রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নবীনগরে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা। কালের খবর দশমিনায় তিন সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু। কালের খবর নবীনগরের লাউর ফতেহপুরে অসহায় পরিবারকে ঘর দিলেন প্রবাসী ঐক্য সংগঠন। কালের খবর বোয়ালমারীতে দেড় যুগ দরে অন্ধকার কুয়ার মধ্যে শিকল বন্দি রবিউল। কালের খবর জেলা কারাগারে বেশি দামে পণ্য বিক্রির অভিযোগ, কোটি টাকার বাণিজ্য। কালের খবর ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ কামরুন নাহারের আরেকটি ফোনালাপ ফাঁস। কালের খবর নবীনগরে এক প্রবাসীর বাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড। কালের খবর সম্পাদকদের বিরোধ গণমাধ্যমের জন্য অশনিসংকেত। কালের খবর ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ইউনিট কমিটি গঠনের নির্দেশনা। কালের খবর সিরাজগঞ্জে ২০ লক্ষ টাকার হেরোইনসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক। কালের খবর
বড় বড় মাদক কারবারীরা সব সরকারের সময় গড়া সুবিধাভোগী কিছু লোক’ : সাবেক আইজিপি নুরুল আনোয়ার । কালের খবর

বড় বড় মাদক কারবারীরা সব সরকারের সময় গড়া সুবিধাভোগী কিছু লোক’ : সাবেক আইজিপি নুরুল আনোয়ার । কালের খবর

ফারুক শাহজী  : বড় বড় মাদক কারবারিরা সব সরকারের সময় গড়া সুবিধাভোগী কিছু লোক। এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করলে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের প্রকৃত সুফল পাওয়া যাবে না বলে মনে করেন সাবেক আইজিপি ও নিরাপত্তা বিশ্লেষক নুরুল আনোয়ার। কালের খবরের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, মাদক ব্যবসায় কারা জড়িত, কে আমদানি করে, টাকা নিয়ন্ত্রণ করে কে? এরা আসলে সাধারণ লোক নয়। বড় বড় মাদক কারবারিরা সব সরকারের সময় গড়া সবসময় ক্ষমতাভোগী, সুবিধাভোগী আশেপাশের কিছু লোক। এদের উপরে যদি চাপ না পড়ে, অভিযানের সাময়িক সুফল এখন পেলেও ছয় মাস পরে পরিণতি কি হবে? একই থাকবে, কাজের কাজ কিছুই হবে না। তিনি আরও বলেন, মাঝখান থেকে কিছু লোক মারা গেল। যারা মারা গেল তারা কোন পর্যায়ের মাদক ব্যবসায়ী? এরা নিম্ন অথবা মধ্যমপর্যায়ের মাদক ব্যবসায়ী। মাদক যারা ব্যবসা করে বা আমদানি করে তাদের কাছ থেকে কিনে এরা বিক্রি করে। এটাকেও আমরা সমর্থন করি না।

এক প্রশ্নের জবাবে নুরুল আনোয়ার বলেন, মাদকাসক্তি একদিনেই এ পর্যায়ে আসেনি, দীর্ঘদিনে সমাজে মাদকের এ ভয়াবহ অবস্থা তৈরি হয়েছে। এখন যারা মাদক নির্মূলে অভিযান পরিচালনা করছেন, এতদিন তারা কোথায় ছিলেন? যখন থেকে মাদকের এই ভয়াবহতা সম্পর্কে জেনেছেন তখনই যদি এর ধরনের অভিযান পরিচালনা করা হতো তাহলে তো পরিস্থিতি আজকের এ পর্যায়ে আসতে পারত না। মাদক প্রতিরোধ ব্যবস্থা আগে থেকেই গ্রহণ করা উচিত ছিল।

তিনি বলেন, যেকোনো অপরাধী দমনের জন্য আইন আছে, আছে থানা। পুলিশ ও আদালতও রয়েছে। ট্রাইব্যুনাল আছে, দেশেবাসী ট্যাক্সের মাধ্যমে এসব প্রতিষ্ঠানের ব্যয় নির্বাহ করে। রক্ষণাবেক্ষণ করে থাকে। যে কথাটি এখন বেশ আলোচনা হচ্ছে, ক্রসফায়ার পদ্ধতিতে কি মাদক নির্মূল সম্ভব? এ পদ্ধতিতে মাদক নির্মূল করা কঠিন। এই পদ্ধতি সঠিক বা আইনানুগ কিনা না? আইনে এ ধরনের কোনো সুযোগ নেই। অপরাধী যে অপরাধই করুক না কেন, ক্রসফায়ার বা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাউকে মারার কোনো সুযোগ নেই, এটা আইনের সঙ্গে সংগতিপপূর্ণ নয়।
তিনি আরও বলেন, এই অভিযানের ফলে মাদকের বিরুদ্ধে, মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দেশে এখন একটা প্রবল চাপ তৈরি হয়েছে, এর আগে যা হয়নি। মাদকবিরোধী এই অভিযানের সফলতার ব্যাপারে আমি আশাবাদী।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন.।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com