রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৫:০৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী আমান উল্লাহ বিরুদ্ধে কাজ না করেই সরকারি বরাদ্দের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ!। কালের খবর স্ত্রীর যৌতুক মামলায়,ব্যাংক কর্মকর্তা রাশেদের শেষ রক্ষা মিলেনি বাকলিয়া থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগর থানা প্রেস ক্লাবের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কমিটি গঠন, সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক রুবেল। কালের খবর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনিয়মের অভিযোগে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত। কালের খবর ঘিওরে কৃষকদের মানববন্ধনে নিয়মিত বর্ষা ও জলবায়ু সুবিচারের জোরালো দাবি। কালের খবর বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই চট্টগ্রামের অভূতপূর্ব উন্নয়ন : খোরশেদ আলম সুজন। কালের খবর “ইন্টারন্যাশনাল প্রেস ক্লাব এন্ড হিউম্যান রাইটস” এর কেন্দ্রীয় কমিটির চূড়ান্ত প্রার্থিতা গ্রহণ। কালের খবর জগন্নাথপুরে প্রাথমিক শিক্ষক মদপান করে সাজা ভোগ করায় এলাকায় ক্ষোভ। কালের খবর ময়মনসিংহ বিআরটিএ টাকা ছাড়া কাজ করেন না সহকারী পরিচালক এস এম ওয়াজেদ, সেবাগ্রহীতারা অসন্তোষ। কালের খবর হাইকোর্টের রায় : মোটরযানে বিজ্ঞাপনের জন্য ফি নিতে পারবে না বিআরটিএ। কালের খবর
চোরের ফেলে যাওয়া গরুর মালিকানা ঠিক করবে আদালত। কলের খবর

চোরের ফেলে যাওয়া গরুর মালিকানা ঠিক করবে আদালত। কলের খবর

সাঈদুর রহমান,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, কালের খবর : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে চোরের ফেলে যাওয়া গরুর দাবি করছে একাধিক ব্যক্তি। ফলে বাধ্য হয়ে পুলিশ গরুগুলোর মালিকা ঠিক করতে ঝিনাইদহ আদালতে প্রতিবেদন পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। গরু দাবি করা ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন কালীগঞ্জ পৌর শহরের নিশ্চিন্তপুর এলাকার ইমান আলীর তিনটি, মধুগঞ্জ পাড়ার মুন্নার একটি, ঢাকালে পাড়ার পারভেজ রহমান রচি একটি ও পৌরসভার পানির লাইনের কর্মচারী নুর ইসলাম একটি।
এর আগে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার ৭নং রায়গ্রাম ইউনিয়নের দুলালমুন্দিয়া গ্রামে চোরেরা ছয়টি গরু ফেলে রেখে যায়। বুধবার সকালে গ্রামে গরুগুলো দেখতে পেয়ে গ্রামবাসি আটকে রাখে। পরে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গরুগুলো থানা পুলিশের হাতে তুলে দেন। গরু পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ গরু দেখতে আসে। বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত চারজন ব্যক্তি গরুগুলোর মালিকানা দাবি করেন। বিষয়টি নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দে পড়ে যান থানা পুলিশ। পরে বৃহস্পতিবার বিকালে গরুর মালিকানা নিশ্চিত করতে ঝিনাইদহে আদালতে প্রতিবেদন পাঠিয়ে দেন। সেখান থেকে গরুরর মালিকরা উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে গরু গ্রহন করবেন বলে জানায় পুলিশ।
গরুর দাবিদার নুর ইসলাম জানান, উদ্ধার হওয়া গরুর মধ্যে আমার একটি কালো রঙের ষাড় গরু রয়েছে। গত মঙ্গলবার দিবাগত গভির রাতে বাড়ি থেকে হারিয়ে যায়। বুধবার থেকে আমি আমার গরু পেতে থানায় ঘুরছি। বৃহস্পতিবার থানা থেকে জানিয়ে দেয় আদালত থেকে গরু নিতে হবে। এখন আদালতে যাচ্ছি বলে জানান নুর ইসলাম।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, গরু পাওয়ার পর থেকে অনেকে মালিকানা দাবি করছেন। এখনো অনেকে গরু দাবি করে দেখতে আসছেন। তাই আমরা গরুগুলোর প্রতিবেদন কোর্টে পাঠিয়ে দিচ্ছি। সেখান থেকে তারা প্রমাণ দিয়ে গরু নিয়ে যাবেন।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com