শনিবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নাসিকে জমে উঠেছে নির্বাচনী উৎসব। কালের খবর হাবিবুর রহমান স্বপনের মাতৃবিয়োগ। কালের খবর মাদক,সন্ত্রাস ও ইভটিজিং নির্মূলে খেলাধূলার ভূমিকা অপরিসীম। কালের খবর নবীনগরে আইনশৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতি, অগ্নিসংযোগ আতঙ্কে সাধারণ মানুষ। কালের খবর নবীনগরে জাতীয় পার্টির ৩৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত। কালের খবর সারা বছরজুড়ে যশোরের যত আলোচিত ঘটনা। কালের খবর হান্ডিয়াল প্রেসক্লাবে দ্বিবার্ষিক কমিটি গঠন। কালের খবর নবীনগরে শপথ গ্রহণের পূর্বেই ইউ/পি সদস্য খুরশেদ আলম জুতাপেটা করলেন এক বৃদ্ধাকে। কালের খবর ডিঙ্গামানিক ইউনিয়ন জুড়েই যেন চশমা প্রতিকে ভোট প্রার্থনা। কালের খবর মেহেরপুরে জোসনা বেকারিকে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা। কালের খবর
যশোরের শার্শায় শোকজের জবাবের আগেই যুবলীগ নেতা বহিষ্কার! কালের খবর

যশোরের শার্শায় শোকজের জবাবের আগেই যুবলীগ নেতা বহিষ্কার! কালের খবর

শার্শা (যশোর) প্রতিনিধি, কালের খবর : যশোরের শার্শায় শোকজের জবাবের আগেই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সোহরাব হোসেনকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে।
দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, শার্শা সদর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসেনকে দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ায় স্বতন্ত্রপ্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এনিয়ে গত ১৭ নভেম্বর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম চাকলাদার (রেন্টু) স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে ২২ নভেম্বর দুপুর ১২টার মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়।
এদিকে শোকজের জবাব দেওয়ার আগেই ২০ নভেম্বর বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে সোহরাব হোসেনসহ শার্শার ১০ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের ১৫ বিদ্রোহী প্রার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, যোগ্য প্রার্থীদের মনোনয়ন না দেওয়ায় শার্শার ১০ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এতে দলের নিবেদিত নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে
মো. সোহরাব হোসেন জানান, আমাকে শোকজ করেছে জেলা যুবলীগ। ২২ নভেম্বর বেলা ১২টার মধ্যে আমি জবাব দিব। কিন্তু জেলা আওয়ামী লীগ আমাকে বহিষ্কার করেছে। এটি করার কোনো এখতিয়ার তাদের নেই। কারো ইন্ধনে তারা কাজটি করেছেন। এ ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ বিব্রত।
এ বিষয়ে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম চাকলাদার (রেন্টু) জানান, কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে মো. সোহরাব হোসেনকে শোকজ করা হয়েছে। শোকজের জবাব সন্তোষজনক না হলে যুবলীগ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। তিনি তো আওয়ামী লীগের কেউ নন। শোকজের জবাব দেওয়ার সুযোগ না দিয়ে কেন তাকে বহিষ্কার করা হলো আওয়ামী লীগ নেতারা ভালো জানেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com