শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৯:৫০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যশোরের কেশবপুরে শান্তি স্থাপন ও সহিংসতা নিরসনে (পিএফজি, র) সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর রায়পুরার ছাত্রলীগ নেতা মামুনকে জড়িয়ে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক ধর্ষণ মামলাসহ একাধিক মামলা করায় সর্বমহলে নিন্দা। কালের খবর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এর ৫৬ ধারার প্রয়োগ’ শীর্ষক সেমিনারে.প্রধান অতিথি সিএমপি কমিশনার। কালের খবর সহিংসতা নয়-শান্তির জন্য আমরা-এই শ্লোগান কে সামনে রেখে বাঘারপাড়ায় অনুষ্ঠিত হলো (পিএফজির) সম্মিলিত কার্যক্রম ও পরিকল্পনা প্রণয়ন সভা। কালের খবর ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল ইসলাম সাময়িক বরখাস্ত। কালের খবর বাঘারপাড়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাংবাদিক লক্ষণ চন্দ্র মন্ডলের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক। কালের খবর যুবদের নেতৃত্বে সঠিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহনের ফলে , সমাজে সহিংসতা নিরসন ও শান্তি স্থাপন হতে পারে। কালের খবর কোরবানির পশু প্রস্তুত করতে ব্যস্ত সাতক্ষীরার খামারিরা। কালের খবর চট্টগ্রামের ইপিজেডে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন, ঘটনায় জড়িত মূল হোতাসহ ২জন গ্রেপ্তার। কালের খবর রাজধানী ঢাকা শহরে কোনো ব্যাটারিচালিত রিকশা চলবে না : সড়ক পরিবহনমন্ত্রী। কালের খবর
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫-আসনে আবারও নৌকা প্রতীকে প্রার্থী হবার ঘোষণা দিলেন সাবেক এমপি বাদল। কালের খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫-আসনে আবারও নৌকা প্রতীকে প্রার্থী হবার ঘোষণা দিলেন সাবেক এমপি বাদল। কালের খবর

এম আই ফারুক আহমেদ / রত্না বেগম, কালের খবর :- ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসন থেকে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও নৌকা প্রতীকে প্রার্থী হতে দৃঢ়তার সাথে ইচ্ছে পোষণ করেছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের দুই দুইবারের সভাপতি ও সাবেক সফল জনপ্রিয় এমপি ফয়জুর রহমান বাদল।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকায় তাঁর দৃষ্টিনন্দন বাগানবাড়িতে নবীনগর নির্বাচনী এলাকার স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে এক সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি তাঁর স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে সাংবাদিকদের কাছে তাঁর এ সুপ্ত ইচ্ছের কথা সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরেন। এসময় তিনি দ্বিতীয়বারের মতো এমপি নির্বাচিত হতে ‘জাতির বিবেক’ খ্যাত সাংবাদিক সমাজের সুপরামর্শ ও সার্বিক সহযোগিতাও চান। সাবেক সাংসদের আমন্ত্রণে সাংবাদিকেরা তাঁর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে বাগানবাড়িতে প্রায় চারঘন্টা সময় কাটান। উপস্থিত অর্ধশতাধিক নবীনগরের স্থানীয় সাংবাদিকদের যেন এক ‘মিলনমেলা’ তৈরী হয়।

আগরতলা ষড়যন্ত্রমামলার অন্যতম আসামি ও বঙ্গবন্ধুর সহচর সার্জেন্ট মুজিবুর রহমানের সন্তান ‘স্পষ্টবাদী’ খ্যাত ফয়জুর রহমান বাদল বিগত ২০১৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ‘এমপি’ ছিলেন। এমপি থাকাকালীন তাঁর আমলে নবীনগর উপজেলায় প্রায় ১৩০০ কোটি টাকার যে উন্নয়ন কাজ তিনি করেছেন, সেগুলোর বিস্তারিত বিবরণ সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরে তিনি বলেন,’জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার বিগত সরকারের আমলে, আমি জননেত্রীর স্নেহধন্য হয়ে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেয়ে এমপি হয়েছিলাম। এমপি হ্ওয়ার পর নেত্রীর দিক নির্দেশনা ও আশীর্বাদ পেয়ে অবহেলিত নবীনগর উপজেলার সামগ্রিক চেহারাটা আমি পাল্টে দেয়ার জন্য নিরলসভাবে চেষ্টা করেছি।
