শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
তাড়াশে মহেশরৌহালী গ্রামের প্রাথমিক বিদ‍্যালয়ের বেহাল দশা। কালের খবর মেঘনার অস্বাভাবিক জোয়ারে ডুবেছে গ্রামের পর গ্রাম। কালের খবর সাংবাদিকরা পারে ক্ষমতাহীনদের ক্ষমতাবান করতে : তথ্যমন্ত্রী। কালের খবর নবীনগর আঞ্চলিক কথা গ্রুপের উদ্যোগে দুটি অসহায় পরিবারের মাঝে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান। কালের খবর সখীপুরে গরুর লাথি খেয়ে আহত ১৩ জন হাসপাতালে। কালের খবর মেয়ের শ্বশুরবাড়ি ট্রাকভর্তি উপহার পাঠিয়ে চমকে দিলেন বাবা। কালের খবর জীবন অগাধ : আলাউদ্দিন খাঁর বড় ছেলে। কালের খবর তিন দিনে ৮ কোটি টাকার টোল আদায় বঙ্গবন্ধু সেতুতে। কালের খবর শোক সংবাদ : জয়দেব সূত্রধর আর নেই। কালের খবর বোয়ালমারীতে পৌরসভার ৫০০শত ভ্যানচালককে ঈদ উপহার প্রদান। কালের খবর
হাসপাতালে রোগী রেখে ঘুমাচ্ছেন চিকিৎসক, গল্প আর সেলফিতে ব্যস্ত মেডিকেল শিক্ষার্থীরা!। কালের খবর

হাসপাতালে রোগী রেখে ঘুমাচ্ছেন চিকিৎসক, গল্প আর সেলফিতে ব্যস্ত মেডিকেল শিক্ষার্থীরা!। কালের খবর

কালের খবর ডেস্ক : রোগী রেখে চেয়ারে হেলান দিয়ে ঘুমাচ্ছেন চিকিৎসক আর কম্পিউটারে বাজছে ‘অনেক সাধনার পরে আমি, পেলাম তোমার মন।’ রোগীরা বাইরে বসে আছেন। আর অন্যদিকে মেডিকেলের ছাত্র-ছাত্রীরা নিজেরা গল্প আর সেলফি তোলায় ব্যস্ত।

সম্প্রতি কুমিল্লায় সরকারি জেনারেল হাসপাতালের এমনই এক ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

ওই ভিডিওটির সাথে লেখা ছিলো, ‘প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি! এই হল কুমিল্লা সদর হাসপাতালের (জেনারেল হাসপাতাল) চিকিৎসা ব্যবস্থা। আজকে (বুধবার) দুপুর ১২ টার দিকে সদর হাসপাতালের ১৪ নম্বর কক্ষে ডা. জহিরুল হকের কাছে আমার মাকে নিয়ে যাই গলায় সমস্যার চিকিৎসা করার জন্য। কক্ষে ঢুকে দেখি তিনি ঘুমাচ্ছেন এবং কম্পিউটারে (অনেক সাধনার পরে আমি পেলাম তোমার মন) এই গানটি বাজছে। মেডিকেলের ছাত্র-ছাত্রীরা নিজেরা গল্প আর সেলফি তোলায় ব্যস্ত। অন্যদিকে রোগীরা বাইরে বসে আছেন। যারাই আসছে তাদের বলে দিচ্ছেন বাইরে বসেন। রোগীরা বলছে, তিনি ঘুমাচ্ছেন, আমাদের কখন দেখবে? ছাত্ররা উত্তর দিচ্ছেন-অপেক্ষা করেন উনি রেস্ট নিচ্ছেন! এই যাবত কোনো প্রাইভেট হাসপাতালে কি দেখেছেন ১৫ জন রোগী দেখার পরে ৩০/৩৫ মিনিট ঘুমাতে। সেখানে ঘুম আসে না….কারণ, সেখানে টাকার গন্ধ?’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত চিকিৎসক জহিরুল হক জানান, আমি কখনো দায়িত্বের প্রতি অবহেলা করি না। ঘটনার দিন আমার একটু চোখ লেগে এসেছিলো। ওই ভিডিওটির সাথে ওয়ার্ড মাস্টার নজরুল ইসলাম জড়িত রয়েছে। ওয়ার্ড মাস্টার নজরুল আমার অফিসেও হামলা করেছিলো। আমি এই বিষয়ে জিডি দায়ের করবো।’

তবে চিকিৎসকের অভিযোগ অস্বীকার করে ওয়ার্ড মাস্টার নজরুল ইসলাম বলেন, আমি কেন আমার হাসপাতালের বিরুদ্ধে প্রচারনা চালাবো। তিনি রোগী না দেখে ঘুমিয়েছেন, আর এটা কেউ ভিডিও করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছে। আমি এ বিষয়ে আর কিছুই জানি না।

এ বিষয়ে কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান বলেন, ‘ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির বিষয়ে ওই চিকিৎসককে শোকজ করা হয়েছে। শোকজের জবাব পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com