সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ১২:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলের আরও ৩শ’ গৃহহীন পরিবারের স্বপ্ন পূরণ। কালের খবর সব নৌযানের রুট পারমিট বাধ্যতামূলক হচ্ছে। কালের খবর কামরাঙ্গীরচরে কিশোর গ্যাং হোতা মাসুদ মিন্টু ককটেলসহ গ্রেফতার। কালের খবর নবীনগরের নাটঘরে ফসলি জমির পানি চলাচলের সরকারী জায়গা দখলের হিড়িক। কালের খবর তাড়াশে নওগাঁ হাটে নৈরাজ্য : ইজারাদারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ। কালের খবর দশমিনায় আইনজীবীদের মানববন্ধন। যশোরের বাঘারপাড়ায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ইউপি- সচিবের মৃত্যু। কালের খবর শাহজাদপুরে সাবেক স্বাস্থ্য-মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের ১ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল। কালের খবর শ্রীমঙ্গলে মসজিদ নির্মানের জন্য ৩৫০ বস্তা সিমেন্ট প্রদান করেছে বিরাইমপুর সমাজ কল্যাণ সংস্থা। কালের খবর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীরমুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর মাস্টারের দাফন সম্পন্ন। কালের খবর
কেরানীগঞ্জে সরকারি খাল ভরাট করে হাউজিং। কালের খবর

কেরানীগঞ্জে সরকারি খাল ভরাট করে হাউজিং। কালের খবর

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি, কালের খবর৷ :

ঢাকার কেরানীগঞ্জে ঘাটারচরে টোটাইল মোজায় একটি সরকারি খাল ভরাট করে হাউজিং করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঢাকা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মিজানের নেতৃত্বে ৫/৬ জনের একটি সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে এই খাল ভরাটের অভিযোগ উঠছে। খালের উপরে ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি ব্রিজ নির্মাণের সাত মাস পরেই এই খালটি ভরাট করা হয়েছে। গতবছরের জুন মাসের ৭ তারিখে ব্রিজটি উদ্বোধন করেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক শাহীন আহমেদ। ভরাটকৃত খালটির জমির পরিমাণ প্রায় ৩ শ’ শতাংশ । এই জমির আনুমানিক বর্তমান মূল্য প্রায় ৩০ কোটি টাকা।
এলাকাবাসীদের কাছ থেকে জানা যায়, তারানগর ইউনিয়নের ঘাটারচরে টোটাল মৌজায় একমাত্র শতবর্ষের পুরাতন খাল হচ্ছে এটি। এই খাল দিয়ে নৌকাযোগে এক সময় ঘাটারচর, জয়নগর, কলমারচর, আটিসহ কয়েকটি গ্রামের লোকজন বুড়িগঙ্গা হয়ে রাজধানীর বছিলা ও মোহাম্মদপুর এলাকায় যাতায়াত করতো। গতবছরের জুন মাসে খালের উপর ঘাটারচর ও সাভারের ভাকুর্তা ইউনিয়নের লুটেরচরের মানুষের যাতায়াতের সুবিধার জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অর্থায়নে এই ব্রিজটি নির্মিত হয়।

ব্রিজ নির্মাণের আগেই খালটি পুনঃখনন করা হয়। কিন্তু ব্রিজ নির্মাণের সাত মাস যেতে না যেতেই হাউজিং ব্যবসায়ীদের একটি সিন্ডিকেট এই খালটি ভরাট করে তাদের ক্রয়কৃত জমির সঙ্গে একত্রিত করে প্লট আকারে বিক্রি করছে। খালের পানি গ্রামবাসী কৃষিকাজে ব্যবহার করতো। খালটি ভরাট করে ফেলায় একদিকে যেমন পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে অপরদিকে সরকারের ৩০ কোটি টাকার সম্পত্তি বেহাত হয়ে যাচ্ছে। ঘাটারচরের খালের পাড়ের বাসিন্দা মো. রতন মিয়া জানান, আমরা দীর্ঘদিন যাবৎ এই খালের পানি জমিতে সেচের কাজে এবং গৃহস্থালির নানা কাজেও ব্যবহার করতাম। এব্যাপারে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মিজানুর রহমান মিজান বলেন, আমরা কোনো খাল ভরাট করিনি। আমরা আমাদের বাপ-দাদার পৈতৃক রেকর্ডিং সম্পত্তি ভরাট করে প্লট করেছি। তারানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ফারুক বলেন, ব্রিজ নির্মাণের আগেই খালটি পুনঃখনন করা হয়। কিন্তু একটি চক্র রাতের আঁধারে খালটি বালি ফেলে ভরাট করে ফেলে। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার জন্য খালটি রক্ষা করা দরকার। কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহে এলিদ মাইনুল আমিন বলেন, সরকারি খাল কেউ ভরাট করতে পারবে না। কেউ যদি তা করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com