রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১১:০০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কোটাবিরোধী আন্দোলন-আবারও রাজনীতির মাঠে ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। কালের খবর চালের দাম আরও বাড়লো, সবজি আলু পেঁয়াজেও অস্বস্তি। কালের খবর খুনি ওসি প্রদীপের হাতে নির্যাতিত সাংবাদিকের আহাজারি। কালের খবর বন্দরে ৬ প্রতারকের বিরুদ্ধে আদালতে চাজশীট দাখিল। কালের খবর মুরাদনগরে মাদক বিরোধী সমাবেশ। কালের খবর সাংবাদিক জুয়েল খন্দকারের বিরুদ্ধে কাউন্সিলর সাহেদ ইকবাল বাবুর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ঠিকাদারদের সাথে লিরা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ”র মতবিনিময় সভা-সম্পন্ন। কালের খবর গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী আমান উল্লাহ বিরুদ্ধে কাজ না করেই সরকারি বরাদ্দের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ!। কালের খবর স্ত্রীর যৌতুক মামলায়,ব্যাংক কর্মকর্তা রাশেদের শেষ রক্ষা মিলেনি বাকলিয়া থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগর থানা প্রেস ক্লাবের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কমিটি গঠন, সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক রুবেল। কালের খবর
বিএফইউজে সভাপতিকে হেনস্তায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের নিন্দা। কালের খবর

বিএফইউজে সভাপতিকে হেনস্তায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের নিন্দা। কালের খবর

ফেনীর সোনাগাজীতে বোনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজের সভাপতি এম আবদুল্লাহ পুলিশি হেনস্তার শিকার হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা, ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। তারা এ ঘটনাকে গণমাধ্যম ও গণতন্ত্রের জন্য অশনি সংকেত হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

আজ বুধবার বিএফইউজের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোদাব্বের হোসেন ও মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, পারিবারিক একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বিএফইউজে সভাপতি এম আবদুল্লাহ মঙ্গলবার সোনাগাজীতে এক বোনের বাড়িতে যান। সেখানে তার আরো কয়েকজন বোন পরিবার নিয়ে বেড়াতে আসেন। বিকেলের দিকে সেই বাড়িতে পুলিশ হানা দিয়ে সাংবাদিক নেতা আবদুল্লাহসহ কয়েকজনকে থানায় নিয়ে যান। এ সময় এম আবদুল্লাহ নিজের পরিচয় দিলেও পুলিশ কর্ণপাত করেনি। প্রায় ছয় ঘণ্টা থানায় আটকে রেখে মধ্যরাতে এম আবদুল্লাহ ও তার এক বোনকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সাংবাদিক নেতা এম আবদুল্লাহ একজন প্রথিতযশা সাংবাদিক। তিনি দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ডেপুটি এডিটর ছিলেন। বর্তমানে দেশনিউজ ডট নেট-এর সম্পাদক। তাকে হেনস্তার বিষয়টি হাল্কা করে দেখার অবকাশ নেই। এ ঘটনায় স্পষ্ট হয়েছে যে, পারিবারিক অনুষ্ঠানও এখন আর নিরাপদ নয়। এর মাধ্যমে দেশে ব্যক্তি ও বাক-স্বাধীনতা কোন পর্যায়ে রয়েছে, তা সহজেই অনুমেয়। বিবৃতিতে অনতিবিলম্বে সাংবাদিক নেতাকে হেনস্তার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করার মাধ্যমে স্বাধীন সাংবাদিকতার সুস্থ পরিবেশ নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তি

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com