবর জগন্নাথপুর বন্যার প্রভাবে হাটভর্তি গরু, ক্রেতা কম !! কালের খবর রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানিতে মরে গেলো ৩ লাখ টাকার মাছ : অসুস্থ অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা। কালের খবর মুরাদনগরে  দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক  বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত। কালের খবর বাঘারপাড়ায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অর্থায়নে এক,শত শিক্ষার্থী কে বাইসাইকেল প্রদান। কালের খবর পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমিদস্যু হাতে থেকে রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন জগন্নাথপুরে রেমিটেন্স যোদ্ধার মৃত্যু এলাকায় শোকের ছায়া, জানাযা সম্পন্ন। কালের খবর সাইবার অপরাধ দমন ও অপপ্রচার ঠেকাতে একটি আলাদা ‘সাইবার পুলিশ ইউনিট’ হবে : সংসদে প্রধানমন্ত্রী রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন। কালের খবর ইউপি চেয়ারম্যান পিতার এক ছেলে এমপি আরেক ছেলে উপজেলা চেয়ারম্যান। কালের খবর
ফুলবাড়ীতে খামারে বিষ প্রয়োগে মুরগী নিধনের অভিযোগ। কালের খবর

ফুলবাড়ীতে খামারে বিষ প্রয়োগে মুরগী নিধনের অভিযোগ। কালের খবর

পাভেল মিয়া, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি, কালের খবর : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ার ছড়া গ্রামে ব্রয়লার মুরগীর খামারে বিষ প্রয়োগ করে মুরগী নিধনের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই খামারের মালিক।

উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের বড়ভিটা গ্রামের বাসিন্দা মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে ওই খামারের মালিক মমিনুল হক বাদী হয়ে উপজেলার দাসিয়ারছড়া (কামালপুর) বটতলা গ্রামের বাসিন্দা মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে মোঃআব্দুর ছাত্তার (৫০)তার দুই ছেলে মোঃ কাশেম আলী (২৫)ও মোঃ সাদ্দাম হোসেন(২৮) এবং একই গ্রামের মৃত হাতেম আলীর ছেলে জমির উদ্দিন(৩০) সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে রবিবার রাতে ফুলবাড়ী থানার অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মমিনুল হক প্রায় এক বছর ধরে উপজেলার দাসিয়ার ছড়া গ্রামে তার শ্বশুরের বসতবাড়ি সংলগ্ন খামার দিয়ে ব্রয়লার মুরগী পালন করে আসছেন। বর্তমানে খামারে নতুন করে ১ হাজার মুরগী পালন করছেন। খামার দেয়ার পর থেকেই বিবাদীগন অকারণে বিবাদ সৃষ্টি করিয়া খামার সরিয়ে নিতে বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন ও হুমকি দিতেন। এমনি অবস্থায় তারা গত ৭ আগস্ট রাত অনুমান ১.২০ মিনিটে খামারের মুরগী নিধনের জন্য দানাদার বিষ প্রয়োগ করে। ঐসময় খামার দেখাশুনার দায়িত্বে থাকা বড়ভিটা গ্রামের বাসিন্দা কপুর উদ্দিনের ছেলে খায়রুল ইসলাম (২৪) মুরগীকে খাবার পানি দিতে খামারে গেলে ১নং বিবাদী ছাত্তারসহ আরো ৪/৫ জনকে দৌড়ে পালাতে দেখেন। ওই রাতে ভোর ৫ টার দিকে আবারও খামারে খাবার দিতে গিয়ে দেখেন ১৫/২০ মুরগী মারা গেছে। পরে তিনি খামার মালিক মমিনুলকে মোবাইলে ঘটনাটি জানান। সংবাদ পেয়ে মমিনুল দ্রুত খামারে এসে দেখেন বিষের প্রভাবে ২৫০/২৬০ টি মুরগী মারা গিয়ে আনুমানিক ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও খামারে বিষ প্রয়োগের ফলে আরও আনুমানিক ২লক্ষ ২০ হাজার টাকা মূল্যের মুরগী ঝুঁকিতে রয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।

এবিষয়ে অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজীব কুমার রায় জানান, ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com