সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৬:২৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নবগঠিত জেলা আওয়ামীলীগের কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে ফুলবাড়ীতে মিছিল সমাবেশ। কালের খবর শ্রীমঙ্গলের আরও ৩শ’ গৃহহীন পরিবারের স্বপ্ন পূরণ। কালের খবর সব নৌযানের রুট পারমিট বাধ্যতামূলক হচ্ছে। কালের খবর কামরাঙ্গীরচরে কিশোর গ্যাং হোতা মাসুদ মিন্টু ককটেলসহ গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগরের নাটঘরে ফসলি জমির পানি চলাচলের সরকারী জায়গা দখলের হিড়িক। কালের খবর তাড়াশে নওগাঁ হাটে নৈরাজ্য : ইজারাদারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ। কালের খবর দশমিনায় আইনজীবীদের মানববন্ধন। যশোরের বাঘারপাড়ায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ইউপি- সচিবের মৃত্যু। কালের খবর শাহজাদপুরে সাবেক স্বাস্থ্য-মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের ১ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল। কালের খবর শ্রীমঙ্গলে মসজিদ নির্মানের জন্য ৩৫০ বস্তা সিমেন্ট প্রদান করেছে বিরাইমপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থা। কালের খবর
যশোরের রুপদিয়া বাজারে মরা গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ। কালের খবর

যশোরের রুপদিয়া বাজারে মরা গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ। কালের খবর

সাঈদ ইবনে হানিফ, কালের খবর : যশোরের রূপদিয়া বাজারে ভাই-ভাই মাংস ভান্ডারে মরা গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে এলাকাজুড়ে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। ক্রেতা সাধারণ ও একাধিক ব্যবসায়ীর অভিযোগ, রূপদিয়া বাজারের স্থানীয় দায়িত্বপ্রাপ্তদেরদের নজরদারীর অভাবে এধরনের ঘৃণীত কর্মকান্ড করার দুঃসাহস করছে রূপদিয়া বাজারের মাংস বিক্রেতারা। তারা আরও বলেন, অন্যান্য ক্ষেত্রে হরহামেশা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হলেও মাংসের দোকান গুলোতে আদালত পরিচালিত হতে দেখা যায় না। তাদের দাবি মাংসের দোকানে নিয়মিত আদালত পরিচালিত হোক। অনেক সময় রোগা গরু ছাগল জবাই করা হয় সে বিষয়ে কোনো খোঁজ-খবর নেয় না আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো । যে কারণে মানুষ অজান্তেই রোগাক্রান্ত ও অস্বাস্থ্যকর মাংস খেয়ে চলেছে হরহামেশা। একাধিক সূত্র মতে, (৩০ এপ্রিল) শুক্রবার সকালে রূপদিয়া বাজারে গোশত পট্টিতে অবস্থিত মেসার্স ভাই-ভাই মাংস ভান্ডারে মরা গরুর মাংস বিক্রি করার সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়া সহ মানুষের মুখেমুখে। এক পর্যায়ে বেলা ১০ টার দিকে ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হাজির হয় স্থানীয় প্রশাসন। এসময় মাংস পট্টির ভাই-ভাই মাংস ভান্ডার থেকে বিশেষ কায়দায় কাপড়ে জড়িয়ে রাখা প্রায় ৪৫ কেজি গরুর মাংস জব্দ করে নদীতে ফেলে দেয় প্রশাসন। সরেজমিনে সাংবাদিকরা এই ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে( তদন্তে) গেলে (অভিযুক্ত) ভাই-ভাই মাংস ভান্ডারের মালিক কসাই আকের আলী দাবী করেন গরুটি মৃত ছিলো না তবে অসুস্থ ছিলো। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানায়, বাজারের ভাই-ভাই মাংস ভান্ডারটি মূলতঃ আকের আলী ও আইয়ুব আলী নামে দু’জন কসাই যৌথ ভাবে পরিচালনা করেন। কসাই আকের ও আইয়ুব আলী বলেন, নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামের জনৈক জাহাঙ্গীর আলমের কাছ থেকে অসুস্থ অবস্থায় গরুটি ১৯ হাজার টাকা দিয়ে ক্রয় করেন। গরু মুল মালিক জাহাঙ্গীর আলম’কে খুঁজে কথা বলে জানাযায়, ৪ দিন পূর্বে আমার গরুটি দড়িতে পেঁচিয়ে পড়ে যেয়ে একটি ‘পা ভেঙে যায়। পরে আকের ও আইয়ুব নামের কসাইদের কাছে ১৯ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেই। কথা থাকে ততদিন অর্থাৎ এ’কয় দিন (৪ দিন) আমার বাড়িতে রাখা। এরপর তারা স্থানীয় পশু ডাক্তার মো: বাবলুর রহমান (বাবু)র পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা করিয়ে কোনো রকম সুস্থ করে শুক্রবার হাটের দিন জবাই করে বিক্রি করে। বাজারের সাধারণ ব্যবসায়ীদের দাবী বাজারের কোনো কসাই নিয়ম মেনে পশু জবাই করে না। আর পরিষদ কর্তৃক পশু জবাইয়ের জন্য কোনো তদারকি না করায় এধরনের কর্মকান্ড প্রায়ই ঘটে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com