মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০১:০৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
যুবদলের দোষ আওয়ামী লীগের উপর চাপিয়ে বিবৃতির প্রতিবাদ। কালেন খবর সালিশে চুলের মুঠি ধরে মহিলাকে প্রকাশ্যে মারধর ভিডিও ভাইরাল ডিইউজে(একাংশ) সভায় নারী সাংবাদিককে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ। কালের খবর নবীনগরের সলিমগঞ্জে অবৈধ স্বর্ণ বেচাকেনার বৈধ হাট । কালের খবর প্রায় ৩ বছর পর মোরেলগঞ্জে উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন। কালের খবর আখাউড়ায় আইনমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ঝাড়ু মিছিল। কালের খবর বোয়ালমারীতে যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত আনিসুজ্জামানের মতবিনিময়। কালের খবর বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ আ.লীগের বিরুদ্ধে। কালের খবর নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সবুজকে অপসারণ : ভারপ্রাপ্ত শাওন স্বপন কুমার সাহা সভাপতি ও স্বপন সূত্রধর সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত। কালের খবর
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই : সেতুমন্ত্রী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই : সেতুমন্ত্রী

কালের খবর ডেস্ক :

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আইন চূড়ান্ত হওয়ার আগে আইনটি নিয়ে আলোচনা হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ পিআইবিতে প্রিন্ট এবং ইলেক্টনিক মিডিয়ার মালিক ও সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

দুই ঘণ্টাব্যাপী চলা বৈঠক শেষে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি নিয়েই বেশি আলোচনা হয়েছে। আমি বলেছি, বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার পথে কোনো বাঁধা থাকবে না।

৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই জানিয়ে তিনি বলেন,‘উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই। এটা নিয়ে সবার মধ্যে এটা ভুল ধারণা ছিলো। আইনটা অনুমোদন পেয়ে গেছে!

আইন পাশের প্রক্রিয়া তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, কেবিনেটে যেকোনো প্রস্তাব দুইভাবে বিবেচিত হয়। প্রথম নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়, তারপর এটি ভেটিংয়ে (পরীক্ষা-নীরিক্ষা) চলে যায় ল’মিনিস্ট্রিতে। এখন এটি সে পর্যায়ে আছে।

আইনটি চূড়ান্তভাবে অনুমোদন পেতে আবারো কেবিনেটে আসবে। কেবিনেট থেকে যাবে পার্লামেন্টে। পার্লামেন্টে উত্থাপনের পর খসড়া পাঠানো হবে স্ট্যাণ্ডিং কমিটিতে। এ সময় মিডিয়া মালিক স্টেক হোল্ডার রয়েছেন তাদের সঙ্গে আলোচনার সুযোগ আছে। আলোচনার দরজাও খোলা আছে। কাজেই এ নিয়ে এ মুহূর্তে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই বলে জানান তিনি।

বৈঠকের আলোচ্য বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে কাদের বলেন, এখানে আমাদের পক্ষ থেকে দিক নির্দেশনা দেয়ার কোনো এজেণ্ডা ছিলো না। সুশাসনের জন্য সরকার এবং মিডিয়া কিভাবে এক সঙ্গে কাজ করতে পারে সে বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি। খোলামেলা পরিবেশে সবাই মন খুলে বলেছেন। আমরা শুনেছি আবার তাদের কাছ থেকে কিছু কিছু অবজারভেশন-কমেন্ট নিয়েছি।

সরকার ও গণমাধ্যমের মালিকপক্ষের মধ্যে এ নিয়ে আলোচনা চলমান থাকবে বলেও জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী হাছানুল হক ইনু, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম উপস্থিত ছিলেন।

কালের খবর/১৫/২/১৮

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com