শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৩:৩৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মেঘনার অস্বাভাবিক জোয়ারে ডুবেছে গ্রামের পর গ্রাম। কালের খবর সাংবাদিকরা পারে ক্ষমতাহীনদের ক্ষমতাবান করতে : তথ্যমন্ত্রী। কালের খবর নবীনগর আঞ্চলিক কথা গ্রুপের উদ্যোগে দুটি অসহায় পরিবারের মাঝে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান। কালের খবর সখীপুরে গরুর লাথি খেয়ে আহত ১৩ জন হাসপাতালে। কালের খবর মেয়ের শ্বশুরবাড়ি ট্রাকভর্তি উপহার পাঠিয়ে চমকে দিলেন বাবা। কালের খবর জীবন অগাধ : আলাউদ্দিন খাঁর বড় ছেলে। কালের খবর তিন দিনে ৮ কোটি টাকার টোল আদায় বঙ্গবন্ধু সেতুতে। কালের খবর শোক সংবাদ : জয়দেব সূত্রধর আর নেই। কালের খবর বোয়ালমারীতে পৌরসভার ৫০০শত ভ্যানচালককে ঈদ উপহার প্রদান। কালের খবর সাংবাদিকদের এ অবস্থা কেন সৃষ্টি হলো। কালের খবর
পুলিশ পিটানোর মামলায় আওয়ামী লীগের ৪৬ নেতাকর্মী কারাগারে। কালের খবর

পুলিশ পিটানোর মামলায় আওয়ামী লীগের ৪৬ নেতাকর্মী কারাগারে। কালের খবর

নাটোর প্রতিনিধি, কালের খবর : পুলিশ পেটানোসহ সরকারি কাজে বাধা দেয়ার মামলায় নাটোরের গুরুদাসপুরে আওয়ামী লীগের ৪৬ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার নাটোরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে (গুরুদাসপুর) হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন গুরুদাসপুর উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের ৪৬ নেতাকর্মী। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক মো. মমিনুল ইসলাম তাদের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো ৪৬ নেতাকর্মীদের মধ্যে রয়েছেন- গুরুদাসপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ আব্দুল বারী, সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান শাহ, পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মোল্লা, জেলা পরিষদ সদস্য মেহেদী হাসান, পৌর যুবলীগের সভাপতি তাহের সোনার, সাধারণ সম্পাদক ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মিলন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি স.ম সেলিম, পৌর সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি স্বাধীন মাহামুদ, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মাসুদ সরকার।

আদালত ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ১১ মে উপজেলা পরিষদে মাসিক সমন্বয় সভার দিন ঠিক ছিল। সভায় বিশৃঙ্খলা হতে পারে এমন সতর্কবার্তা পেয়ে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়। ওই সভায় নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসসহ দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী এবং তার সমর্থকরা প্রায় দুই শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে উপজেলা চত্বরে এসে শোডাউন দিতে থাকে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ লাঠিচার্জসহ ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই দিন মেয়রসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। এ ঘটনায় গুরুদাসপুর থানার তৎকালীন এসআই সাইদুজ্জামান বাদী হয়ে মেয়র শাহনেওয়াজ মোল্লাসহ আওয়ামী লীগের ৬৬ নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

ওই ঘটনায় আদালত মেয়রসহ ৬ নেতাকর্মীদের জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি করেন। এছাড়া আদালতে হাজির না হওয়ায় আরও ১৪ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

গুরুদাসপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী দাবি করেন, ওই মামলা মিথ্যা ও হয়রানিমূলক। তিনিসহ সবাই হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়েছেন। ইতিপূর্বে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী কয়েকজন নিম্ন আদালতে হাজিরা দিয়ে জামিন নিয়েছেন।

গুরুদাসপুর আদালতের (নাটোর) জিআরও পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম জানান, হাইকোর্টের জামিনের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় বুধবার ৪৬ জনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com