রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:৫৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
স্কুল মাঠ দখল করে ইউপি মেম্বারের বালু ব্যবসা। কালের খবর বাংলাদেশ বিশ্বে মাথা উঁচু করে চলবে, সম্মানের সঙ্গে চলবে : প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর তিতাসের অফিস সহকারী জহির এখন কোটিপতি । কালের খবর ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড মোড়ে একটি ইউলুপ নির্মাণ করে যানজট সমস্যার দ্রুত সমাধান প্রয়োজন। কালের খবর গ্রামগঞ্জে বইছে ভোটের হাওয়া। কালের খবর নেত্রকোনায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস উদ্বোধন করেন, এমপি,হাবিবা রহমান খান শেফালী। কালের খবর হরিণাকুন্ডুতে বাসের ধাক্কায় যুবক নিহত। কালের খবর বিরামপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর ফ্রিডম মানিকের শীষ্য সোহেল ও রানা পদ পেতে সক্রিয় যুবলীগে। কালের খবর শ্রীমঙ্গলের কুখ্যাত আসমার আস্তানা থেকে পতিতাসহ খদ্দের আটক। কালের খবর
নয়া দিগন্ত সবচেয়ে রঙিন হয়েছে শুভানুধ্যায়িদের আগমনে। কালের খবর

নয়া দিগন্ত সবচেয়ে রঙিন হয়েছে শুভানুধ্যায়িদের আগমনে। কালের খবর

শুভানুধ্যায়িদের ভালোবাসায় মুগ্ধ নয়া দিগন্ত পরিবার

আলমগীর কবির  ।।  কালের খবর  :

২৫ অক্টোবর ২০১৮। দৈনিক নয়া দিগন্ত ১৪ বছর পূর্ণ করে ১৫ বছরে পদর্পণ করেছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই রাজধানীর আর. কে. মিশন রোডে নয়া দিগন্ত কার্যালয় সেজে ছিল নতুর রূপে। দেওয়ালে দেওয়ালে টানানো ব্যানারে বড় অক্ষরে লেখা ছিল ‘প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শুভেচ্ছা’। আর প্রতিটা ফ্লোর সাজানো ছিল নানা রঙের বেলুন আর ফেস্টুন দিয়ে।
তবে নয়া দিগন্ত সবচেয়ে রঙিন হয়েছে শুভানুধ্যায়িদের আগমনে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সংগঠন, বিজ্ঞাপনি সংস্থাসহ সমাজের বিশিষ্টজনরা এসে নয়া দিগন্ত পরিবারের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন এবং সাহসী, নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ট সাংবদ পরিবেশনের প্রশংসা করেছেন।

