বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কুড়িগ্রামে লকডাউন পালনে পেশাজীবী সংগঠনের সাথে বৈঠক। কালের খবর রাজিবপুরে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন। কালের খবর পোতাজিয়া ইউপি নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান ছাত্রলীগ সম্পাদক রাসেল শেখ। কালের খবর ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৪’ঔষধ ফার্মেসীকে জরিমানা। কালের খবর মুন্সীগঞ্জ লৌহজংয়ে চার হাজার কেজি ঝাটকা ইলিশ উদ্ধার। কালের খবর বেগুনী রঙের ধান চাষ করে সফল কৃষক এনামুল। কালের খবর বাংলাদেশি ভেবে ভারতীয় যুবককে গুলি করল বিএসএফ। কালের খবর সীতাকুণ্ডে বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার। কালের খবর ঝিনাইদহে পেয়াজের বাম্পার ফলন; কৃষকের মুখে হাসি। কালের খবর নবীনগরে মুজিববর্ষে গৃহহীনদের গৃহ নির্মান প্রকল্প শেষ পর্যায়ে, গৃহহীন সুবিধাভোগীরা মহাখুশি। কালের খবর
দুর্নীতি করে নিজের জীবনমান উন্নয়ন করায় আমি বিশ্বাসী নই ‘: প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর

দুর্নীতি করে নিজের জীবনমান উন্নয়ন করায় আমি বিশ্বাসী নই ‘: প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর

কালের খবর প্রতিবেদক : 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার এমন কোনো আকাঙ্ক্ষা নেই যে যেনতেনভাবে ক্ষমতায় আসতে হবে। জনগণের ভোটে যদি নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আসতে পারি,

যদি না পারি, কোনো অসুবিধা নেই। কিন্তু দেশে শান্তি বজায়
বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ব্যবসায়ীদের সমাবেশে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমি কী পেলাম না পেলাম সেটা নিয়ে চিন্তা করি না। আমি চিন্তা করি বাংলাদেশের মানুষের জন্য কী করে গেলাম, কী রেখে গেলাম। কীভাবে বাংলাদেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়ন হয় সেদিকেই আমার লক্ষ্য। দুর্নীতি করে নিজের জীবনমান উন্নয়ন করায় আমি বিশ্বাসী নই।

দেশে এখন সুন্দর শান্তিপূর্ণ পরিবেশ আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনেকগুলো দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে। শান্তিপূর্ণভাবে যেন নির্বাচনটা হয়, সেই পরিবেশটা যেন
এখানে জনগণ যাকে ভোট দেবে, তারাই ক্ষমতায় আসবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারপরও আমি বলব, আজকে এতগুলো কাজ হাতে নিয়েছি। আমরা কোনোদিক বাদ রাখিনি। অনেক কাজ হাতে নিয়েছি। সেটা যেন বাস্তবায়ন করতে পারি।

নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। ২০২১ সালে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করব, এই সুযোগ আমি দেশবাসীদের কাছে চাই।

তিনি বলেন, গতকাল আমরা যে নির্বাচনী ইশতেহারটা দিয়েছি আমরা কিন্তু সেই রাজনৈতিক দল এই উপমহাদেশে, আমরা আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার একবার ঘোষণা দিয়ে ফেলে দেই না। এই ইশতেহারটা আমাদের সঙ্গে থাকে। সেই সঙ্গে যখনই কোনো প্রজেক্ট নেই বা বাজেট করি; তখন এই বাজেট করার সময় প্রত্যেকটি মন্ত্রণালয়েই নির্বাচনী ইশতেহারের একটা কপি দিয়ে দেই। কারণ আমরা যে ওয়াদা দিয়েছি সেই ওয়াদা আমরা পূরণ করতে চাই। যদি সুযোগ হয় তার চেয়েও বেশি করি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আবার ক্ষমতায় এলে আমরা প্রতিটি সেক্টরে কীভাবে উন্নয়ন করব এবং দেশের অর্থনীতি কীভাবে শক্তিশালী করব এজন্য আওয়ামী লীগের একটি নীতিমালা আছে। ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরি করাই আওয়ামী লীগ সরকারের মূল লক্ষ্য।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, যারা এখানে উপস্থিত বা যারা আসতে পারেননি তাদেরকেও আমি এই আবেদনই জানাবো, অন্তত নৌকা মার্কায় আমাকে ভোট দিয়ে আরেকবার সুযোগ দিন আপনাদের সেবা করার। আমার উন্নয়নের কাজগুলি যেন আমি সম্পন্ন করতে পারি। যদিও এর শেষ নাই। উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে। তারপরও যে কাজগুলি হাতে নিয়েছি, সেটা যেন আমরা পালন করতে পারি। বাংলাদেশকে আজকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছি। এখন দেশে বিদেশে যেখানেই যান বাঙালি জাতি হিসেবে বাংলাদেশের মানুষ হিসাবে যে সম্মানটা পাচ্ছেন সেটা যেন অব্যাহত থাকে, সেটাই আমি চাই।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ও সহ-সভাপতি সালমান এফ রহমান। অনুষ্ঠানে গত ১০ বছরে দেশের বিভন্ন সেক্টরে উন্নয়নের ওপর একটি ভিডিও চিত্র উপস্থাপন করা হয়।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com