বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৫০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যশোর সদর হাসপাতালে দালালদের কাছে জিম্মি রোগীরা। কালের খবর উৎপাদনে নতুন ‘দেশি মুরগি’, ৮ সপ্তাহে হবে এক কেজি। কালের খবর ইউপি নির্বাচনে শাহজাদপুরের ১০ ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা। কালের খবর যশোরের শার্শায় শোকজের জবাবের আগেই যুবলীগ নেতা বহিষ্কার! কালের খবর জাতীয় শ্রমিক লীগের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মন্টুর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত। কালের খবর ডেমরায় শীতের শুরুতেই বাড়ছে শিশুদের মৌসুমি রোগ মানবতা ও আদর্শ সমাজ গঠনে ইসলামপুরে অসহায় দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ। কালের খবর ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে দশমিনায় সংবাদ সম্মেলন। কালের খবর যশোরে সমিতির সংঘবদ্ধ প্রতারকের প্রলোভনে পড়ে অর্থাভাবে মারা গেছেন ৫৭ জন, বহু শয্যাশায়ী। কালের খবর ডেমরায় আ.লীগের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন। কালের খবর
বেনাপোল দিয়ে স্থলপথের পাশাপাশি রেল পথেও বেড়েছে বাণিজ্য । কালের খবর

বেনাপোল দিয়ে স্থলপথের পাশাপাশি রেল পথেও বেড়েছে বাণিজ্য । কালের খবর

 মসিয়ার রহমান কাজল, বেনাপোল, কালের খবর :
বেনাপোল বন্দর ও পেট্রাপোল দিয়ে স্থল পথের পাশাপাশি রেল পথেও আমদানি বাণিজ্য বেড়েছে।
এতে স্বস্তি ফিরেছে ব্যবসায়ীদের মধ্যে।সরকারেরও রাজস্ব আয় বেড়েছে।বেনাপোল বন্দর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
করোনা সংক্রমণরোধে গত ২২ মার্চ রেলও স্থলপথে পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে বেনাপোল বন্দরের সঙ্গে আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ করে দেয় ভারত।
বাণিজ্য বন্ধের ফলে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের হাজার হাজার ট্রাক পণ্য নিয়ে আটকা পড়ে।
পরবর্তীতে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে দেশের অন্যান্য বন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি সচল হলেও এ পথে ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য সচলে নানান প্রতিবিন্ধকতা দেখা দেয়।
ব্যবসায়ীরা ক্ষতির বিষয়টি উভয় দেশের বন্দর কর্তৃপক্ষকে জানায়, তাতেও সচল হয়নি বাণিজ্য।
এক পর্যায়ে রেল কর্তৃপক্ষ, কাস্টমস, বন্দর ও ব্যবসায়ীদের যৌথ উদ্যােগে বিকল্পভাবে বাণিজ্য সচলে রেলপথে পার্সেল ভ্যানে দুই দেশের মধ্যে আমদানি বাণিজ্য চুক্তি হয়।
বেনাপোল ও পেট্রাপোল বন্দরের মধ্যে স্থল পথেরে পাশাপাশি রেল পথে কার্গাে রেল, সাইডডোর কার্গাে রেল এবং পার্সেল ভ্যানে সব ধরনের পণ্যের আমদানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে বর্তমান।
এতে ব্যবসায়ীদের যেমন দুর্ভােগ কমেছে,তেমনি বাণিজ্যে গতি বাড়ায় সরকারের ও রাজস্ব আয় বেড়েছে।
বেনাপোল বন্দরের আমদানি রফতানি সমিতির সভাপতি মহসিন মিলন জানান, স্থলপথে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে অবরোধ,হরতাল, শ্রমিক অসন্তোষ সহ বভিন্নি প্রতিবন্ধকতায় পণ্য পরিবহন করতে না পরে ব্যবসায়ীরা প্রায়ই লোকশানের কবলে পড়তেন। ভারত থেকে পণ্য আমদানি করতে অনেক ক্ষেত্রে এক মাসের ও অধিক সময় লেগে যেত। রেলপথে সব ধরনের পণ্যের আমদানি করতে পারায় এখন আর সে সমস্যা নেই।
বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সুজন জানান, করোনার অজুহাত দেখিয়ে ভারতের পেট্রাপোলের এক শ্রেণির ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে মাসের পর মাস ট্রাক আটকে রেখে ফায়দা লুটছিলো। এমন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে শুরু হয় রেলপথে আমদানি বাণিজ্য। এভাবে চলতে থাকলে আশা করা যাচ্ছে চলতি অর্থ বছরে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা সরকারের রাজস্ব আসবে।
বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক মামুন কবীরতরফদার জানান, স্থলপথের পাশাপাশি আমদানি কারকরা রেলপথে পণ্য আমদানি করায় বেনাপোলে যানজট কমেছে,বেডে়ছে আমদানি।সরকারও বেশি রাজস্ব পাচ্ছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com