রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৯:১৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলের আরও ৩শ’ গৃহহীন পরিবারের স্বপ্ন পূরণ। কালের খবর সব নৌযানের রুট পারমিট বাধ্যতামূলক হচ্ছে। কালের খবর কামরাঙ্গীরচরে কিশোর গ্যাং হোতা মাসুদ মিন্টু ককটেলসহ গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগরের নাটঘরে ফসলি জমির পানি চলাচলের সরকারী জায়গা দখলের হিড়িক। কালের খবর তাড়াশে নওগাঁ হাটে নৈরাজ্য : ইজারাদারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ। কালের খবর দশমিনায় আইনজীবীদের মানববন্ধন। যশোরের বাঘারপাড়ায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ইউপি- সচিবের মৃত্যু। কালের খবর শাহজাদপুরে সাবেক স্বাস্থ্য-মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের ১ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল। কালের খবর শ্রীমঙ্গলে মসজিদ নির্মানের জন্য ৩৫০ বস্তা সিমেন্ট প্রদান করেছে বিরাইমপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থা। কালের খবর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীরমুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর মাস্টারের দাফন সম্পন্ন। কালের খবর
না.গঞ্জ বাসির দূর্ভোগ প্রতিনিয়ত যানজট, প্রয়োজন ফুট ওভার ব্রিজ। কালের খবর

না.গঞ্জ বাসির দূর্ভোগ প্রতিনিয়ত যানজট, প্রয়োজন ফুট ওভার ব্রিজ। কালের খবর

কালের খবর ডেস্ক  :  প্রতিদিন সকাল হতে গভীর রাত পর্যন্ত নগর ও তার আশেপাশে জেলা জুড়ে সৃষ্ট হচ্ছে অসহনীয় যানজট। যার ফলে রাস্তায় রাস্তায় দুর্ভোগের অন্ত নেই মানুষের। সময় মূল্যহীন হয়ে পড়েছে ব্যস্ততম নগর নারায়ণগঞ্জবাসীর জীবন চলায়। চিটাগাং রোড কিংবা সাইনবোর্ড হয়ে নারায়নগঞ্জ শহরের বুক চিড়ে পঞ্চবটি হয়ে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কে রাজধানীতে প্রবেশ করতে হচ্ছে। সেখানেও নেই স্বস্তি। দূর্ভোগ লাঘোবে নগরীর পঞ্চবটি, চাষাড়া, ২নং রেল গেট এ প্রয়োজন তিনটি ফুট ওভার ব্রিজ।

গভীর রাত পর্যন্ত এ যানজট তীব্র আকার ধারণ করে নারায়নগঞ্জের চাষাড়া থেকে সাইনবোর্ড এলাকা, চিটাগাং রোড থেকে মেট্রো হল হয়ে চাষাঢ়া, এদিকে পঞ্চবটি হয়ে পাগলা, আলীগঞ্জ পর্যন্ত ছাড়িয়ে যায়। ভোরের দিকে কিছুটা কম থাকলেও সকালে সূর্যের সাথে সাথে আবারো তীব্র আকার ধারণ করে যানজট। পঞ্চবটি একটি ব্যস্তবহুল ত্রিমাথা মোড়; যার একদিকে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ মহাসড়ক অন্য দিকে নারায়ণগঞ্জ (চাষাড়া) সংযোগ সড়ক।  এ পাশেই  নাসিক ট্রাক স্ট্যান্ড, বিসিক নগরী, নাসিক এডভ্যাঞ্চার ল্যান্ড অবস্থিত।

তুলনা মূলক ভাবে জেলা শহরে ট্রাফিক পুলিশের সল্পতা,অপরিকল্পিত গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা ছাড়াই ভবন নির্মান ব্যতীত সড়কের সংকির্নতা রয়েছেই। এছাড়াও অনেকাংশে হেল্পারদিয়ে কাউন্টার সিস্টেম গাড়ি গুলো চলছে বলে আভিযোগ তুলেন কেউ কেউ। চালকদের অজ্ঞতা জেরা ট্রাফিক বিভাগের অব্যস্থাপনায় জট সৃষ্টির কারন। জেলার চিটাগাং রোড,মড়গাপাড়া ফুট ওভার ব্রিজ থাকলেও আতি প্রয়োজনীয় ঘনবসতির্পূন শিল্পের নগরীতে নেই কোন ফুট ওভার ব্রিজ। বাংলাদেশের মাধ্যে একমাত্র নারায়ণগঞ্জ জেলা শহরের বুকেই পাশাপাশি ট্রেন, লঞ্চ এবং বাস টার্মিনাল অবস্থিত।

এদিকে, যানজটের ফলে যাত্রীদেরকেও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। পাশপাশি গরমের কারণে অনেকেই অসুস্থ্য হয়ে পড়েছেন।

শহরের প্রান কেন্দ্র চাষাড়া এবং দুই নং রেল গেইট দিয়ে শিক্ষার্থী, কমর্জীবীসহ নানা শ্রেণী-পেশার মানুষের প্রতিনিয়ত চলাচল করছে। শহরের ঐহিত্যবাহী সরকারী তোলারাম কলেজ, সরকারী মহিলা কলেজ, নারায়ণগঞ্জ কলেজসহ আশে পাশে কয়েকটি স্কুলের কয়েক হাজার শিক্ষার্থীকে প্রতিনিয়তই জীবনের ঝুঁকি রাস্তা পারাপার হতে হয়। শিল্পাঞ্চল নারায়ণগঞ্জের অসংখ্য শ্রমিক আশেপাশের কারখানা গুলোতে কর্মরত। তাদেরকেও রাস্তা পার হতে হয় ভয়ে ভয়ে। ট্রাফিক সিগন্যাল থাকলেও বেপোয়োরা গাড়ি চালকরা পাল্লা দিয়ে গাড়ি চালানোর প্রতিযোগিতার কারনে হরহামেশাই ঘটছে দূর্ঘটনা। আর তাই এই রুটে চলাচলকারী ভুক্তভোগী পথচারীদের প্রাণের দাবীতে পরিনত হয়েছে চাষাড়া এবং দুই নং রেল গেইটে দুইটি ফুটওভার ব্রিজ এবং পঞ্চবটি মোড়ে একটি ফুটওভার ব্রিজ প্রয়োজন।

প্রতিদিন এই পথে যাতায়াতকারী তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থী জুয়েল জানান, এখানে সড়কের উভয়পাশে বিপরীতমুখী দুটি বাসস্টপেজ থাকায় একটি ব্যস্ততম ‘স্টপেজ’ হিসাবে গণ্য। তাছাড়া উভয় পাশের ‘বাসস্টপেজ’ সংলগ্ন ৩০ ফুট প্রশস্ত সংযোগ সড়ক থাকায় শত শত পথচারী ছাড়াও নানা ধরনের যানবাহন চলাচলের কারণে স্থানটিতে সব সময় যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে স্থানটিতে সড়ক বিভাজক পেরিয়ে রাস্তা পারাপার পথচারীদের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। তাই জরুরি ভিত্তিতে এখানে একটি পথচারী সেতু নির্মাণ প্রয়োজন। বিষয়টি সরেজমিন যাচাই করে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক, সংসদ সদস্য, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা:সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিভিন্ন সময় ফুট ওভার ব্রিজ নিয়ে আশার বাণী শুনালেও বাস্তবে পতিফলন এখনও পাওয়া যায়নি।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com