রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৭:৩১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কুমড়া বড়ি তৈরি করতে ব‍্যস্ত তাড়াশের কারিগররা। কালের খবর বাঘারপাড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় চেয়ারম্যান প্রর্থীসহ আহত ২০-অফিস ভাংচুর। কালের খবর যশোর সদর হাসপাতালে দালালদের কাছে জিম্মি রোগীরা। কালের খবর উৎপাদনে নতুন ‘দেশি মুরগি’, ৮ সপ্তাহে হবে এক কেজি। কালের খবর ইউপি নির্বাচনে শাহজাদপুরের ১০ ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা। কালের খবর যশোরের শার্শায় শোকজের জবাবের আগেই যুবলীগ নেতা বহিষ্কার! কালের খবর জাতীয় শ্রমিক লীগের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মন্টুর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত। কালের খবর ডেমরায় শীতের শুরুতেই বাড়ছে শিশুদের মৌসুমি রোগ মানবতা ও আদর্শ সমাজ গঠনে ইসলামপুরে অসহায় দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ। কালের খবর ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে দশমিনায় সংবাদ সম্মেলন। কালের খবর
শ্রীমঙ্গলে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পলিথিন, প্রশাসন নিরব। কালের খবর

শ্রীমঙ্গলে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পলিথিন, প্রশাসন নিরব। কালের খবর

 শ্রীমঙ্গল থেকে  আমিনুর রশীদ রুমান, কালের খবর : শ্রীমঙ্গলে প্রাণি ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর নিষিদ্ধ পলিথিনের রমরমা ব্যবসা চলছে প্রকাশ্যেই। শ্রীমঙ্গলের বাজার ঘুরে দেখা যায়- পৌর শহরের স্টেশন রোডে, নুতন বাজার, হবিগঞ্জ সড়ক, মৌলভীবাজার সড়কের পাইকারি দোকান গুলোতে প্রকাশ্যেই নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যবসা চলছে।

এছাড়াও শ্রীমঙ্গল উপজেলার ভৈরববাজার, সাতগাঁও বাজার, সিন্দুর খান বাজার, লচনা, শাহজী বাজার, মির্জাপুর, শমসেরগঞ্জ, বৌলাশীরসহ বিভিন্ন ছোট-বড় বাজারে প্রকাশ্যে দোকানে এসব মালামাল বিক্রি হচ্ছে। তাছাড়া উপজেলার ছোট বড় সব বাজারে, অলিগলির প্রতিটি দোকানেই মিলছে অবৈধ ঘোষিত পরিবেশ দূষণকারী পলিথিন।

স্থানীয় ও পরিবেশবাদীদের মতে প্রশাসনের নজরদারি বাড়ানো প্রয়োজন। নিষিদ্ধ এইচডিপিই (হাইয়ার ডেনসিটি পলি ইথালিন) পলিব্যাগ ব্যবহার মানুষের জীবনে মারাত্মক ক্ষতি করলেও পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা নীরব থাকায় এই অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে।

দেশে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পলিব্যাগ উৎপাদন করে বাজারজাত করছে। সেখান থেকে এনে শহর ও মফস্বলের ব্যবসায়ীরা প্রকাশ্যে হাটেবাজারে পলিথিন বিক্রি করছেন। অপচনশীল এই পলিথিন যত্রতত্র ফেলার কারণে পানি মাটি ও বাতাস দূষিত হয়ে পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি করছে। মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে নানা রোগ-ব্যাধিতে।

এছাড়াও নালা, নর্দমা, খালবিল যত্রতত্র ছড়িয়ে পড়ছে এতে পানি চলাচলে বাধাগ্রস্ত হয়ে জলজটের সৃষ্টি হচ্ছে। জমে থাকা পানিতে ব্যাকটেরিয়াসহ নানা রোগজীবাণু ছড়াছে। পলিথিন হাতের নাগালে পাওয়ার কারণে পরিবেশবান্ধব পাটের ব্যাগের ব্যবহার বাড়ছে না।
অতিরিক্ত লাভ থাকায় কিছুদিন পরপর জেল জরিমানা করলেও আবারো এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রকাশ্যেই নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের দ্রুত কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী স্থানীয়দের ও পরিবেশবাদীদের।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com