বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
অসৌজন্যমূলক আচরণের প্রতিবাদে অনুষ্ঠান বর্জন সাংবাদিকদের। কালের খবর সিরাজগঞ্জে চলনবিলে শামুক-ঝিনুক নিধন করছে অসৎ ব‍্যবসায়ীরা। কালের খবর। মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ইউপি চেয়ারম্যনের বিরুদ্ধে নারীকে ধর্ষন ও গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ। কালের খবর বিরামপুরে মহা সড়ক ঢাকা মোড়ে পাথরবাহী ট্রাকের চাঁপায় ডিভাইডার ভেংঙ্গে যাতায়াতের দূর্ভোগ। কালের খবর বাঘারপাড়ায় ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ এর (এজেন্ট ব্যাংক ) শাখার উদ্বোধন। কালের খবর রসে ভরা টস টসে ভিটামিন সি, যুক্ত পেয়ারার উপকারিতা। কালের খবর দালাল ছাড়া হালাল হয় না কিছুই। কালের খবর সখীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ যুবক নিহত। কালের খবর সীতাকুন্ড হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ আমির ফারুক সবসময় মানুষের সেবায় নিয়োজিত। কালের খবর ১২ ফুটের শিকলে এক যুগ ধরে বন্দি সহিদুল। কালের খবর
মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ইউপি চেয়ারম্যনের বিরুদ্ধে নারীকে ধর্ষন ও গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ। কালের খবর

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ইউপি চেয়ারম্যনের বিরুদ্ধে নারীকে ধর্ষন ও গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ। কালের খবর

মোঃ হাবিবুর রহমান, মানিকগঞ্জ থেকে, কালের খবর  : মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় জনৈক নারী (২১) কে ধর্ষণ ও জোড় করে গর্ভপাত ঘটানোর অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মিজানুর রহমান মিঠুর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত মিজানুর রহমান মিঠু উপজেলার জামশা ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি।

এঘটনায় ভুক্তভোগী ওই নারী মানিকগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেছেন। মামলাটি আমলে নিয়ে আদালত জুডিশিয়াল তদন্তের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান বাদীপক্ষের আইনজীবি মোঃ জাকির হোসেন।

মামলাসুত্র জানা যায়, ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিঠু ওই নারীর একটি পারিবারিক সমস্যাকে সমাধান করে দেওয়ার সুত্র ধরে প্রথমে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এরপর ২০১৯ সালের ১ জুলাই ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিঠু ওই নারীকে ইউনিয়ন পরিষদের একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে তাকে অনৈতিক প্রস্তাব দেন। ওই সময় ওই নারী তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় পরবর্তিতে এফিডেফিটের মাধ্যমে বিয়ের ফাঁদে ফেলে দৈহিক সম্পর্ক শুরু করেন। এক পর্যায়ে ঢাকা জেলার দোহার উপজেলার মেঘুলা এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করতে থাকেন। এতে ওই নারী গর্ভবতী হলে তাকে জোড় করে ওষুধ খাইয়ে গর্ভপাত ঘটান। এতে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর পার্শ্ববর্তী নবাবগঞ্জের বান্দুরা মর্ডাণ ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনোস্টিক সেন্টারে চিকিৎসা করানো হয়। কিন্তু যখন ওই নারী জানতে পারে তাদের এ বিয়ের আইনগত কোন বৈধতা নেই। এরপর ওই নারী ইউপি চেয়ারম্যানকে পুনরায় বৈধ বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে তাতে রাজি না হয়ে ২০২০ সালের ২৪ মার্চ বাদীনিকে জোরপূর্বক বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে হত্যার চেষ্টা করেন। তখন পরিস্থিতি সামাল দিতে না পারায পুনরায় চেয়ারম্যান মিঠু তার ইউনিয়নের দক্ষিণ জামশা গ্রামের রতন বসাকের বাড়ি ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করতে থাকেন। এরপর শুরু ওই নারীর উপর আবার মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন। এবিষয়ে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও থানার সহযোগীতা না পেয়ে অবশেষে আদালতে মামলা দায়ের করেন।

জামশা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মিজানুর রহমান মিঠু বলেন, আমি ওই নারীকে বৈধভাবে বিয়ে করে তিন বছর যাবত তার ভরণপোষণসহ সকল দায়িত্ব পালন করে আসছি। আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে আমার প্রতিপক্ষ গ্রুপ তাকে ব্যবহার করে আমার বিরুদ্ধে সাজানো মামলা দায়ের করে আমাকে আগামী নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত করার চেষ্টা করছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com