বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২০ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ, তদন্ত করছে দুদক ও মাউশি। কালের খবর তাড়াশে সেচ্ছাসেবকলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত। কালের খবর যশোর সদরে ইউপি নির্বাচন ৫ জানুয়ারি। কালের খবর কুমড়া বড়ি তৈরি করতে ব‍্যস্ত তাড়াশের কারিগররা। কালের খবর বাঘারপাড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় চেয়ারম্যান প্রর্থীসহ আহত ২০-অফিস ভাংচুর। কালের খবর যশোর সদর হাসপাতালে দালালদের কাছে জিম্মি রোগীরা। কালের খবর উৎপাদনে নতুন ‘দেশি মুরগি’, ৮ সপ্তাহে হবে এক কেজি। কালের খবর ইউপি নির্বাচনে শাহজাদপুরের ১০ ইউনিয়নে আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা। কালের খবর যশোরের শার্শায় শোকজের জবাবের আগেই যুবলীগ নেতা বহিষ্কার! কালের খবর জাতীয় শ্রমিক লীগের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মন্টুর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত। কালের খবর
কটিয়াদী পৌর নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি : নৌকার প্রার্থীকে জয়ী করতে একাট্টা আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের রয়েছে নানা প্রতিশ্রুতি। কালের খবর

কটিয়াদী পৌর নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি : নৌকার প্রার্থীকে জয়ী করতে একাট্টা আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের রয়েছে নানা প্রতিশ্রুতি। কালের খবর

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) থেকে সুবল চন্দ্র দাস, কালের খবর :  কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী পৌরসভা নির্বাচনের আগামী ৩০ জানুয়ারি ভোট। নৌকার প্রার্থীকে জয়ী করতে একাট্টা হয়ে মাঠে নেমেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ। বসে নেই দলের তৃণমূেলর নেতাকর্মীরাও। ইতিমধ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে একাট্টা হয়ে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি নৌকায় ভোট চাইছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। কটিয়াদী পৌরসভা নির্বাচনে পুরুষের চেয়ে নারী ভোটার বেশি হওয়ায় প্রতিদিনই নারী নেতৃদের সাথে নিয়ে বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দিচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।
স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান, কটিয়াদী পৌস নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান মেয়র শওকত উসমান শুক্কুর আলীর বিজয় নিশ্চিত করে ঘরে ফিরতে চান। তবে পৌরসভার বাইরে একটি ইউনিয়নে মতবিনিময় সভায় নৌকাকে বিজয় করতে স্থানীয় এমপি নুর মোহাম্মদ এর নির্দেশনায় দু’হাত তুলে শপথ নিয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। ওই মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নুর মোহাম্মদ এমপি। ওই সভায় উপস্থিত নেতারা বলেন, আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত কটিয়াদী পৌরসভা নির্বাচনে যেকোন মূল্যে নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে। প্রার্থী পছন্দ না হলেও শেখ হাসিনার মনোনীত নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করতে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। সাবেক ছাত্রলীগ নেতা (সাংবাদিক) সারোয়ার হোসেন শাহীন বলেন, নৌকার প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছেন দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে নৌকার বিজয়ের কোনো বিকল্প নেই। সকল ভেদাভেদ ভুলে আগামী ৩০ জানুয়ারি নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে হবে। একইসুরে কথা বলেছেন কটিয়াদী সরকারি ডিগ্রী কলেজ ছাত্র সংসদ এর সাবেক ভিপি দুলাল বর্মণ। তিনি বলেন, যতদিন রবে পদ্মা-মেঘণা ও যমুনা বহমান,ততদিন রবে এই বাংলায় জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান ও নৌকার নাম। তিনি বলেন, দেশের মানুষ বুঝতে পেরেছে, নৌকা মার্কায় দিলে ভোট সুখ আর শান্তিতে রবে সকল লোক।
এদিকে প্রচারণার শেষ মুহুর্তে নির্বাচনী আমেজে উৎসবের নগরীতে পরিনত হয়েছে কটিয়াদী পৌরসভা। ভোটের দিন ঘনিয়ে আসায় প্রচারণায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন নির্বাচনে অংশ নেয়া একজন নারী মেয়র প্রার্থীসহ ৫ জন মেয়র প্রার্থী। বিএনপি রাজনৈতিক ইস্যুতে দিনভর ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন। আর কটিয়াদী পৌর এলাকার অলিগলি চষে বেড়িয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও সমর্থকরা, দিচ্ছেন উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি। নির্বাচনী পোস্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে পুরো এলাকা। বইছে নির্বাচনী হাওয়া। প্রচারণায় শেষ মুহুর্তে ব্যস্ত প্রার্থীরা। নৌকার প্রার্থী বর্তমান মেয়র শওকত উসমান শুক্কুর আলী বলেন, কটিয়াদী পৌর এলাকার উন্নয়নে বিএনপি কোনো অবদান নাই। তারা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার প্রচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। আমরা কটিয়াদী এলাকার ভোটারদের কাছে যাচ্ছি, আমাদের উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিচ্ছি এবং পৌরবাসি তা সাদরে গ্রহণ করছে। অসমাপ্ত উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে নৌকায় ভোট চান তিনি।
প্রসঙ্গত, একজন নারী মেয়র প্রার্থীসহ ৫ জন মেয়র পদে ভোট যুদ্ধে মাঠে নেমেছেন। ৫ প্রার্থীর মধ্যে ৪ জন দলীয় এবং একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। দলীয় চার প্রার্থী হলেন-আওয়ামী লীগের (নৌকা) প্রার্থী বর্তমান মেয়র শওকত উসমান শুক্কুর আলী, বিএনপি থেকে সাবেক দুই বারের মেয়র তোফাজ্জল হোসেন খান, জাতীয় পার্টি থেকে অ্যাডভোকেট আলাউদ্দিন আলম ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টি থেকে আব্দুল বাতেন। একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মেয়র পদে ভোটযুদ্ধে নেমেছেন কটিয়াদী থানা সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নারী নেত্রী সালমা আনিকা। এছাড়া ৩টি সংরক্ষিত আসনে মোট ১১ জন এবং ৯টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন প্রার্থী এবারের ভোট যুদ্ধে মাঠে নেমেছেন। কটিয়াদী পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৩০ হাজার ৪৬৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪ হাজার ৭৩৬ এবং নারী ভোটার ১৫ হাজার ৭৩০। পুরুষের চেয়ে ৯৯৪ জন নারী ভোটার বেশি। তার উপর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পুরুষ ভোটার রয়েছেন প্রবাসে। তাই জয়-পরাজয়ে নারী ভোটারই হবে ফ্যাক্টর। তৃতীয় ধাপে আগামী ৩০ জানুয়ারি পৌরসভার ১৪টি ভোট কেন্দ্রে একজন মেয়র, ৩ জন সংরক্ষিত আসনে কাউন্সিলর ও ৯ জন সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত করার জন্য ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. রফিকুল আলম বলেন, কটিয়াদী পৌরসভায় ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সেই লক্ষ্যে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপক্ষে এবং ভোটারদের স্বতস্ফূর্ত অংশ গ্রহণে নির্বাচন অনুষ্ঠানের সার্বিক প্রস্তুতি নেয়া হযেছে।

দৈনিক কালের খবর নিয়মিত পড়ুন এবং বিজ্ঞাপন দিন..

কালের খবর মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com