রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৫:৪৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী আমান উল্লাহ বিরুদ্ধে কাজ না করেই সরকারি বরাদ্দের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ!। কালের খবর স্ত্রীর যৌতুক মামলায়,ব্যাংক কর্মকর্তা রাশেদের শেষ রক্ষা মিলেনি বাকলিয়া থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগর থানা প্রেস ক্লাবের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কমিটি গঠন, সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক রুবেল। কালের খবর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনিয়মের অভিযোগে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত। কালের খবর ঘিওরে কৃষকদের মানববন্ধনে নিয়মিত বর্ষা ও জলবায়ু সুবিচারের জোরালো দাবি। কালের খবর বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই চট্টগ্রামের অভূতপূর্ব উন্নয়ন : খোরশেদ আলম সুজন। কালের খবর “ইন্টারন্যাশনাল প্রেস ক্লাব এন্ড হিউম্যান রাইটস” এর কেন্দ্রীয় কমিটির চূড়ান্ত প্রার্থিতা গ্রহণ। কালের খবর জগন্নাথপুরে প্রাথমিক শিক্ষক মদপান করে সাজা ভোগ করায় এলাকায় ক্ষোভ। কালের খবর ময়মনসিংহ বিআরটিএ টাকা ছাড়া কাজ করেন না সহকারী পরিচালক এস এম ওয়াজেদ, সেবাগ্রহীতারা অসন্তোষ। কালের খবর হাইকোর্টের রায় : মোটরযানে বিজ্ঞাপনের জন্য ফি নিতে পারবে না বিআরটিএ। কালের খবর
শহরে প্রকাশ্যে যৌনমিলনে আর কোনও বাধা রইল না। কালের খবর

শহরে প্রকাশ্যে যৌনমিলনে আর কোনও বাধা রইল না। কালের খবর

কালের খবর ডেস্ক : মেক্সিকোর গুয়াদালাজারা শহরের আইন বদলে গেল। এবার থেকে এই শহরে প্রকাশ্যে যৌনমিলনে কোনও বাধা রইল না। তবে, এ বিষয়ে যদি কোনও তৃতীয় ব্যক্তি অভিযোগ দায়ের করেন, তবেই ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।

পুলিশ যাতে শহরের অপরাধের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে বেশি মনোযোগ দিতে পারে এবং কে কোথায় যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হচ্ছে তার দিকে বেশি নজর না দেয়, তাই এই আইন বদল।
পাবলিক প্লেস, খালি জায়গা, গাড়ির মধ্যে বা জনসমক্ষে যৌন সম্পর্ক বা যৌন প্রদর্শনকামিতাকে ফৌজদারি অপরাধ বলে ধরা হবে না। কোনও নাগরিক যদি পুলিশের হস্তক্ষেপ চান, তা হলে এটা শুধু প্রশাসনিক অপরাধ হিসেবেই দেখা হবে’— এমনটাই বলা হচ্ছে গুড গভর্নেন্স-এর ১৪ নম্বর নিয়মে।

গুয়াদালাজারায় প্রশাসনিক অপরাধের ক্ষেত্রে পুলিশ শুধু জরিমানা করেই ছেড়ে দিতে পারে আইনভঙ্গকারীকে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে পুলিশ অফিসার চাইলে জরিমানা না করে সতর্ক করেই ছেড়ে দিতে পারে।

এই শহরটি মেক্সিকোর অন্যতম রক্ষণশীল শহর বলে চিহ্নিত। তাই স্বাভাবিক ভাবেই অনেকেই এই আইন বদলকে ভাল চোখে দেখছেন না। তাঁরা আপত্তি তুলছেন নীতির প্রশ্নেই।

প্রতিবাদীদের বক্তব্য এই খুল্লামখুল্লা যৌন সম্পর্কে ছাড় দিয়ে সরকার আসলে ধর্ষক ও শিশুকামীদের উৎসাহিত করছে।

তবে যাঁরা এই আইনের বদলকে সমর্থন করছেন, তাঁদের বক্তব্য— ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। যদি কেউ দেখে কারোকে জোর করে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত করা হচ্ছে, তা হলে নিশ্চয়ই তিনি পুলিশের নজরে বিষয়টি আনবেন।

তবে মেক্সিকোর গুয়াদালাজারাই প্রথম শহর নয়। নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডাম শহরে ভনডেলপার্কেও গত এক দশক ধরে প্রকাশ্যে যৌন সম্পর্কের অনুমতি দেওয়া রয়েছে।
সূত্র : এবেলা

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com