বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১০:৩০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
টেকের হাট বন্দরে দিন দুপুরে ৫ লক্ষ টাকা ছিনতাই, চারজন আটক। কালেন খবর ১৫ টি পূজা মন্ডপে আর্থিক অনুদান ও পরিদর্শন করলেন এমপি মনু। কালের খবর দেশের অনেক এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করা হচ্ছে : নসরুল হামিদ। কালের খবর মহেশরৌহালীর ৩ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশা। কালের খবর দুর্গাপূজায় মন্দিরে-মণ্ডপে সতর্ক পাহারা দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। কালের খবর সখীপুরে কো-কম্পোষ্ট প্লান্টের ৮ ম বার্ষিকী উদযাপন। কালের খবর নাসিরনগরে দুর্নীতির মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ভাতা তুলছেন ১২ সুস্থ ব্যক্তি। কালের খবর সখীপুরে ছাত্রলীগের দু-গ্রুপের পাল্টাপাল্টি মিছিল সমাবেশ। কালের খবর সলিমগঞ্জে প্রতারক দালাল চক্রের কান্ড : আদালতে মামলা থাকা সম্পত্তি গোপনে বিক্রি করার অপচেষ্টা। কালের খবর তাড়াশে ৪৫ টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু। কালের খবর
একজন চিকিৎসক দিয়ে চলছে হাসপাতাল!। কালের খবর

একজন চিকিৎসক দিয়ে চলছে হাসপাতাল!। কালের খবর

কালের খবর,মফস্বল ডেস্ক : একজন চিকিৎসক দিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। নামে ৫০ শয্যা হলেও বাস্তবে নেই একটিও। দুই বছর আগে ৫০ শয্যার বেড এলেও এখনো রয়েছে বাক্সবন্দি। ৫০ শয্যার বেড, অ্যাম্বুলেন্স, এক্স-রে, ইসিজি, ওটিসহ প্রয়োজনীয় প্রায় সব যন্ত্রপাতি থাকলেও নেই কোনো কার্যক্রম। নেই কোনো ডাক্তার, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারী। যার ফলে ইনডোর চিকিৎসা একেবারেই চালু হয়নি। বহির্বিভাগের রোগীদের আসা-যাওয়া আর পরামর্শ নেয়াই হলো ৫০ শয্যা এ হাসপাতালের নিত্যদিনের চিত্র। ফলে এখানে চিকিৎসা নিতে আসা জরুরি রোগীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। কেউ-বা আবার দালালের খপ্পরে পড়ছেন। ১৩০ দশমিক ২০ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এ উপজেলার সোয়া ২ লাখ মানুষের চিকিৎসাসেবার ভরসা স্থল এ হাসপাতাল চলছে একজন ডাক্তার দিয়ে। ফলে এ হাসপাতালের চিকিৎসাসেবা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ২৮ নভেম্ব^র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫০ শয্যা এ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এরপর ২০১৫ সালের ২৫ অক্টোবর সাবেক খাদ্যমন্ত্রী স্থানীয় সংসদ সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি তৎকালীন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দ্বীন মোহাম্মদ নুরুল হককে সঙ্গে নিয়ে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট এ হাসপাতাল উদ্বোধন করেন। হাসপাতালে গিয়ে ভবনের প্রধান ফটকে দেখা যায় জটলা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এরা সবাই বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধি এবং স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দালাল। হাসপাতালে ঢোকার পর নিচতলার বারান্দায় চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের ভিড় পরিলক্ষিত হয়। হাসপাতালের ২য় তলায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কক্ষে একজন চিকিৎসক বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। : :

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com