রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১১:৪৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কোটাবিরোধী আন্দোলন-আবারও রাজনীতির মাঠে ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। কালের খবর চালের দাম আরও বাড়লো, সবজি আলু পেঁয়াজেও অস্বস্তি। কালের খবর খুনি ওসি প্রদীপের হাতে নির্যাতিত সাংবাদিকের আহাজারি। কালের খবর বন্দরে ৬ প্রতারকের বিরুদ্ধে আদালতে চাজশীট দাখিল। কালের খবর মুরাদনগরে মাদক বিরোধী সমাবেশ। কালের খবর সাংবাদিক জুয়েল খন্দকারের বিরুদ্ধে কাউন্সিলর সাহেদ ইকবাল বাবুর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ঠিকাদারদের সাথে লিরা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ”র মতবিনিময় সভা-সম্পন্ন। কালের খবর গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী আমান উল্লাহ বিরুদ্ধে কাজ না করেই সরকারি বরাদ্দের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ!। কালের খবর স্ত্রীর যৌতুক মামলায়,ব্যাংক কর্মকর্তা রাশেদের শেষ রক্ষা মিলেনি বাকলিয়া থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগর থানা প্রেস ক্লাবের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কমিটি গঠন, সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক রুবেল। কালের খবর
ঘূর্ণিঝড়ে ‘রেমাল’ ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে আওয়ামী লীগ। কালের খবর

ঘূর্ণিঝড়ে ‘রেমাল’ ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে আওয়ামী লীগ। কালের খবর

 

সফিকুল ইসলাম, কালের খবর :

ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ও দুর্গতদের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণসহ আর্থিক সহায়তা নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে টানা চার মেয়াদে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকা দল আওয়ামী লীগ। ইতোমধ্যে দলীয়প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ঘূর্ণিঝড়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত সাতক্ষীরা, খুলনা ও বাগেরহাট ত্রাণ সহায়তা পৌছে দিয়েছে দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ কমিটি। শুধু আওয়ামী লীগের উপকমিটিই নয়, দলীয়প্রধান ও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পর পরই ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে ছুটে গেছেন রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলার আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। যার যার সাধ্যমতো সহায়তা দিচ্ছেন ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় মানুষদের মাঝে।
১২শ’ পরিবারকে ত্রাণ পৌছে দিয়েছে আ’লীগ: ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সীগঞ্জে ১২০০ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে শুকনো খাবার বিতরণ করেছে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপকমিটি। শনিবার শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক এমপি জগলুল হায়দারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম। তিনি বলেন, দুর্যোগ দুর্বিপাকে, বিপদে-আপদে আওয়ামী লীগ সব সময় মানুষের পাশে ছিল, মানুষের পাশে থাকে। তাই ঘূর্ণিঝড় রেমালের পর এবারও মানবতার মুক্তিরদূত, দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে দুর্গত মানুষের পাশে ছুটে এসেছে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক কমিটি। দুর্যোগ মোকাবিলায় শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আমরা আওয়ামী লীগ আপনাদের পাশে আছি, থাকব। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া সরকার ঝর্ণা, সংসদ সদস্য আতাউল হক দোলন, সংসদ সদস্য ফিরোজ আহমেদ স্বপন প্রমুখ।
ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ: ঘূর্ণিঝড় রেমালের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ। সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েলের নেতৃত্বে গত বৃহস্পবিার থেকে এই ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। শনিবারও বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলা, কুয়াকাটাসহ দক্ষিণ অঞ্চলে বিভিন্ন এলাকায় এসব ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। এ বিষয়ে খায়রুল হাসান জুয়েল বলেন, ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবে ক্ষতবিক্ষত এলাকায় মানুষের খোঁজ নেওয়ার জন্য গত কয়েক দিন দুর্গত এলাকা অবস্থান করেছি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সব সময় অসহায়ের পাশে অবস্থান করে। তার আলোকেই ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছি আমরা। যে কোনো দুর্যোগে সব সময়ই পাশে থাকব। শক্রবার (৩১ মে) বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত জেলে- দিনমজুর এবং খেটে খাওয়া অসহায় পরিবারগুলোর মধ্যে শুকনো খাবার-বিশুদ্ধ পানি, ঔষধ সামগ্রী বিতরণ করেছেন ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আশিকুর রহমান লাভলু। এদিন তিনি ২শতাধিক পরিবারের মাঝে মুড়ি, বিস্কুট, সাবান, স্যাভলোন আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন। এরআগে বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুরে পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় মোজহারউদ্দিন বিশ্বাস কলেজ মাঠে ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে সব ধরনের সহযোগিতা দেবে সরকার। অতীতে এমন দুর্যোগ হয়েছে, কিন্তু কেউ পাশে দাঁড়ায়নি। দুর্যোগ আসবেই, কিন্তু তা মোকাবেলা করে টিকে থাকার সামর্থ অর্জন করতে হবে। সেটাই আওয়ামী লীগের লক্ষ্য। তিনি বলেন, দেশে ধারাবাহিক গণতন্ত্র আছে বলেই দুগর্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারছি। আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে, যেনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে মানুষ রেহাই পায়। ভেঙে যাওয়া বাঁধ ইতোমধ্যেই পুনঃনির্মাণ শুরু করে দিয়েছি, যাতে বন্যার আগেই নির্মাণকাজ শেষ হয়। উপকূলে দুর্যোগ সহনীয়নীয় ঘর তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। যেখানে যেখানে আপনাদের ঘরবাড়ি ভেঙে গেছে সেটুকুও নতুন করে তৈরি তৈরি করে দেবো, আমার ওপর আস্থা রাখুন। এরআগে ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যের কথা জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের বিভাগীয় টিমগুলো ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় সাহায্য করবে। আবহাওয়া উন্নত হলে তারা সেসব এলাকায় যাবেন, ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে সাহায্য-সহায়তা করবেন। গত ১৫ বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশ আজ দুর্যোগ মোকাবিলায় সক্ষমতা অর্জন করেছে বলে দাবি করেন ওবায়দুল কাদের।
উল্লেখ্য, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা ৩৭ লাখ ৫৮ হাজার ৯৬ জন। সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে ৩৫ হাজার ৪৮৩টি এবং আংশিকভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৯৯২টি ঘরবাড়ি।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com