সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৩:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
১১ সন্তানের জনক সেজে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ করেছেন প্রধান শিক্ষক। কালের খবর জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য হেলেনার ঘনিষ্ঠজনরা আতঙ্কে। কালের খবর কোটালীপাড়ায় অবৈধভাবে চলছে বালু উত্তোলনের মহোৎসব। কালের খবর ৪১তম বিসিএস প্রিলির ফল প্রকাশ। কালের খবর সখীপুরে ভাঙ্গা কালভার্টের ভোগান্তিতে কয়েক উপজেলার মানুষ। কালের খবর তাড়াশে শিক্ষক সালামের অনন্য মহতী উদ্যোগ। কালের খবর নবীনগরে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা। কালের খবর দশমিনায় তিন সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু। কালের খবর নবীনগরের লাউর ফতেহপুরে অসহায় পরিবারকে ঘর দিলেন প্রবাসী ঐক্য সংগঠন। কালের খবর বোয়ালমারীতে দেড় যুগ দরে অন্ধকার কুয়ার মধ্যে শিকল বন্দি রবিউল। কালের খবর
খালেদা জিয়ার বাম কাঁধ নাড়াতে পারছেন না, বাম হাত বেঁকে গেছে। কালের খবর

খালেদা জিয়ার বাম কাঁধ নাড়াতে পারছেন না, বাম হাত বেঁকে গেছে। কালের খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক, কালের খবর  :

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বাম হাত বেঁকে গেছে এবং তিনি বাম কাঁধ নাড়াতে পারছেন না বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ড. এম এ জলিল। খালেদা রিউমাটো আর্থাইটিস রোগে আক্রান্ত হয়ে এ সমস্যায় ভুগছেন বলে জানান তিনি।

ড. জলিল সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত ত্রিশ বছর ধরে রিউমাটো আর্থাইটিস নামক রোগে আক্রান্ত তিনি। এই রোগটি নিয়ন্ত্রন না রাখার কারণে তার শারীরিক বিভিন্ন জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। বাম হাত বেঁকে যাওয়া, বাম কাঁধ নাড়াতে না পারা, হাত ঝিম ঝিম করাসহ বিভিন্ন উপসর্গ দেখা গেছে।

এছাড়া তার ঘাড়ে ও কোমরে ব্যথা আছে। তার বাম হিপজয়েন্টে আর্থাইটিস আছে। তার দুই হাঁটুর রিপ্লেসের স্থানে কিছুদিন আগে ফুলে গিয়েছিল। পরবর্তীতে ওষুধ দিয়ে তা ঠিক করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বেগম জিয়া গত বিশ বছর ধরে ডায়াবেটিসে ভুগছেন।

তার ডায়াবেটিস কন্ট্রোলের জন্য ইনসুলিন দেয়া হলেও তিনি তা নেননি। তার ডায়াবেটিসের বর্তমান কী অবস্থা সেটি আমাদের পরীক্ষা নিরিক্ষা করে দেখতে হবে। ইতোমধ্যে তার সুগার কমে হাইপো-ডায়াবেটিস হয়ে গিয়েছিল। তবে তিনি ব্লাডপ্রেসারের ওষুধ খাচ্ছেন। কিছুদিন আগে তার জ্বর হয়েছিল। সেটা এখন নাই। তার শরীরের সোডিয়াম কমে গিয়েছিল। ওষুধ দিয়ে সেটা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

গতকাল দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)-তে প্রেস ব্রিফিং করা হয়। এসময় খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের চারজন সদস্যই উপস্থিত ছিলেন। খালেদার জিয়ার অসুখের ব্যাপারে ব্যাখ্যা করে ড. জলিল বলেন, ‘এটি এক ধরণের বাত, গিঁটে গিঁটে ব্যথা। এর চিকিৎসা না হলে ঘাড়ে-মাজায়-কোমরে ব্যথা হয়।

এর চিকিৎসা একটি চলমান প্রক্রিয়া। খালেদা জিয়াকে ফিজিও থেরাপি দেয়া হচ্ছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তার ফিজিওথেরাপি শুরু করে দেবো।’
উল্লেখ্য, আদালতের নির্দেশে ৬ অক্টোবর বিকালে খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে বিএসএমএমইউ-এ ভর্তি করানো হয়। বর্তমানে তিনি বিএসএমএমইউ-এর ৬১২ নম্বর কেবিনে ভর্তি আছেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com