মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৮:২১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জে দ্রুত এগিয়ে চলছে মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজ। কালের খবর বাঘারপাড়ার গাছিরা ব্যাস্ত সময় পার করছে খেজুর গাছ পরিচর্যায়। কালের খবর এসএসসি পরীক্ষায় পাসের হারে শীর্ষে যশোর বোর্ড। কালের খবর অতীতের সকল রেকর্ড অতিক্রম করেছে সামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ। কালের খবর শহীদ ডাঃ মিলন দিবসে অস্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক স্বচ্ছ নির্বাচন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত রাখার আহবান। কালের খবর নবীনগর আ’লীগের সম্মেলন সভাপতি বাদল সম্পাদক সাহান। কালের খবর পাঁচ বছরের শিশু আয়াত নিখোঁজের ১০ দিন পর নদীতে ছয় টুকরা দেহের সন্ধান পেল পুলিশ। কালের খবর বিএমএসএফ নিজস্ব গঠনতন্ত্রে পরিচালিত ট্রাস্টিনামা দলিলের অন্তর্ভুক্ত নয় -সাধারণ সভায় নেতৃবৃন্দ। কালের খবর মেসি নৈপুণ্যে আর্জেন্টিনার অসাধান জয়। কালের খবর গরিবের থেকে ‘কম ঘুষ নেওয়া’ তহশিলদার আব্দুস সাত্তার বরখাস্ত। কালের খবর
গর্ভধারিণী মাকে খুঁজতে দেওয়ালে দেওয়ালে মায়ের সন্ধান চেয়ে পোস্টারিং। কালের খবর

গর্ভধারিণী মাকে খুঁজতে দেওয়ালে দেওয়ালে মায়ের সন্ধান চেয়ে পোস্টারিং। কালের খবর

যশোর প্রতিনিধি, কালের খবর:

মায়ের প্রতি পরম মমতাবোধ থেকে রোদে পুড়ে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে গর্ভধারিণী মাকে খুঁজতে দেওয়ালে দেওয়ালে মায়ের সন্ধান চেয়ে পোস্টার লাগাচ্ছেন যশোরের শার্শা উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের আব্দুর সাত্তার। তিনি ওই গ্রামের মৃত মান্দার গাজীর ছেলে। পেশায় একজন বন্দর শ্রমিক।যশোর শহরের হাসপাতাল মোড়ে দেওয়ালে দেওয়ালে পোস্টার লাগাতে দেখা যায় আব্দুর সাত্তারকে।
আব্দুর সাত্তার জানান, গত ২০ সেপ্টেম্বর সকালে তার গর্ভধারিণী মা আমেনা খাতুন (৭২) কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। এরপর থেকেই নিখোঁজ তার মা। আব্দুর সাত্তারের বৃদ্ধ মা মানসিকভাবেও অসুস্থ ছিলেন। আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করে মায়ের কোনো সন্ধান না পেয়ে অবশেষে মাকে খুঁজতে নিজেই পথে নেমেছেন তিনি। অসহায় দরিদ্র পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী হওয়া সত্ত্বেও কাজকর্ম ফেলে সাত বছরের ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে পথে পথে পোস্টার লাগিয়ে বেড়াচ্ছেন আব্দুর সাত্তার। মাকে খুঁজে পেতে প্রশাসনসহ সর্বসাধারণের সহোযোগিতা চেয়েছেন তিনি।
আব্দুর সাত্তার বলেন, আমরা পাঁচ ভাই-বোন। গত ২০ সেপ্টেম্বর তারিখে মা হারিয়ে যাবার পর, বাকি ভাই-বোনেরা দু-একদিন খোঁজাখুঁজি করে আর খোঁজ করেননি। আমি কাজকর্ম ফেলে মায়ের ছবিসহ পোস্টার ছাপিয়ে লাগিয়ে বেড়াচ্ছি। আমি আমার ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে পুরো জেলা ঘুরে ঘুরে পোস্টার লাগাবো।

তিনি আরও বলেন, আমার মা হারিয়ে যাবার পর একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেছি। আমি যতদিন বেঁচে থাকবো আমি আমার মাকে খুঁজতে সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাব। আমি আমার মাকে খুঁজে পেতে চাই।
বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন ভুঁইয়া জানান, এ বিষয়ে একটি নিখোঁজ ডায়েরি হয়েছে। পুলিশ কাজ করছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com