রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব শ্রীপুর উপজেলা শাখার কমিটি গঠন। কালের খবর মসজিদগুলোতে প্রবেশে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ রাজধানীর প্রবেশপথে সর্তক ৩ থানা পুলিশ। কালের খবর “পোরশা” পুরইল এ মসজিদের শুভ উদ্বোধন। কালের খবর শাহজাদপুরে বাঁশের সাঁকোয় ১০ গ্রামের ৫০ হাজার মানুষের ঝূঁকিপূর্ণ চলাচল। কালের খবর তালতলীতে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ, অভিযুক্ত গ্রেফতার। কালের খবর “পোরশা “ধুলাডাঙ্গা গ্রামে খড়ের পালায় আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। কালের খবর মানুষের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিতে চান আলহাজ্ব আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সী। কালের খবর ভূরুঙ্গামারীর মেয়ে উত্তীর্ণ হলেন মেডিকেলে, চিন্তার ভাঁজ হকার বাবার কপালে। কালের খবর সীতাকুণ্ডে সম্মাননা পেলেন নারী নেত্রী সুরাইয়া বাকের। কালের খবর শ্রীপুরে লিচুর মধু সংগ্রহসহ লিচুর উৎপাদনও বাড়ছে। কালের খবর
কুমিল্লা বিভাগ বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন। কালের খবর

কুমিল্লা বিভাগ বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন। কালের খবর

কালের খবর রিপোর্ট : ১৯৬০ সালে স্বতন্ত্র জেলার মর্যাদা পায় কুমিল্লা। দেশের অন্যতম প্রাচীন এ জেলায় ৬২ লাখের বেশি মানুষের বাস।

রাজনীতি, অর্থনীতি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য কোনো কিছুতেই পিছিয়ে নেই কুমিল্লার মানুষ। তবুও কেন কুমিল্লাকে বিভাগ করা হবে না? এমনই প্রশ্ন জেলার সচেতন ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মনে। কুমিল্লা বিভাগ হওয়া এবং না হওয়া নিয়ে চায়ের দোকানে, স্কুল-কলেজে, পাড়া মহল্লায় মানুষের সাথে কথা বলেছেন অফিস রিপোর্টার।

কথা হয় ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্র আহসান কবীর সাথে তিনি বলেন, দেশের নবম বিভাগ হচ্ছে কুমিল্লা, আইনমন্ত্রী কুমিল্লা এসেই বলেছেন, কুমিল্লা বিভাগ হওয়ার সিদ্ধান্ত এবং সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে গেছে। এখন ঘোষণার অপেক্ষায় কুমিল্লা বিভাগ। আইনমন্ত্রী কি মিথ্যা বলবেন ভাই?

কুমিল্লা ইবনে তাইমিয়া স্কুলের নবম শ্রেণী ছাত্র রায়হান বলেন, দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রাম অবশেষে সফলতার পথে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বছরখানেক পূর্বে “কুমিল্লা বিভাগ” বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছেন। আমরা আশায় বুক বেঁধেছি। কিন্তু এখন নতুন করে আরেক ঝামেলা শুরু হয়েছে। এখন কুমিল্লা বাদ দিয়ে নতুন বিভাগের নাম ‘ময়নামতি’ করার কথা হচ্ছে। আমি এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাই।

কুমিল্লা বিভাগ নিয়ে আলোচনা করার আগে বাংলাদেশের অন্যান্য বিভাগসমূহ সম্পর্কে সামান্য আলোকপাত করা প্রয়োজন।

বর্তমানে বাংলাদেশের মোট প্রশাসনিক বিভাগের সংখ্যা আটটি। এর মধ্যে সবচেয়ে নবীন “ময়মনসিংহ বিভাগ”। ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিভাগের চারটি জেলা- জামালপুর, শেরপুর, ময়মনসিংহ ও নেত্রকোনা নিয়ে নবীনতম বিভাগটি গঠিত হয়।

