মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:২৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
চা বিক্রিতে শেফালির বাজিমাত ফতুল্লায় মুষলধারে বৃষ্টিতে হাঁটুপানি প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, তদন্ত করছে দুদক ও মাউশি। কালের খবর তাড়াশে সেচ্ছাসেবকলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত। কালের খবর যশোর সদরে ইউপি নির্বাচন ৫ জানুয়ারি। কালের খবর কুমড়া বড়ি তৈরি করতে ব‍্যস্ত তাড়াশের কারিগররা। কালের খবর বাঘারপাড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় চেয়ারম্যান প্রর্থীসহ আহত ২০-অফিস ভাংচুর। কালের খবর যশোর সদর হাসপাতালে দালালদের কাছে জিম্মি রোগীরা। কালের খবর উৎপাদনে নতুন ‘দেশি মুরগি’, ৮ সপ্তাহে হবে এক কেজি। কালের খবর ইউপি নির্বাচনে শাহজাদপুরের ১০ ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা। কালের খবর
মহেশপুর ১৪৪ ধারা অমান্য করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ হোমিও ডাক্তারের বিরুদ্ধে। কালের খবর

মহেশপুর ১৪৪ ধারা অমান্য করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ হোমিও ডাক্তারের বিরুদ্ধে। কালের খবর

সাঈদুর রহমান,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, কালের খবর : ঝিনাইদহের মহেশপুরে আদালতের আদেশ অমান্য করে রাতের আধারে ঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে এক হোমিও ডাক্তারের বিরুদ্ধে। মনিরুজ্জামান ওরফে শহিদ নামে এক হোমিও ডাক্তার ক্রয় সূত্রে ২.২ শতক জমিটির মালিক দাবি করে বসত ঘর নির্মাণ করছেন।
এদিকে জমিটির মালিক দাবি করে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ফৌজিয়া নাহিদ নামে এক নারী। তার দাবি, বাবার কাছ থেকে হেবা দলিলের মাধ্যমে তিনি ওই জমির মালিক। মহেশপুর মৌজা নম্বর ১০৯, খতিয়ান নম্বর ১০৭৯ এবং ১৬০৯ আরএস দাগের ৭.৭৫ শতক জমিটি ২০০৭ সাল থেকে ভোগ দখল করে আসছেন। কিন্তু মনিরুজ্জামান নামের এক প্রতিবেশি সম্প্রতি তার জমির ২.২ শতক দখল করে ঘর নির্মাণ শুরু করে। ফলে জমির স্বত্ব বা দখল পেতে চলতি বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি ঝিনাইদহ জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। এরপর ২৪ ফেব্রুয়ারি আদালতের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সেলিম রেজা ১৪৪ ধারা জারি করে মিমাংশিত না হওয়া পর্যন্ত উক্ত জমিতে না যাওয়ার জন্য বাদি-বিবাদি উভয় পক্ষকে আদেশ দেন।

এদিকে অভিযুক্ত মনিরুজ্জামান জানান, আমি ক্রয়সূত্রে জমিটির মালিক। তিনি মনোয়ারা বেগম নামের এক নারীর কাছ থেকে জমিটি প্রায় সাত বছর আগে ক্রয় করেন। এরপর রেজিষ্ট্রিও হয়েছে। এখন আমি আমার জমিতে ঘর নির্মাণ করছি। কিন্তু ফৌজিয়া নাহিদ নামে এক নারী জমিটি তার বলে দাবি করে আদালতে মামলা করেছেন। তিনি আরো জানান, মনোয়ারা বেগম অভিযোগকারী ফৌজিয়া নাহিদের সম্পর্কে চাচাতো বোন।

এ ব্যপারে মহেশপুর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানান, ওই জমিতে ১৪৪ ধারা বলবদ রয়েছে। আদালতে বিষয়টি মিমাংসা হলে জমিটি ব্যবহার করতে পারবেন। যদি কেউ আদালতের আদেশ আমান্য করে তাহলে একটি লিখিত আবেদন করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com