মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৫:০২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ইপিজেড থানা পুলিশের অভিযানে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকায় নারী ও পুরুষ মিলে (১২) জন গ্রেফতার। কালের খবর মুরাদনগরে আনারসে ভোট চেয়ে গণসংযোগ করলেন ব্যারিস্টার অনন। কালের খবর যশোরের কেশবপুরে শান্তি স্থাপন ও সহিংসতা নিরসনে (পিএফজি, র) সভা অনুষ্ঠিত। কালের খবর রায়পুরার ছাত্রলীগ নেতা মামুনকে জড়িয়ে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক ধর্ষণ মামলাসহ একাধিক মামলা করায় সর্বমহলে নিন্দা। কালের খবর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এর ৫৬ ধারার প্রয়োগ’ শীর্ষক সেমিনারে.প্রধান অতিথি সিএমপি কমিশনার। কালের খবর সহিংসতা নয়-শান্তির জন্য আমরা-এই শ্লোগান কে সামনে রেখে বাঘারপাড়ায় অনুষ্ঠিত হলো (পিএফজির) সম্মিলিত কার্যক্রম ও পরিকল্পনা প্রণয়ন সভা। কালের খবর ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল ইসলাম সাময়িক বরখাস্ত। কালের খবর বাঘারপাড়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাংবাদিক লক্ষণ চন্দ্র মন্ডলের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক। কালের খবর যুবদের নেতৃত্বে সঠিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহনের ফলে , সমাজে সহিংসতা নিরসন ও শান্তি স্থাপন হতে পারে। কালের খবর কোরবানির পশু প্রস্তুত করতে ব্যস্ত সাতক্ষীরার খামারিরা। কালের খবর
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই : সেতুমন্ত্রী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই : সেতুমন্ত্রী

কালের খবর ডেস্ক :

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আইন চূড়ান্ত হওয়ার আগে আইনটি নিয়ে আলোচনা হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ পিআইবিতে প্রিন্ট এবং ইলেক্টনিক মিডিয়ার মালিক ও সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

দুই ঘণ্টাব্যাপী চলা বৈঠক শেষে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি নিয়েই বেশি আলোচনা হয়েছে। আমি বলেছি, বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার পথে কোনো বাঁধা থাকবে না।

৩২ ধারা নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই জানিয়ে তিনি বলেন,‘উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই। এটা নিয়ে সবার মধ্যে এটা ভুল ধারণা ছিলো। আইনটা অনুমোদন পেয়ে গেছে!

আইন পাশের প্রক্রিয়া তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, কেবিনেটে যেকোনো প্রস্তাব দুইভাবে বিবেচিত হয়। প্রথম নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়, তারপর এটি ভেটিংয়ে (পরীক্ষা-নীরিক্ষা) চলে যায় ল’মিনিস্ট্রিতে। এখন এটি সে পর্যায়ে আছে।

আইনটি চূড়ান্তভাবে অনুমোদন পেতে আবারো কেবিনেটে আসবে। কেবিনেট থেকে যাবে পার্লামেন্টে। পার্লামেন্টে উত্থাপনের পর খসড়া পাঠানো হবে স্ট্যাণ্ডিং কমিটিতে। এ সময় মিডিয়া মালিক স্টেক হোল্ডার রয়েছেন তাদের সঙ্গে আলোচনার সুযোগ আছে। আলোচনার দরজাও খোলা আছে। কাজেই এ নিয়ে এ মুহূর্তে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই বলে জানান তিনি।

বৈঠকের আলোচ্য বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে কাদের বলেন, এখানে আমাদের পক্ষ থেকে দিক নির্দেশনা দেয়ার কোনো এজেণ্ডা ছিলো না। সুশাসনের জন্য সরকার এবং মিডিয়া কিভাবে এক সঙ্গে কাজ করতে পারে সে বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি। খোলামেলা পরিবেশে সবাই মন খুলে বলেছেন। আমরা শুনেছি আবার তাদের কাছ থেকে কিছু কিছু অবজারভেশন-কমেন্ট নিয়েছি।

সরকার ও গণমাধ্যমের মালিকপক্ষের মধ্যে এ নিয়ে আলোচনা চলমান থাকবে বলেও জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

বৈঠকে তথ্যমন্ত্রী হাছানুল হক ইনু, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম উপস্থিত ছিলেন।

কালের খবর/১৫/২/১৮

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com