শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ১১:৩২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
জগন্নাথপুর বন্যার প্রভাবে হাটভর্তি গরু, ক্রেতা কম !! কালের খবর রূপগঞ্জে কারখানার বিষাক্ত পানিতে মরে গেলো ৩ লাখ টাকার মাছ : অসুস্থ অর্ধশতাধিক স্থানীয় বাসিন্দা। কালের খবর মুরাদনগরে  দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক  বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত। কালের খবর বাঘারপাড়ায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অর্থায়নে এক,শত শিক্ষার্থী কে বাইসাইকেল প্রদান। কালের খবর পৈত্রিক সম্পত্তি ভূমিদস্যু হাতে থেকে রক্ষার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন জগন্নাথপুরে রেমিটেন্স যোদ্ধার মৃত্যু এলাকায় শোকের ছায়া, জানাযা সম্পন্ন। কালের খবর সাইবার অপরাধ দমন ও অপপ্রচার ঠেকাতে একটি আলাদা ‘সাইবার পুলিশ ইউনিট’ হবে : সংসদে প্রধানমন্ত্রী রাইস ট্রান্সপ্লান্টারের মাধ্যমে ধানের চারা রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন। কালের খবর ইউপি চেয়ারম্যান পিতার এক ছেলে এমপি আরেক ছেলে উপজেলা চেয়ারম্যান। কালের খবর ঢাকা প্রেস ক্লাবের স্থায়ী সদস্য এম নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক। কালের খবর
সাংবাদিক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম হাসানকে মিথ্যা মামলায় জড়াতে থানায় জিডি। কালের খবর

সাংবাদিক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম হাসানকে মিথ্যা মামলায় জড়াতে থানায় জিডি। কালের খবর

স্টাফ রিপোর্টার, মৌলভীবাজার, কালের খবর :

সাংবাদিক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম হাসানকে মিথ্যা মামলায় জড়াতে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি মিথ্যা ভিত্তিহীন জিডি করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। একজন গনমাধ্যমকর্মীকে সামাজিক ভাবে একরকম হেয় প্রতিপন্ন করতে এ ধরনের ঘৃণিত অপরাধ যা দেশের সকল সাংবাদিককে অপদস্ত করার সামিল।

জানাযায় গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে শ্রীমঙ্গল ধলাই চা বাগান সংলগ্ন ১৭ নম্বর সেকশনের অন্যের একটি লেবু বাগান থেকে জোরপূর্বক ও ভয় ভীতি দেখিয়ে জনৈক ময়না মিয়া অবতার সঙ্গীরা জোর পূর্বক কয়েক মন লেবু ছিড়ে নিয়ে গেছে। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে, ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য “দৈনিক দিগন্তর” পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ও মৌলভীবাজার রাজনগর থেকে প্রকাশিত “”রাজনগর বার্তা”র বার্তা সম্পাদক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম হাসান তার মোবাইল থেকে ময়না মিয়াঁর মোবাইল ফোনে ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য কল করেন এবং ফোন রেখে দেন।

পরবর্তীতে ঘটনার দিন রাত ১টার দিকে সৈয়দ হাসানকে অভিযুক্ত ময়না মিয়া তার মোবাইল ফোন থেকে কল করে বলেন যে তার নামে তিনি থানায় একটি জিডি করেছেন।

এ বিষয়ে সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম হাসান আমাদেরকে জানান, আজ (শুক্রবার) শ্রীমঙ্গল থানা থেকে এস আই আলামিন মোবাইল ফোনে আমার নামে থানায় জিডি হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এবং জিডিতে অভিযোগ করা হয়েছে আমি নাকি ফোনে সাংবাদিক পরিচয় না দিয়ে বিজিবির সদস্য পরিচয়ে তাকে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে চাঁদা চেয়েছি। যার পুরোটাই অসত্য।

পরবর্তীতে আমি নিজে থানায় উপস্থিত হয়ে ময়নার সাথে আলাপের সম্পূর্ণ রেকর্ড এসআই আল-আমিনকে শুনাই এবং তার হোয়াটসঅ্যাপে রেকর্ডটি হস্তান্তর করে আসি।

ঘটনাটি স্থানীয় সাংবাদিক মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আব্দুল সালেক দুলালকে অবগত করা হয়েছে বলে জানাগেছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com