বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০১:১০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নড়বড়ে সাঁকোতে হাজারও মানুষের পারাপার তাড়াশ উপজেলার গ্রামগুলোতে বিদ্যুতের লোডশেডিং ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বাংলাদেশী তৈরি টুটু পিস্তল, চাইনিজ কুড়াল ৫০০ গ্রাম গাঁজা সহ কিশোর গ্যাং এর ৪ সদস্য গ্রেফতার। কালের খবর যুবদলের দোষ আওয়ামী লীগের উপর চাপিয়ে বিবৃতির প্রতিবাদ। কালেন খবর সালিশে চুলের মুঠি ধরে মহিলাকে প্রকাশ্যে মারধর ভিডিও ভাইরাল ডিইউজে(একাংশ) সভায় নারী সাংবাদিককে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ। কালের খবর নবীনগরের সলিমগঞ্জে অবৈধ স্বর্ণ বেচাকেনার বৈধ হাট । কালের খবর প্রায় ৩ বছর পর মোরেলগঞ্জে উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন। কালের খবর আখাউড়ায় আইনমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে ঝাড়ু মিছিল। কালের খবর বোয়ালমারীতে যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত আনিসুজ্জামানের মতবিনিময়। কালের খবর
চোরের ফেলে যাওয়া গরুর মালিকানা ঠিক করবে আদালত। কলের খবর

চোরের ফেলে যাওয়া গরুর মালিকানা ঠিক করবে আদালত। কলের খবর

সাঈদুর রহমান,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, কালের খবর : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে চোরের ফেলে যাওয়া গরুর দাবি করছে একাধিক ব্যক্তি। ফলে বাধ্য হয়ে পুলিশ গরুগুলোর মালিকা ঠিক করতে ঝিনাইদহ আদালতে প্রতিবেদন পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। গরু দাবি করা ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন কালীগঞ্জ পৌর শহরের নিশ্চিন্তপুর এলাকার ইমান আলীর তিনটি, মধুগঞ্জ পাড়ার মুন্নার একটি, ঢাকালে পাড়ার পারভেজ রহমান রচি একটি ও পৌরসভার পানির লাইনের কর্মচারী নুর ইসলাম একটি।
এর আগে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার ৭নং রায়গ্রাম ইউনিয়নের দুলালমুন্দিয়া গ্রামে চোরেরা ছয়টি গরু ফেলে রেখে যায়। বুধবার সকালে গ্রামে গরুগুলো দেখতে পেয়ে গ্রামবাসি আটকে রাখে। পরে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গরুগুলো থানা পুলিশের হাতে তুলে দেন। গরু পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ গরু দেখতে আসে। বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত চারজন ব্যক্তি গরুগুলোর মালিকানা দাবি করেন। বিষয়টি নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দে পড়ে যান থানা পুলিশ। পরে বৃহস্পতিবার বিকালে গরুর মালিকানা নিশ্চিত করতে ঝিনাইদহে আদালতে প্রতিবেদন পাঠিয়ে দেন। সেখান থেকে গরুরর মালিকরা উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে গরু গ্রহন করবেন বলে জানায় পুলিশ।
গরুর দাবিদার নুর ইসলাম জানান, উদ্ধার হওয়া গরুর মধ্যে আমার একটি কালো রঙের ষাড় গরু রয়েছে। গত মঙ্গলবার দিবাগত গভির রাতে বাড়ি থেকে হারিয়ে যায়। বুধবার থেকে আমি আমার গরু পেতে থানায় ঘুরছি। বৃহস্পতিবার থানা থেকে জানিয়ে দেয় আদালত থেকে গরু নিতে হবে। এখন আদালতে যাচ্ছি বলে জানান নুর ইসলাম।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, গরু পাওয়ার পর থেকে অনেকে মালিকানা দাবি করছেন। এখনো অনেকে গরু দাবি করে দেখতে আসছেন। তাই আমরা গরুগুলোর প্রতিবেদন কোর্টে পাঠিয়ে দিচ্ছি। সেখান থেকে তারা প্রমাণ দিয়ে গরু নিয়ে যাবেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com