শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কে গর্ত খানাখন্দে ভরা চরম ভোগান্তিতে এলাকাবাসী। কালের খবর নবীনগরে জিনদপুর আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন। কালের খবর বিকল্প বিশ্ব ব্যবস্থা চায় রাশিয়া-পাকিস্তান-ইরান। কালের খবর ঝিনাইদহে পুকুর থেকে বৃদ্ধের বিবস্ত্র লাশ উদ্ধার। কালের খবর ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধে কঠোর হওয়ার আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের। কালের খবর বৃষ্টির পানিতে নাজেহাল সিরাজগঞ্জের তাড়াশ সহ বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দারা। কালের খবর বাঘারপাড়ায় কয়েক দিনের ভারী বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে ফসলের মাঠ ও বাড়ি ঘর। কালের খবর দশমিনায় আইনজীবীদের মানববন্ধন। কালের খবর নবীনগরে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের কাছে নতুন ঘর হস্তান্তর। কালের খবর নবগঠিত জেলা আওয়ামীলীগের কমিটিকে স্বাগত জানিয়ে ফুলবাড়ীতে মিছিল সমাবেশ। কালের খবর
আমলাপাড়ার সেই ময়লার স্তুপ এখনও সরানো হয়নি। কালের খবর

আমলাপাড়ার সেই ময়লার স্তুপ এখনও সরানো হয়নি। কালের খবর

কালের খবর ডেস্ক : গত ২৩ ফেব্রুয়ারি আমলাপাড়া আদর্শ শিশু সরকারি বিদ্যালয়ের কৃতি শিক্ষার্থী সংবধনা অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের পাসে খোলা ডাস্টবিনের দুর্গন্ধ নিয়ে যাতায়াত করতে শিক্ষার্থীদের সমস্যা কথা তুলে ধরেন এমপি সেলিম ওসমানের কাছে। বক্তব্যে সেলিম ওসমান স্থানীয় ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে এবিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ জানান।

সাংসদের অনুরোধের ২৪ ঘন্টা না যেতেই কাউন্সিলর খোরশেদ আমলাপাড়ার সেই ময়লার স্তুপ সরানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেন। সেখানে পরিচ্ছন্নতা কর্মীরাও কাজ করেন। তবে এখন ঘটনার উল্টো চিত্র।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রাস্তায় এখনো ময়লার দুটি বড় স্তুপ পড়ে রয়েছেন। গত কয়েকদিন বৃষ্টি হওয়ায় এ সমস্যা আরো প্রকট আকার ধারণ করেছে। রাস্তা দিয়ে দুর্গন্ধে হাটতে পারছেনা যাতায়াতকারী মানুষ।

এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, এই হলো আমাদের অবস্থা। নেতারা নানা প্রতিশ্রুতি দেন আদতে সেগুলোর বাস্তবায়ন কতখানি হয় সেগুলোর খোঁজখবর আর তারা রাখেননা। এই ময়লার স্তুপগুলোই তাঁর বাস্তব প্রমাণ।

মতিন মিয়া নামের এক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, এই ময়লার স্তুপ সরানোর ব্যাপারে আমরা আর কি বলবো। এখানকার ময়লা শুধু এই এলাকার মানুষই ফেলেননা। অন্য জায়গা থেকেও নানাজনে এখানে ময়লা ফেলে যান। ভুক্তভুগী তো আমরা এলাকাবাসী।

এব্যাপারে ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খোরশেদ বলেন, ‘সাংসদ বলার পর আমি সরেজমিনে গিয়ে সেখান থেকে ময়লা সরানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করি। আমি আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলাম অসচেতন কিছু মানুষের কারণে এখানে আবারও ময়লার স্তুপ তৈরি হবে।

সপ্তাহ না যেতেই আমার আশঙ্কাই সত্যিই হলো। জায়গাটিতে এখনো দেয়াল নির্মাণের কাজ শেষ হয়নি। সেটি সম্পন্ন হয়ে গেলে এবং মানুষ সচেতন হলে আশা করি অবস্থার উন্নতি হবে।’

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com