বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
দোহারে ১৫ দিন থেকে মসজিদের মুয়াজ্জিন নিখোঁজ,পাগল প্রায় বাবা মা নবীনগর পৌরসভায় সুবিধা বঞ্চিত মুসলিম পরিবার গুলো, দেখার যেন কেউ নেই। কালের খবর যশোরের অভয়নগরে ৮ বছরের শিশু কে ধর্ষণের পর হত্যা, ঘাতক পুলিশের হাতে আটক। কালের খবর ঢাকায় জার্নালিস্ট শেল্টার হোম শীঘ্রই উদ্বোধন!। কালের খবর মতলব দক্ষিণের ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান কামাল গাজী জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি। কালের খবর তালায় প্রতিবন্ধী সাংবাদিক সিরাজুলের বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় এজাহার, নিরাপত্তার জন্য জিডি। কালের খবর সখীপুরে জমি নিয়ে সংঘর্ষে ছোট ভাই খুন। কালের খবর নবীনগর উপজেলা প্রকৌশলির বিরুদ্ধে কাজ না করে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ এর গুঞ্জন পা দিয়ে লিখে চতুর্থবার জিপিএ-৫ পেলেন তামান্না। কালের খবর মৌলভীবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের নিবন্ধন পত্র গ্রহণ। কালের খবর
বাংলাদেশের জনগণ শান্তিপ্রিয় ও সাহসী….শাইখ ড. ইকরামা সাঈদ আবদুল্লাহ সাবরি

বাংলাদেশের জনগণ শান্তিপ্রিয় ও সাহসী….শাইখ ড. ইকরামা সাঈদ আবদুল্লাহ সাবরি

কালের খবর: আল আকসা মসজিদের গ্র্যান্ড খতিব শাইখ ড. ইকরামা সাঈদ আবদুল্লাহ সাবরি বলেছেন, বায়তুল মুকাদ্দাস তথা আল কুদসকে মুক্ত করা শুধু ফিলিস্তিন নয়, মুসলিম উম্মাহর দায়িত্ব।
বৃহস্পতিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে ‘বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় দ্বীনি শিক্ষা ও দ্বীনি দাওয়াতের ভূমিকা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।
ইকরামা সাঈদ আবদুল্লাহ সাবরি বলেন, আল আকসা হচ্ছে ফিলিস্তিনের মুকুট। এর পবিত্রতা ছড়িয়ে আছে সর্বত্র। আমাদের প্রিয় নবীর (সা.) পৃথিবী থেকে ঊর্ধ্বাকাশে গমন ও অবতরণের তোরণ হচ্ছে এই আল আকসা। এই তোরণ দিয়ে নবী করিম (সা.) মিরাজে গিয়েছেন।
বাংলাদেশের জনগণ শান্তিপ্রিয় ও সাহসী, এ কথা উল্লেখ করে আল আকসার গ্র্যান্ড খতিব বলেন, আরব থেকে এত দীর্ঘ দূরত্বে অবস্থান করেও শক্তি প্রয়োগ কিংবা যুদ্ধ ছাড়াই বাংলাদেশের মানুষ দাওয়াতের মাধ্যমে ইসলাম গ্রহণ করেছে। আল আকসা মসজিদের প্রতি বাংলাদেশের মানুষের ভালবাসা রয়েছে। আল আকসা আক্রান্ত হলে তারা ব্যথিত হন। ‍আল আকসা মুক্ত করতে বাংলাদেশের প্রতিবাদী ভূমিকা অনস্বীকার্য।
তিনি আরো বলেন, আমরা একই দ্বীনের অনুসারী। প্রিয় রাসুলের (সা.) আদর্শে নিজেদের জীবন পরিচালিত করি। পবিত্র কুরআনুল কারিম হলো ঐক্য ও সকল জ্ঞানের উৎস। মুসলমানদের জীবন সঠিকভাবে পরিচালনার সকল বিধি-বিধান এতে নিহিত রয়েছে। একজন মুসলমান হিসেবে আমরা পরস্পরকে ভালবাসি।
তিনি দুঃখ করে বলেন, ইসরায়েলি দখলদারিত্বের পর ফিলিস্তিনে মুসলমানদের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইহুদি-নাসারা এটা সহ্য করতে পারে না। কিন্তু বিজয় আমাদের হবেই। আল আকসা তথা ফিলিস্তিন মুক্ত একদিন আমরা করবই।’
মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আইন কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক।
তিনি বলেন, মহান আল্লাহর সর্বশ্রেষ্ঠ সৃষ্টি হজরত মুহাম্মদ (সা.)। তিনি ছিলেন দয়া, মানবতা ও ন্যায় বিচারকের প্রতীক। তার জীবনাদর্শ অনুসরণের মাধ্যমে মানবতার মুক্তি সম্ভব।
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের গভর্নর আলহাজ মিছবাহুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান, ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আহসান উল্লাহ ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল।
সভায় সাবেক সচিব এন আই খান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নরসের গভর্নর সিরাজ উদ্দিন আহমেদ, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা শায়খ খন্দকার গোলাম মাওলা নকশেবন্দীসহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও আলেম-ওলামা অংশ নেন।
মতবিনিময় সভায় বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ক্বারীদের মধ্যে মিসরের ড. আহমাদ নাইনা, ইরানের সাইয়্যেদ মুহাম্মদ জাওয়াদ হুসাইনি, সিরিয়ার মুতাসিম বিল্লাহ আল আসালি, আলজেরিয়ার শাইখ রিয়াদ আল জাযায়েরি, ভারতের তইয়্যিব জামাল ও বাংলাদেশের শাইখ আহমদ বিন আল আজহারি অংশ নেন।
সভা শেষে আল আকসা মসজিদের খতিব শাইখ ড. ইকরামা সাঈদ আবদুল্লাহ সাবরি বাংলাদেশ ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি, নিরাপত্তা ও কল্যাণের জন্য মোনাজাত করেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com