বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ছাই হওয়া স্বপ্ন গড়লেন লাগালেন এমপি ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন’। কালের খবর বাঘারপাড়ায়-পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আনন্দে এলাকাবাসী কে মিষ্টি খাওয়ালো (চায়ের দোকানদার) মারজোন মোল্লা। কালের খবর কানাইঘাটে বিএমএসএফ ও রেড ক্রিসেন্টের যৌথ উদ্যোগে বন্যার্তদের ফ্রি চিকিৎসাসহ ঔষধ বিতরণ। কালের খবর সরকার সারা দেশে যোগাযোগব্যবস্থার উন্নয়ন করছে : প্রধানমন্ত্রী। কালের খবর শাহজাদপুরে বাধা দেয়ার পরও সহবাস করায় ব্লেড দিয়ে স্বামীর লিঙ্গ কর্তন করলো স্ত্রী!। কালের খবর পদ্মাসহ সকল সেতুতে সাংবাদিকদের টোল ফ্রি করা উচিৎ: বিএমএসএফ। কালের খবর বৃহত্তর ডেমরার যাত্রাবাড়ি বর্ণমালা স্কুলের অধ্যক্ষ ও সভাপতির দুর্নীতি তদন্তে কমিটি গঠন। কালের খবর স্বপ্নের পদ্মা সেতু দেখা হলো না শিশু নাসিমের। কালের খবর তাড়াশ উপজেলায় পাট কাটার ধুম পরেছে। কালের খবর নবীনগরে বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ। কালের খবর
আধিপত্য ও পূর্ব-শত্রুতার জের ধরে নরসিংদীর চরাঞ্চলে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৩০। কালের খবর

আধিপত্য ও পূর্ব-শত্রুতার জের ধরে নরসিংদীর চরাঞ্চলে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৩০। কালের খবর

নরসিংদী থেকে ইকবাল হোসেন /রেজাউল করিম গাজী, কালের খবর : আধিপত্য ও মামলা সংক্রান্ত বিষয়ের জের ধরে নরসংদীর চরাঞ্চল অনন্তপুর গ্রামে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থিত দুই দল গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে এক জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ৩০ জন। গুরুতর আহত ৫ জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। নিহত মোহাম্মদ আলী (৩০) অন্তরামপুর গ্রামের মোসলেম মিয়ার ছেলে। সে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলমগীর হোসেনের সমর্থক। ২১ আগষ্ট  মঙ্গলবার সকালে দুই পক্ষের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছেন, এলাকার আধিপত্য, পূর্ব-শত্রুতা ও মামলার জের ধরে সদর উপজেলার চরাঞ্চল চরদীগলদী ইউনিয়নের অনন্তরামপুর গ্রামের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলমগীর হোসেনের সঙ্গে একই গ্রামের ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি নেওয়াজ আলী মেম্বারের সঙ্গে দ্বন্ধ চলে আসছিল। দ্বন্ধের জের ধরে গত কয়েক মাসে উভয় গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এরপর থেকে বিএনপি সমর্থিতরা গ্রাম ছাড়া হয়ে পড়ে।

কোরবানীর ঈদকে ঘিরে নেওয়াজ আলী মেম্বারের সমর্থকরা গ্রামে ফিরে। এই নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। এরই জের ধরে মঙ্গলবার সকালে দুই পক্ষের সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় প্রতিপক্ষের হামলায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলমগীর হোসেনের সমর্থক মোহাম্মদ মারা যায়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সংঘর্ষ ব্যাপক আকার রূপ নেয়। এ সময় উভয় পক্ষের প্রায় ৩০ জন আহত হয়েছে। আহতদের পার্শবর্তী জেলার নবীনগর, বাঞ্ছারামপুর, নরসিংদী সদর ও জেলা হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মাধবদী থানার ওসি (তদন্ত) মো. আবুল কালাম বলেন, সংঘর্ষে একজন নিহতসহ বেশ কিছু লোকজন আহত হয়েছে। এলাকার আধিপত্য,পূর্ব-শত্রুতা ও মামলার জের ধরে আলমগীর হোসেনের ও নেওয়াজ আলী মেম্বারের মধ্যে দন্ধ চলে আসছিল। এরই জেরে এ ঘটনা।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com