রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০১:১৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কীভাবে নষ্ট হয় ধর্ষণের আলামত ?। কালের খবর ৬০ হাজার টাকায় ধর্ষণের মীমাংসা করলেন নারী কাউন্সিলর । কালের খবর  সিনহা হত্যা মামলার পরিণতি কী?। কালের খবর দক্ষিণ আইচা’য় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন। কালের খবর মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে ১৫ দফা দাবিতে নৌযান শ্রমিক লীগের বিক্ষোভ মিছিল। কালের খবর তালতলীর উপ-নির্বাচনে নৌকার বিজয়। কালের খবর অবৈধভাবে চলছে কয়েল কারখানা, নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার গ্যাস! নীল কাগজে লেখালেখি করে বিয়ে! এসআই’র বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা নবীনগরের নূরজাহানপুর গ্রামে হানিফ মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে মনেক বাহিনী। কালের খবর হবু শ্বশুরের সঙ্গেই বিয়ে হল কনের ! কালের খবর
বরগুনার তালতলীতে প্রতিপক্ষকে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেল ক্রিমিনাল। কালের খবর

বরগুনার তালতলীতে প্রতিপক্ষকে মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেল ক্রিমিনাল। কালের খবর

মোঃ রফিকুল ইসলাম, তালতলী প্রতিনিধি। কালের খবর :
বরগুনার তালতলীতে জমিজমার বিরোধের জের ধরে অটো চালককে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে প্রতিপক্ষই ফেঁসে গেলো। ইয়াবা চক্রের আবুল হোসেন নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকি দুইজন পলাতক রয়েছেন।
শনিবার (১০ অক্টোবর) সকালে তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান মিয়া বিষয়টি নিশ্চত করেন। এঘটনায় জড়িত আবুল হোসেন(২৭), নিজাম জোমাদ্দারসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা হয়েছে।
গ্রেফতারকৃত আবুল হোসেন (২৭) উপজেলার ঠং পাড়া এলাকার মোঃ ইউসুফ আলীর ছেলে।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মৌরুভী এলাকার জহিরুলের পরিবারের সাথে একই এলাকার জাহাঙ্গীর জোমাদ্দার ও ফারুক জোমাদ্দারসহ তাদের পরিবারের সাথে জমিজমার বিরোধ চলে আসছিলো। এরই জের ধরে ফারুক জোমাদ্দারের ছেলে নিজাম জোমাদ্দার তাদের প্রতিপক্ষ জলিল মুন্সীর ছেলে জহিরুলকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর পরিকল্পনা করেন। নিজাম জোমাদ্দার আবুলসহ ও তার সহযোগিদের চার হাজার টাকার চুক্তি করেন।
এর পরে শুক্রবার (৯ অক্টোবর) সন্ধ্যার দিকে উপজেলার সদর রোডের বাসস্টান এলাকায় জহিরুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি অটো-বোরাক থামিয়ে দোকান থেকে মালামাল ক্রয়ের জন্য যায়। এই সুযোগে ৩ পিস ইয়াবা ও ৫ গ্রাম গাঁজা জহিরুলের অটো-বোরাকের সিটের নিচে রাখেন আবুল হোসেন ও তার তিন সহযোগি। এরপরে পুলিশকে খবর দেয় আবুল। পুলিশ গিয়ে সিটের নিচ থেকে ইয়াবা ও গাঁজা উদ্ধার করে ও জহিরুল কে আটক করেন।
এদিকে জহিরুল কে আটকের পরে বিষয়টি পুলিশের সন্দেহ হলে তথ্যদাতা আবুল হোসেনকে শুক্রবার রাতেই আটক করে প্রাথমিভাবে জিজ্ঞাসা করেন। পরে তিনি বলেন জহিরুলের পরিবারের সাথে জমিজমার বিরোধের জেরে তাদের প্রতিপক্ষরা নিজাম জোমাদ্দার ৪ হাজার টাকা দেয়। ঐ টাকা দিয়ে ইয়াবা ও গাঁজা কিনে গাড়িতে রেখে তাকে ফাঁসানো হয়েছে।
তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, জহিরুল ইসলাম নামের একজনকে ৩ পিস ইয়াবা ও ৫ গাঁজাসহ আটক করা হয়। পরে খোঁজখবর নিয়ে জানা যায় জহিরুল জীবনেও কোনোদিন মাদকের সাথে জড়িত না। যারা মাদকের তথ্য দিয়ে তারাই গাড়িতে মাদক রেখে জহিরুল কে ফাঁসিয়েছে। তাদের জমিজমা নিয়ে বিগতদিনে ঝামেলা ছিলো। এরই জের ধরে তারা জহিরুল কে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করেন। এই এঘটনায় জড়িত আবুল হোসেন ও নিজামা জোমাদ্দারসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মাদক মামলা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে বাকি দুই জনের নাম বলা যাচ্ছে না। এই দুইজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তিনি আরও বলেন নির্দোষ জহিরুলকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com