পাঠক প্রিয় পত্রিকাটির ১৫ বছরে পদার্পন উপলক্ষ্যে ফেসবুকে নয়া দিগন্তের পাতা থেকে ‘লাইভ’ করাটা ছিল আলাদা আকর্ষণ। শুভানুধ্যায়িদের অনেকেই ‘লাইভ’ এসে তাদের অভিব্যক্তি ব্যক্ত করেছেন।
সকাল ১১টার মধ্যেই পত্রিকার কার্যালয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন ঢাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর এমাজউদ্দীন আহমদ। এর কিছুক্ষন পরেই হাজির হন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মোঃ ইব্রাহিম বীর প্রতীক, একুশে পদকপ্রাপ্ত অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া সহ সমাজের বিশিষ্টজনরা। বোর্ড রুমে দাড়িয়ে তাদের কাছ থেকে শুভেচ্ছা গ্রহণ করেন দিগন্ত মিডিয়া কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান শাহ আব্দুল হান্নান, দিগন্ত মিডিয়া কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী হারুন-উর রশিদ, পরিচালক খন্দকার এনায়েত হোসেন, পরিচালক খন্দকার জাকির হোসেন, সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সালাহ উদ্দিন বাবর, নির্বাহী পরিচালক জনাব আব্দুস সাদেক ভূইয়া, নির্বাহী সম্পাদক মাসুদ মজুমদার, ডেপটি এডিটর (বার্তা) মাসুমুর রহমান খলিলী, অনলাইন ইনচার্জ হাসান শরীফ প্রমুখ।
শুভেচ্ছা গ্রহনকালেই নয়া দিগন্তে প্রবেশ করেন বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তাকে নিয়ে উপস্থিত সাবাই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রথম কেক কাটা হয়।
শুভেচ্ছা বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, নয়াদিগন্ত একটি নিজস্ব প্রত্যয় নিয়ে জন্মলগ্ন থেকে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে জাতি একটি সংকট মোকাবেলা করছে। নয়াদিগন্তও প্রতিষ্ঠার পর সবচেয়ে সংকটকাল পার করছে। কিন্তু যে উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য নিয়ে পত্রিকাটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তা থেকে সামান্যও বিচ্যুৎ হয়নি। বহু বাধার মাঝেই তার দর্শন ধরে রাখার চেষ্টা করেছে নয়াদিগন্ত। গণতন্ত্রের কথা বলেছে, মানুষের অধিকারের কথা বলেছে। তিনি আশা করেন, প্রতিকূলতার মাঝে কাজ করার যে অভিজ্ঞতা তারা তা ভবিষ্যতেও কাজে লাগাবেন। দেশের বৃহত্তর মানুষের যে চিন্তা চেতনা তা এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। কোন কিছুতেই মাথা নত করা যাবে না। নয়া দিগন্ত আরো ভালো করুক, নয়া দিগন্ত আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে যাক, নয়া দিগন্ত সত্যিকার অর্থেই একটা নতুন দিগন্তের সূচনা করুক এটাই প্রত্যাশা।
এমাজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, নয়াদিগন্ত সব মানুষের পত্রিকা। দেশ ও গণতন্ত্রের পক্ষে এ পত্রিকার অবদান অনেক। এজন্য নয়াদিগন্তকে অনেক প্রতিকুল সময় পার করতে হচ্ছে। সামনের দিনগুলোতে নয়াদিগন্ত আরো উজ্জল থেকে উজ্জলতর হবে বলে আমাদের প্রত্যাশা। একইসাথে পাঠকর্দে হৃদয়ে পত্রিকাটি আরো গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠবে।
সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, নয়াদিগন্ত গণতন্ত্রের পক্ষে কথা বলে। হাজারো সীমাবদ্ধতার মধ্যেও তাদের নীতি ও আদর্শ ঠিক রাখায় মানুষ পত্রিকাটিকে ভালোবাসে। আমিও পত্রিকাটিতে কলাম লিখে আনন্দ পায়। পত্রিকাটি আরো সামনের দিকে এগিয়ে যাবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি।
সুকোমল বড়–য়া বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের পক্ষে নয়াদিগন্তকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, নয়াদিগন্তকে সব শ্রেণী পেশা ও ধর্মের মানুষের পত্রিকা। অসম্প্রদায়িক চেতনা লালন করায় পত্রিকাটি সর্বজনগ্রাহ্য হয়ে উঠেছে। এছাড়া পত্রিকাটি গণতন্ত্রেও পক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। সকল সীমাবদ্ধতা পেরিয়ে আগামীতে নতুন সূর্যেও উদয় ঘটবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।
কাজী হারুন অর রশীদ বলেন, ১৪ বছর পেরিয়ে ১৫ তম বর্ষে পা দেয়ায় আমরা আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জানাই। দিনটি পালনে যারা সাড়া দিয়েছেন তাদের ধন্যবাদ জানাই। তিনি বলেন, আমরা জনগনকে সবার উপরে স্থান দেই। সবার যে প্রত্যাশা তাতে আমরা অনুপ্রাণিত। আমরা নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে যেতে চাই। গণতন্ত্রেও অতন্ত্র প্রহরী হিসেবে কাজ করতে চাই। এক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা এবং দেশবাসীর দোয়া কামনা করেন তিনি।

নয়া দিগন্তের সম্পাদক আলমগীর মাহিউদ্দিনের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