ঢাকা বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা তেরোটি। এগুলো হচ্ছে- কিশোরগঞ্জ, গাজীপুর, গোপালগঞ্জ, টাঙ্গাইল, ঢাকা, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, রাজবাড়ী ও শরীয়তপুর। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় জেলা হচ্ছে টাঙ্গাইল। তারপরেও এ বিভাগের নাম “ঢাকা”; বুড়িগঙ্গা বা জাহাঙ্গীরনগর নয়।

চট্টগ্রাম বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা এগারোটি। এগুলো হচ্ছে- কুমিল্লা, বি-বাড়িয়া, চাঁদপুর, বান্দরবান, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ফেনী, লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালী। এ বিভাগের নামও চট্টগ্রাম; সাঙ্গু, কর্ণফুলী কিংবা হরিকেল নয়।

রাজশাহী বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা আটটি। এগুলো হচ্ছে- চাঁপাইনবাবগঞ্জ, জয়পুরহাট, নওগাঁ, নাটোর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া ও সিরাজগঞ্জ। এ বিভাগের নামও রাজশাহী; বরেন্দ্র, পদ্মা, যমুনা কিংবা চলন নয়।

খুলনা বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা দশটি। এগুলো হচ্ছে- কুষ্টিয়া, খুলনা, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ, নড়াইল, বাগেরহাট, মাগুরা, মেহেরপুর, যশোর ও সাতক্ষীরা। এ বিভাগের নামও খুলনা; জাহানাবাদ, রূপসা কিংবা মংলা নয়।

বরিশাল বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা ছয়টি। এগুলো হচ্ছে- বরিশাল, পটুয়াখালী, ভোলা, পিরোজপুর, বরগুনা ও ঝালকাঠি। এ বিভাগের নামও বরিশাল; মেঘনা, চন্দ্রদ্বীপ কিংবা কুয়াকাটা নয়।

সিলেট বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা চারটি। এগুলো হচ্ছে- সিলেট, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ। এ বিভাগের নামও সিলেট; জালালাবাদ, কুশিয়ারা, সুরমা, হাকালুকি কিংবা জাফলং নয়।

রংপুর বিভাগ

এ বিভাগে বর্তমানে জেলা আটটি। এগুলো হচ্ছে- কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী, পঞ্চগড়, রংপুর ও লালমনিরহাট। এ বিভাগের নামও রংপুর; উত্তর বাংলা, ধরলা কিংবা তিস্তা নয়।

২০১৫ সালের ২৬ জানুয়ারী মন্ত্রীসভার বৈঠকে নতুন দুটি বিভাগের অনুমোদন করা হয়েছে। এর একটি ফরিদপুর- যা ঢাকা বিভাগের পাঁচটি জেলা নিয়ে গঠিত হওয়ার কথা। আর অন্যটি কুমিল্লা- যা চট্টগ্রাম বিভাগের কুমিল্লা, বি-বাড়িয়া, চাঁদপুর, ফেনী, লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালী – এ ছয়টি জেলা নিয়ে গঠিত হওয়ার কথা। এ জেলাগুলোর মধ্যে ভৌগোলিক অবস্থান এবং ঐতিহাসিক গুরুত্ব কুমিল্লা জেলারই সবচেয়ে বেশি। এর সদর দপ্তরও কুমিল্লায়। এতোদিন ধরে আলোচনার টেবিলে কুমিল্লা নামটি থাকলেও হঠাৎ করে ময়নামতি নাম কেন আসলো? এখানে কোন চক্রান্ত নেই তো?

আমরা কুমিল্লা বিভাগের দ্রুত বাস্তবায়ন চাই। গোমতী, ময়নামতি কিংবা সমতট নামে কোন বিভাগ আমরা মানবো না। সব বিভাগের নাম জেলার নামে হলে আমাদের বেলায় সমস্যা কোথায়? কুমিল্লা নাম দিলে যদি অন্যদের বঞ্চিত করা হয়, তবে ময়নামতি নাম দিলে কি তারা মধুর হাঁড়ি পেয়ে যাবে? ময়নামতি তো কুমিল্লারই একটা অংশ। ছোট্ট একটা ইউনিয়নের নামে যদি বিভাগের নামকরণ হতে পারে, তবে প্রাচীন ও সমৃদ্ধ জেলার নামে কেন নয়?

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com