শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:২৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বগুড়ার শেরপুরে আওয়ামী লীগ নেতা অভিকে কুপিয়ে হত্যা। কালের খবর শাহজাদপুরে সাফ বিজয়ী আঁখি খাতুনকে সংবর্ধনা। কালের খবর টাকায় ঘোরে যশোর সদর হাসপাতালের ট্রলি ও হুইল চেয়ার। কালের খবর রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীর ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন। কালের খবর শ্রমিক নেতার আড়ালে মাদকের কারবার : আটক ৩। সখীপুরে ঘরের বেড়া কেটে স্বর্ণালংকারসহ নগদ টাকা চুরি। কালের খবর সকল অশুরী শক্তিকে উৎখাত করে আমাদের কে এগিয়ে যেতে হবে : রনজিৎ কুমার রায় (এমপি)। কালের খবর শেখ হাসিনার জন্মদিনে বৃক্ষরোপণ করেছে সামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ। কালের খবর সোনারগাঁয়ে সড়ক নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ। কালের খবর কে এই জাকির চেয়ারম্যান! এমপি-পুলিশের টাকার রক্ষক এখন ভক্ষক। কালের খবর
শ্রীমঙ্গলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি চরনে মুক্তিযোদ্ধাদের আলোচনা সভা। কালের খবর

শ্রীমঙ্গলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি চরনে মুক্তিযোদ্ধাদের আলোচনা সভা। কালের খবর

আমিনুর রশীদ রুমান, শ্রীমঙ্গল, (মৌলভীবাজার), কালের খবর : মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলায় হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু হত্যার পরবর্তী সময়ের বিভিন্ন আন্দোলনের স্মৃতি চরনে দুই মুক্তিযোদ্ধা আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার (৩০শে আগস্ট) বিকালে শহরতলীর মৌলভীবাজার রোডস্থ বারিধারা আবাসিক এলাকায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু শহিদ আব্দুল্লাহ নিজ বাস ভবন চন্দ্রিমা ভিলায় এ স্মৃতি চরনে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু মোঃ শহিদ আব্দুল্লাহ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা বিরাজ সেন তরুন।

এসময় মুক্তিযোদ্ধারা লিখিত বক্তব্যে বলেন, আসলে বঙ্গবন্ধুর পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ একটি অস্থিতিশীল পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিল। যেখানে খুন, গুম, হত্যা, রাহাজানি সহ বিশেষ করে যারা বঙ্গবন্ধু আওয়ামী পরিবারকে খুব ভালবাসতো তাদের উপর নেমে আসে অত্যাচারের স্টিমরোলার। খন্দকার মোশতাকের শাসন আমল থেকেই যারা বঙ্গবন্ধুর একনিষ্ঠ কর্মী ছিল তাদেরকে বেছে বেছে তালিকা করে তাদের উপর চালানো হতো অত্যাচার ও নির্যাতন। এমনকি সামাজিকভাবে তাদেরকে হেয় প্রতিপন্ন করতে সাজানো হতো মিথ্যা নাটক। মোস্তাক বাহিনী পর পরবর্তীতে প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের শাসনামলে থেকে আগের রূপে হামলা-মামলা, গুম-খুনের স্টিমরোলার চালানো হয় আওয়ামী লীগ এবং আওয়ামী লীগের সাথে সম্পৃক্ত হৃদয় থেকে ভালবাসেন তাদের উপর ও বিশেষায়িত করে আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের উপর। এরপর জাতীয় পার্টির প্রেসিডেন্ট হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদের শাসনামলে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের উপর নির্যাতন চলছিল তা যেন আরো তেলেবেগুনে জ্বলে ওঠে। তখন সময়ে জাতীয় পার্টির অনেক গুণ্ডাবাহিনী আমাদের শ্রীমঙ্গলে বঙ্গবন্ধুর নামটি উচ্চারণ করতে দিত না। যখন আমরা শ্রীমঙ্গলে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন করি তখন সময়ে অনেকে আমাদের উপর গুলি পর্যন্ত চালায়। পরবর্তীতে তখন তাদের কারনে আমাদেরকে জেলে প্রেরণ করা হয়। এর পরবর্তীতে জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে যখন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি গঠন করা হয় তখন আমাকে শ্রীমঙ্গলের আহব্বায়ক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

পরিশেষে বলতে চাই, আমি আমার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জন্য আমার শরীরের শেষ বিন্দু পর্যন্ত আমি পাশে ছিলাম, পাশে আছি এবং পাশে থাকবো ইনশাআল্লাহ।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com