আলমগীর মহিউদ্দিন বলেন, নয়াদিগন্ত প্রকাশের প্রথম দিন থেকেই আমরা মানুষের ভালোবাসা পেয়ে আসছি। সে ধারা এখনো অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন সময় সংকট এসেছে কিন্তু আমরা উদ্দেশ্য-লক্ষ্য থেকে কোন পিছপা হয়নি। দেশ ও জনগনের জন্য নয়াদিগন্তের অক্লান্ত পরিশ্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।
আওয়ামী লীগ: নয়া দিগন্তের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। নয়া দিগন্তের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর পক্ষে যুবলীগের একটি প্রতিনিধি দল শুভেচ্ছা জানান।
বিএনপি: নয়া দিগন্তের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানাতে আসেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর পক্ষে দলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ ও সহ-দফতর সম্পাদক বেলাল আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, নেত্রকোণা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মো: আনোয়ারুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান, তার সহধর্মীনি আলো আরজুমান্দ বানু, মাদারীপুর জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কামাল জামান মোল্লা সহ অনেকেই।
জামায়াতে ইসলামী: কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিনের নায়েবে আমির মঞ্জুরুল ইসলাম ভুইয়া, মতিঝিল থানা সভাপতি কামাল হোসেন, সাইফুল ইসলাম মিঠু, আশরাফুল আলম প্রমুখ।
ইসলামী ছাত্রশিবির: কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ও সহাকারী প্রচার সম্পাদক মাহফুজুর রহমানসহ নেতৃবৃন্দ।
জাগপা: সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও চট্টগ্রাম মহানগরী সভাপতি আবু মোজাফ্ফর মো: আনাছ, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব আসাদুর রহমান খান আসাদ, বেলায়েত হোসেন মোড়ল, মো: হেলাল, নজরুল ইসলাম বাবলু, শ্যামল চন্দ্র সরকার প্রমুখ।
বাংলাদেশ লেবারপার্টি: চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফারুক রহমান, মো: তানভীর হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান রাজু, নুরুল ইসলাম সিয়াম, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির, ছাত্রমিশনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুহাম্মদ মিলন, মো: শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ: প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, ঢাকা মহানগর দক্ষিনের সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আহমদ আব্দুল কাইয়ুম, মাওলানা শহিদুল ইসলাম কবির প্রমুখ।
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস: কেন্দ্রীয় মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা কোরবান আলী কাসেমী, অফিস ও বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মুসা, মাওলানা খায়রুল ইসলাম ঠাকুর প্রমুখ।
খেলাফত মজলিস: কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা শেখ গোলাম আজগর, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, অফিস ও প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল জলিল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী প্রমুখ।
বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন: কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও ঢাকা মহানগর আমির মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মুফতি সুলতান মুহিউদ্দিন, মহানগর নায়েবে আমির মাওলানা ফিরোজ আশরাফ, মহানগর সহকারী প্রচার সম্পাদক প্রিন্সিপাল শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
মুসলিম লীগ: মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, অতিরিক্ত মহাসচিব আকবর হোসেন পাঠান, স্টান্ডিং কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন আবুড়ি, প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক কাজী এ কাফী, ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি মোজাম্মেল হক প্রমুখ।
বিএফইউজে ও ডিইউজে: বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, মহাসচিব এম. আব্দুল্লাহ, সিনিয়র সহ-সভাপতি নুরুল আমিন রোকন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো: শহিদুল ইসলাম, ডিইউজে নেতা শাজাহান সাজু, আল আমিন প্রমুখ।
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি: সভাপতি সাইফুল ইসলাম, যুগ্ম-সম্পাদক মঈন উদ্দিন খান, দফতর সম্পাদক জেহাদ চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য জাফল ইকবাল শুভেচ্ছা জানান। এছাড়া সিনিয়র সাংবাদিক শরিফুল ইসলাম বিলু, ডিআরইউ এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী, সাবেক সহ-সভাপতি জিয়াউল কবির সুমন, মামুন স্টালিন, আফজাল বারী প্রমুখ।
র‌্যাব: র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের এডিশনাল এসপি মিজানুর রহমান র‌্যাবের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৪/৯৫ ব্যাচ: ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আব্দুল গফফার রাজিব এবং জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা এম এ রব খান ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
সাংস্কৃতিক কর্মী: দেশের অন্যতম আলোচিত নায়িকা পরিমনি নয়াদিগন্ত কার্যালয়ে এসে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
বাংলাদেশ সংবাদপত্র এজেন্ট কল্যাণ অ্যাসোসিয়েশন: সভাপতি কামাল হোসেন ভুইয়া, সাধারণ সম্পাদক মো: হাশেমসহ নেতৃবৃন্দ।
ঢাকা সংবাদপত্র হকার্স কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতি: সভাপতি মোস্তফা কামাল, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নানসহ নেতৃবৃন্দ।
আরো শুভেচ্ছা জানান, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর আব্দুল লতিফ মাসুম, সুপ্রীমকোর্টের সাবেক রেজিস্টার জেনারেল ইকতেদার আহমেদ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোজাহেরুল হক প্রমুখ।
আরো সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান: বাংলাদেশ নিউজ পেপার মিডিয়া কম্পিউটার অপারেটারস অ্যাসোসিয়েশন, সামিট করপোরেশন লিমিটেড, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, আনোয়ার গ্রুপ, প্রাইম ব্যাংক।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com