তিনি বলেন, নবীনগরবাসী জেলা সদর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যাতায়াতের জন্য ‘নবীনগর শিবপুর রাধিকা সড়ক, নবীনগর কুড়িঘর গোকর্ণঘাট মহেশ সড়ক ও নবীনগর কৃষ্ণনগর সাদেকপুর ব্রাহ্মণবাড়িয়া’- ‘নবীনগর আশুগঞ্জ সড়ক’ নির্মাণের জন্য,শত শত কোটি টাকার প্রকল্প নিয়েছিলাম। যেই সড়কগুলোর নির্মাণকাজ এখনও চলমান রয়েছে।
এছাড়া নবীনগর কোম্পানীগঞ্জ সড়কের ৩০ কি.মি. দীর্ঘ ‘ প্রশ্স্থকরণসহ উপজেলার অসংখ্য প্রয়োজনীয় রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট আমার আমলে নির্মিত হয়েছে। পাশাপাশি মেঘনা ও তিতাস নদীর ভাঙ্গণ রোধ করার জন্য বাঁধ দেওয়া, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা বহু প্রতিষ্ঠানের দ্বিতল ভবন আমার সময়ে হয়েছে, এছাড়া মসজিদ মন্দিরের সার্বিক উন্নয়ন করেছি। নবীনগরবাসীর দির্ঘদিনের প্রত্যাশিত ফায়ার সার্ভিস অফিস, নবীনগরের মডেল মসজিদ আমিই এনেছি।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাবেক এই এমপি বলেন, ‘বিভিন্ন কারণে গত নির্বাচনটি আমি করতে পারিনি। তাই নবীনগরকে নিয়ে আমার সবগুলো পরিকল্পনা এবং আমার হাতে নেয়া যাবতীয় উন্নয়ন কাজগুলো শেষ করে যেতে পারিনি। তবে সামনের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নবীনগরবাসীর ভালোবাসা ও দোয়ায় এবং আমার নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যার স্নেহধন্য হিসেবে আবারও নবীনগর আসনে আওয়ামীলীগের দলীয় নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেলে এবং নির্বাচিত হতে পারলে, আমি আপনাদের (সাংবাদিক) সকলের সহযোগিতায় আমার বিগত দিনের অসমাপ্ত সবগুলো কাজ সবাইকে সাথে নিয়ে সুন্দরভাবে সমাপ্ত করতে চাই। আমি চাই, আগামী দিনে সবার সহযোগিতা ও সুপরামর্শে নবীনগরকে সত্যিকার অর্থে সারাদেশের মধ্যে একটি অনুকরণীয় উন্নয়নের ‘রোল মডেল’ হিসেবে গড়ে তুলতে। যা দেখে অন্যরাও অনুপ্রাণিত হবেন।
আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি কখনও কোনদিন অন্যায়কে আশ্রয়- প্রশ্রয় দেয়নি এবং আমৃত্যু কখনও কোন ধরণের অপরাধ ও অন্যায়কে প্রশ্রয় দেবো না। অন্যায়কারী কিংবা জুলুমবাজ দলীয় কিংবা ব্যক্তিজীবনে আমার যতই কাছের লোক হোক না কেন, এরা অন্যায় করে আমার কাছে কোনদিনও রেহাই পাবেনা ইনশাল্লাহ। সম্প্রতি সময়ে ‘সত্য’টা সাহসের সঙ্গে লিখে অনেক সাংবাদিকই এখন নবীনগরে নানাভাবে মামলা, হামলাসহ বিভিন্নভাবে হয়রাণীর শিকার হচ্ছেন, এমন পরিস্থতিতে সাংবাদিকদেরকেও তাদের নিজেদের অধিকার ও মর্যাদা রক্ষায় নিজেদের মধ্যে থাকা বিভেদ ভুলে সবার আগে কলম সৈনিকদেরকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, সাংবাদিকেরা ঐক্যবদ্ধ থাকলেই, কেউ সাংবাদিকদেরকে হয়রাণী করতে কখনও সাহস পাবেনা। সুতরাং সাংবাদিকদেরকেই তাদের নিরাপত্তার জন্য ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। এরপরও যদি নবীনগরে কোন সাংবাদিক অন্যায়ভাবে হয়রাণীর শিকার হোন, আমি আমার সর্বোচ্চ শক্তি নিয়ে আপনাদের পাশে দাঁড়াবো ইনশাল্লাহ।
উল্লেখ্য, এত বিপুল পরিমান (প্রায় অর্ধশত) স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে ঢাকায় বসে নবীনগরের কোন রাজনৈতিক দলীয় নেতার আমন্ত্রণে এই প্রথমবারের মতো এ ধরণের স্বত:স্ফুর্ত মতবিনিময় কিংবা সৌজন্য সাক্ষাতের ঘটনা ঘটে। তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নেরও খোলামেলা জবাব দেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com